Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

নৌকা মার্কা পেলেই পাস

আলোচনা সভায় ড. খন্দকার মোশাররফ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

উপজেলা নির্বাচন আরেকটি নাটক মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, এই নির্বাচন কমিশন দিয়ে উপজেলা নির্বাচন কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। সিটি নির্বাচন ও উপজেলা নির্বাচন আরেকটি নাটক, আরেকটি প্রহশন। তিনি বলেন, সিটি করপোরেশন ও উপজেলা নির্বাচনে যারা নৌকা মার্কায় নমিনেশন পাবে তারাই পাস। এখানে কোনো প্রতিযোগিতার সুযোগ নেই, কোনো বিরোধী দল নেই। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত ‘জনগণের মৌলিক অধিকার ও হারানো গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জাতীয় ঐক্য আজ সময়ের দাবি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ দাবি করে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ৩০ ডিসেম্বর আমরা তথাকথিত নির্বাচন দেখেছি, এই নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ। তাই আমরা ইতিমধ্যে ঘোষণা করেছি আমরা এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব না। এটা নির্বাচন হবে না। আবার আগের মতো প্রহসন হবে। সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আজকে আমাদের নেতাকর্মীরা হতাশ নয়, তারা হতভম্ব। দেশের গণতন্ত্র, মানুষের ভোটের অধিকার এবং খালেদা জিয়ার মুক্তি একেই সূত্রে গাঁথা। আজকে বেগম জিয়াকে কারাগারে নিঃশেষ করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র চলছে। এর থেকে মুক্তি পেতে হলে আমাদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। তিনি আরো বলেন, ২৯ ডিসেম্বর প্রমাণ হয়েছে, যেখানে খালেদা জিয়া নেই, সেখানে গণতন্ত্র নেই। তাই আমাদের প্রথমে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্ত করে আনা হবে।
মুক্তিযোদ্ধা সাদেক আহমেদ খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তৃতা করেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমূর আলম খন্দকার, বিএনপির মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) জয়নাল আবেদীন, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ