Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

উপজেলায় বিএনপির কঠোর বার্তা

ফারুক হোসাইন | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। দলের সিদ্ধান্ত না মেনে বেশকিছু উপজেলায় দলটির নেতাকর্মীরা নির্বাচনে অংশগ্রহণের প্রস্তুতি নিয়েছে। ইতোমধ্যে তাদের কেউ কেউ মনোনয়নপত্র জমাও দিয়েছেন। যদিও দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে নির্বাচনে অংশগ্রহণে ইচ্ছুক নেতাকর্মীদের কঠোর বার্তা দিয়েছে বিএনপি। দল অথবা নির্বাচন এর যেকোন একটি বেছে নিতে বলা হয়েছে তাদের। নির্বাচনে অংশ নিলেই সাথে সাথে দল থেকে বহিষ্কারের কথা জানিয়ে সতর্কও করা হয়েছে নির্বাচনমুখীদের। উপজেলা নির্বাচন নিয়ে দলের এই কঠোর অবস্থান দেখে রাজশাহী, বগুড়াসহ বেশ কয়েকটি জেলার অনেকেই মনোনয়ন প্রত্যাহার করে কেন্দ্রকে অবহিত করেছে। এরপরও যারা শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে থেকে যাবেন তাদেরকে চূড়ান্ত বহিষ্কারের জন্য চিঠি প্রস্তুত করতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্দেশ দিয়েছেন বলেও দলটির সিনিয়র নেতারা জানিয়েছেন।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভয়াবহ বিপর্যয়ে স্তম্ভিত বিএনপি নেতাকর্মীরা। ভূমিধ্বস পরাজয়ের চুলচেরা বিশ্লেষণ চলছে দলটিতে। নির্বাচনে অপ্রত্যাশিত পরাজয়ের জন্য দলের নির্বাহী কমিটি থেকে শুরু করে অঙ্গসংগঠন ও জেলা-উপজেলা পর্যায়ের নেতৃত্ব পুনর্গঠনের কাজ চলছে। সেই নির্বাচনের দুঃসহ অভিজ্ঞতার ‘ঘা’ না শুকাতেই ঘোষণা করা হয়েছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল। ঘোষিত তফসিল অনুয়ায়ি ১০ মার্চ প্রথম ধাপে ৮৭টি উপজেলায় এবং ১৮ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে ১২৯টি উপজেলা পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম ধাপের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া শেষ হয়েছে, প্রত্যাহারের শেষ দিন আজ। আর দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল গতকাল সোমবার। প্রত্যাহার করা যাবে আগামী ২৭ ফেব্রূয়ারি পর্যন্ত।
যদিও ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে ভোট চুরি, জালিয়াতি এবং আগের রাতে সিল মারার অভিযোগে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজপথের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। গত ২৪ জানুয়ারি দলটির স্থায়ী কমিটির সভায় এই নির্বাচনে অংশ না নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। পরে সেই সিদ্ধান্ত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জানানো হলে তিনি এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান বলে স্থায়ী কমিটির এক নেতা জানান।
বিএনপি সূত্রে জানা যায়, এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত হলেও বেশকিছু উপজেলায় স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন দলটির নেতাকর্মীরা। ইতোমধ্যে প্রথম ধাপ ও দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য রাজশাহী, বগুড়া, নাটোর, সিরাজগঞ্জ, দিনাজপুর, সিলেটসহ বেশ কয়েকটি জেলার বেশকিছু নেতা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে। দলের শীর্ষ নেতাদের কাছে কাছে এই সংবাদ পৌঁছালে তারা আবারও নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দেন।
বিএনপির এক নীতি নির্ধারণী নেতা জানান, দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছে বিএনপি এই নির্বাচন বর্জন করেছে। তাই বিএনপির কেউ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। এরপরও যদি কেউ অংশগ্রহণ করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কী ধরণের সাংগঠনিক ব্যবস্থা জানতে চাইলে ওই নেতা বলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশ অনুযায়ি তাদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে হয় দল অথবা নির্বাচন এর যেকোন একটিকে বেছে নিতে বলা হয়েছে। যদি কোন নেতা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চায় তাহলে আগে দল থেকে পদত্যাগ করতে বলা হয়েছে। অন্যত্থায় দল তাকে বহিষ্কার করবে।
নির্বাচনের বিষয়ে অবস্থান স্পষ্ট করে আনুষ্ঠানিকভাবে সকল জেলায় কোন চিঠি দেয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে দলের দপ্তরের দায়িত্বে থাকা এক নেতা জানান, এটা তো সংবাদ সম্মেলন করেই দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেছেন। তাই চিঠি দেয়ার কোন প্রয়োজন নেই। এছাড়া সকল জেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে ফোন করে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশ ও দলের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হয়েছে।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির কোন নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। যদি কেউ দলের সিদ্ধান্ত বরখেলাপ করে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি জানান, দলের জেলা পর্যায়ের নেতাদের এই সিদ্ধান্ত স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়েছে। এরপরও কেউ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে দল থেকে চূড়ান্তভাবে বহিষ্কার করা হতে পারে।
দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে না যাওয়ার বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এটাই দলের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।



 

Show all comments
  • তানবীর ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৩:৩৫ এএম says : 0
    জাতির এই ক্রান্তিকালে দলীয় কমান্ড মেনে চলা উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • ইব্রাহিম ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৩:৩৪ এএম says : 0
    এসব কঠোর বার্তা দিয়ে কোন লাভ আছে বলে আমি মনে করি না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ