Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯, ১২ চৈত্র ১৪২৫, ১৮ রজব ১৪৪০ হিজরী।

কাশ্মিরে সেনা অভিযান সমাপ্ত, নিহত ৭

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৪:১৩ পিএম

 

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের পুলওয়ামার স্বাধীনতাকামীদের আস্তানায় ভারতীয় সেনা বাহিনীর অভিযান সমাপ্ত। এ ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সেনা সদস্যসহ প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত সাতজন। যাদের মধ্যে পুলওয়ামা হামলার মূলহোতা এবং পাকিস্তান পন্থী জঙ্গি সংগঠন জয়েশ-ই-মোহাম্মদের কমান্ডার আব্দুল রশিদ গাজী ওরফে কামরান এবং তার দুই সহযোগী নিহত হয়েছেন। তাছাড়া আরও প্রাণ হারিয়েছেন বাহিনীর মেজরসহ কমপক্ষে চার সদস্য। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকালে ভারতীয় সেনা বাহিনীর পক্ষ থেকে দেওয়া বিবৃতির বরাতে করা প্রতিবেদনে এই অভিযান সমাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।
প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার স্থানীয় সময় গভীর রাতে জেলার পিঙ্গলান এলাকায় জঙ্গিরা লুকিয়ে আছে বলে এক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে ভারতীয় সেনাবাহিনী। তল্লাশি অভিযান পরিচালনার সময় সন্দেহভাজন জঙ্গিরা নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। মূলত এতেই দুই পক্ষের মধ্যে এই বন্দুকযুদ্ধের শুরু হয়।
এদিকে অভিযান পরিচালনার বিষয়ে ভারতীয় সেনা বাহিনীর মুখপাত্র রাম সিং বলেন, ‘বৃহস্পতিবার পুলওয়ামার যে স্থানে আত্মঘাতী গাড়ি বোমা হামলাটি চালানো হয়েছিল তার ঠিক ছয় থেকে আট কিলোমিটার দূরেই এই জঙ্গিদের আস্তানা।’
সেনা বাহিনীর এ কর্মকর্তা আরও বলছেন, ‘আমরা এখনো ধারণা করছি যে, আরও প্রায় দুই বা তিন জন জঙ্গি সেই এলাকাটিতে আত্মগোপন করে থাকতে পারে। তাছাড়া পুলওয়ামার হামলাকারী জঙ্গি আদিল দারের সঙ্গে নিহতদের সম্পৃক্ততা থাকতে পারে বলে আমাদের ধারণা।’
অপরদিকে পুলিশের এক মুখপাত্র বলেন, ‘কাশ্মিরের দক্ষিণাঞ্চলীয় পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) অমিত কুমার জঙ্গিদের গুলিতে আহত হয়েছেন। তাছাড়া গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বাহিনীর কর্নেল এবং এক ক্যাপ্টেনও। তারা সবাই বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। তবে ডিআইজি অমিত কুমারের অবস্থা এখন বেশ আশঙ্কাজনক।’
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু কাশ্মিরে এক আধাসামরিক বাহিনীর গাড়ি বহরে পাকিস্তান ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জয়েশ-ই-মোহাম্মদের করা হামলায় অন্তত ৪৪ সেনা নিহত হন। হামলার সময় গাড়িটিতে ভারতের কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ বাহিনীর (সিআরপিএফ) কমপক্ষে ৫৪ জন সদস্য ছিলেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিহত


আরও
আরও পড়ুন