Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে আ.লীগ-যুবলীগ সংঘর্ষ

বগুড়া ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

বগুড়ায় রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সামনেই সদর উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মাফতুন আহমেদ খান রুবেলের হাত থেকে মনোনয়নপত্র ছিনতাইয়ের চেষ্টা ও তার সমর্থকদের মারধর করেছে সরকার দলীয় কর্মীরা। এ ছাড়া গাবতলী উপজেলা নির্বাচনে একজন ভাইস চেয়ারম্যানের মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নিয়ে তা ছিড়ে ফেলেছে সরকারী দলের কর্মীরা। অন্যদিকে ধুনট উপজেলায় আওয়ামী লীগের ২ গ্রুপের মধ্যে সৃষ্ট সংঘর্ষে আহত হয়েছেন ১২ জন ।

বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বিএনপি নেতা মাফতুন আহমেদ খান রুবেল জানান, তিনি তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে গতকাল সোমবার বিকেলে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রায়হানা ইসলামের নিকট তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিতে যান। বিকেল সাড়ে ৩টায় রিটার্নিং কর্মকর্তার রুমের ভিতরে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগ মূহুর্তে সরকারী দলের কয়েকজন নেতাকর্মী তার হাত থেকে মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় সরকারী দলের নেতাকর্মীরা রুবেলের কর্মীদের মারধর করে। লাহিড়ীপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আপেল মাহমুদসহ ৪-৫জন আহত হন। বিকেল ৫টার পর পুলিশী পাহারায় রুবেল ও তার সমর্থকরা ডিসি অফিস ত্যাগ করেন। এ ঘটনায় লিখিতভাবে রিটার্নিং কর্মকর্তাকে অভিযোগ দিয়েছেন।

এ দিকে দুপুর ২টায় গাবতলী উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহেদুল ইসলামের মনোনয়নপত্র নির্বাচন অফিসের দোতলায় ছিনতাই করা হয়েছে। এরপর তা ছিড়ে ফেলা হয়। ফলে তিনি আর মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেননি। অন্যদিকে দ্বিতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র জমাদানের শেষ দিনে সোমবার দলীয় মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাই খোকনের পক্ষে মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার জন্য এলাঙ্গী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ তারেক হেলাল দলীয় নেতাকর্মীদের মিছিল নিয়ে উপজেলা সদরে আসেন। বেলা প্রায় ১২ টার সময় উপজেলা পরিষদ সড়কে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এম এ তারেক হেলালের সাথে ধুনট উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বনি আমিন মিন্টুর সাথে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে হেলাল গ্রুপ ও মিন্টু গ্রুপের মধ্যে আধা ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে এলাঙ্গী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান এম এ তারেক হেলাল, লাভলু মিয়া, লিখন, আবু হানিফ, জেসমিন, ইসমাইল, আবু তাহের, মমিন, আব্দুল বাকি, আসিব সহ ১২ নেতাকর্মী আহত হয়ে ধুনট হাসপাতালে ভর্তি হয়। এদের মধ্যে মুমূর্ষ অবস্থায় লাভলু মিয়াকে বগুড়া শহিদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। আদমদীঘি উপজেলায় সরকারি দলের বাধার মুখে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম ব্যতিত অন্য কেউ জমা দিতে পারেননি। এদিন বগুড়ার ১২টি উপজেলায় মোট ৭২জন প্রার্থী উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন বলে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা সূত্রে জানা গেছে ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন