Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

স্কুলমাঠে সবজি চাষ

সোনাগাজী (ফেনী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদ হাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ দখল করে, বিদ্যালয়ের শিক্ষিকাসহ স্থানীয় প্রভাবশালী মহল। বিদ্যালয়ের একমাত্র মাঠটি দখল করে নেওয়ায় শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠটি নেট দিয়ে ঘিরে ভেতরে বিভিন্ন সবজি চাষ করছেন প্রতিবেশী আবদুল ওহাব ও সামছুল হক গংরা। পেছনের অংশ দখলে রেখেছে বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষকা ফেরদৌস আরা। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানে অভিযোগ করেও অদৃশ্য শক্তির কারণে প্রতিকার পাওয়া যায়নি বলে জানান, বিদ্যালয়ের সভাপতি আবদুল মান্নান।
হাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্থাপনার জন্য স্থানীয় বাসিন্দা হাজী সুলতান আহম্মদ ২৫ শতক ও হাজী জাগীর আহম্মদ ২৫ শতক মোট ৫০ শতক জমি দান করেন।
বর্তমানে বিদ্যালয় ভবনের ১০ শতক জমি ছাড়া খেলার মাঠ পুকুরসহ বাকি ৪০ শতক ভূমি দখল করে রেখেছে সুলতান আহম্মদের নাতনী বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ফেরদৌস আরা ও হাজী জাগীর আহম্মদের নাতী মুসা খান। মুসা খান পাশবতী ৩০৫ দাগে ভ‚মি দখল করে রাখলে ৩০৪ দাগের বিদ্যালয়ের মাঠও দখলে নেন। ৩০৫ দাগের মালিক আবদুল ওহাব ও সামছুল হক গংরা। তবে দখলে থাকা সকলে দখলকৃত ভ‚মি মালিকানা দাবি করছে।
এমতাবস্থায় শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীর দাবি যথাযথ কর্তৃপক্ষ যেন শিশু শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ ও বিদ্যালয়ের ভ‚মি পূনরুদ্ধারে দ্রæত ব্যবস্থা গ্রহণ করে।
এদিকে হাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জসিম উদ্দিন বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দৈনিক সমাবেশ ও খেলাধুলার কোন মাঠ নেই। মাঠ না থাকায় শিক্ষার্থীদের শারিরীক বিকাশ বাধাগ্রস্থ হচ্ছ।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিটলারুজ্জামান জানান, ভ‚মি বিরোধ নিস্পত্তি ও শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ পূনরুদ্ধারের জন্য ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সহযোগীতা চেয়ে আবেদন করা হয়েছে।
সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সোহেল ফারভেজ বলেন, এটি খুবেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ থেকে। আমি ভ‚মি কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি ভ‚মির জটিলতা দ্রæত নিরসন করতে, আর সেটি হলে আমরা অতি সল্প সময়ে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠসহ সকল ভ‚মি পূনরুদ্ধার করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ