Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ডানেডিনে কী আছে ভাগ্যে

নিউজিল্যান্ড-বাংলাদেশ তৃতীয় ওয়ানডে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

নিউজিল্যান্ড সফরে ভেন্যু বদল হলেও বদল হয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ভাগ্য। নেপিয়ারে বাজেভাবে হারা মাশরাফির দল ক্রাইস্টচার্চে পড়ে আরো বড় ক্রাইসিসে। এবার ডানেডিনের পালা। সেখানেও কি একই ভাগ্য অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের জন্যে?
সেটা হয়ত আগামীকাল জানা যাবে। কিন্তু তার আগে যে নিউজিল্যান্ড থেকে একের পর এক দুঃসংবাদ আসতেই আছে! এমিনেতই দল এখন হোয়াইটওয়াশের সামনে। এবার ‘মরার উপর খাঁড়ার ঘা’ হয়ে এসেছে মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মদ মিঠুনের চোটের খবর। এজন্য আবার মুমিনুল হকের স্বরণাপন্ন হয়েছেন নির্বাচকরা।

এমনিতেই সাকিব আল হাসান চোটে পড়ায় বাংলাদেশ ওয়ানডে স্কোয়াড নেমে আসে ১৪ জনে। প্রথম দুই ওয়ানডেতে দলের বাইরে যে তিনজন ছিলেন, তিন জনই বোলার। তারা হলেন, দুই পেসার রুবেল হোসেন ও শফিউল ইসলাম এবং অফ স্পিনার নাঈম হাসান। তার মানে, ওয়ানডে স্কোয়াডে কোন ব্যাটিং বিকল্প রাখেননি নির্বাচকরা। মুশফিক ও মিঠুনের চোটের কারণে তাই টেস্ট দলে থাকা মুমিনুলের দিকে হাত বাড়ালেন তারা।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাটিংয়ের সময় হ্যামস্ট্রিং চোট পেয়েছিলেন মিঠুন। মিঠুনের ব্যাটেই প্রথম দুই ম্যাচে বাংলাদেশের হারটা ছিল সম্মানজনক! দুই ম্যাচে বাংলাদেশের যে দুটি ফিফটি ইনিংস আছে দুটিই মিঠুনের। অলৌকিক কিছু না হলে শেষ ওয়ানডেতে সেই মিঠুনকে ছাড়াই খেলতে হবে মাশরাফি বাহিনীকে। তার হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটটা মুটামুটি প্রথম পর্যায়েরর। এজন্য সপ্তাখানেক তাকে মাঠের বাইরে থাকা লাগতে পারে। মিঠুনের আশা, টেস্ট সিরিজ শুরু হওয়ার আগে তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন।

মুশফিকও দ্বিতীয় ম্যাচ খেলার সময় পাঁজরের এক পাশে ব্যথা অনুভব করেছেন। ১০ ফেব্রুয়ারি অনুশীলনের সময় টানটা লাগে বলে মুশফিকের ধারণা। যদিও দুজনের কারোরই এখনো স্ক্যান করে চোটের চূড়ান্ত অবস্থা জানা যায়নি। সেটা আগামীকাল জানতে পারার কথা। তবে অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে বড় ধরণের সমস্যা না হলে মুশফিককে খেলানো হতে পারে। সেটা যে ব্যাটিং বিকল্প না থাকার কারণে তা বোঝাই যায়। মুমিনুলের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে খেলাও তাই এক প্রকার নিশ্চিত।

টেস্ট সিরিজের জন্য আগেই নিউজিল্যান্ডে পা রাখেন মুমিনুল। ক্রইস্টচার্চ থেকে তাকে ডানেডিনে উড়িয়ে নেয়া হয়েছে। ডানেডিনের ইউনিভার্সিটি ওভালে ২০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে নিউজিল্যান্ড-বাংলাদেশ তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে। এই ম্যাচেও একই দশা হলে হোয়াইটওয়াশের লজ্জাও তো টাইগাররা পাবেই এমনকি তিনটি মূল্যবান রেটিংও হারাবে বাংলাদেশ দল। আর জিততে পারলে সিরিজ হারলেও, র‌্যাংকিং-এ আগের অবস্থান ও রেটিং ধরে রাখতে পারবে বাংলাদেশ।

সিরিজ শুরুর আগে বাংলাদেশের রেটিং ছিলো ৯৩। অবস্থান- সপ্তম। তবে প্রথম দুই ম্যাচ হেরে এখন টাইগারদের রেটিং ৯১। তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে হারলে আগের অবস্থানে থাকলেও, রেটিং হবে ৯০। অর্থাৎ সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হলে তিনটি মূল্যবান রেটিং হারাবে বাংলাদেশ। কিন্তু শেষ ম্যাচ জিতলে আগের রেটিং ধরে রাখতে পারবে তারা। অর্থাৎ সিরিজ শুরুর আগে ৯৩ ছিলো, ২-১ ব্যবধানে হারেরও পরও ৯৩ই থাকবে বাংলাদেশের রেটিং।

অপরদিকে, সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকার সুবাদে বর্তমানে ওয়ানডে র‌্যাংকিং-এ তৃতীয়স্থানে উঠেছে নিউজিল্যান্ড। তাদের এখন রেটিং ১১২। ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জিততে পারলে ১১২ রেটিং নিয়ে তৃতীয় স্থান ধরে রাখতে পারবে কিউইরা। আর ২-১ ব্যবধানে নিউজিল্যান্ড সিরিজ জিতলে তাদের রেটিং থাকবে ১১১। তখন চতুর্থস্থানে নেমে যাবে ব্ল্যাক ক্যাপ বাহিনী।

# রেটিং বাঁচাতে জিততেই হবে বাংলাদেশকে
# চোটের কারণে দলের বাইরে মিঠুন
# মুশফিককে নিয়েও শঙ্কা
# আবারো ডাক পড়েছে মুমিনুলের



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন