Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

ভারত হামলা চালালে প্রতিশোধ নেবে পাকিস্তান : ইমরান খান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ভারত যদি হামলা চালায় তাহলে পাকিস্তান প্রতিশোধ নেবে। এদিকে ভারতের এক সেনা কমান্ডার হুমকি দিয়েছেন যে, কাশ্মীরে কেউ অস্ত্র হাতে নিলে তাকে নিশ্চিহ্ন করা হবে। সউদী আরব পাকিস্তান-ভারত উত্তেজনা হ্রাসে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। অন্যদিকে উত্তেজনা হ্রাসে জরুরি পদক্ষেপ নিতে জাতিসংঘের প্রতি আহবান জানিয়েছে পাকিস্তান। ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের পুলওয়ামা হামলার পর এ বিষয়ে প্রথম মুখ খুললেন ইমরান খান। এই হামলায় ভারতের আধা সামরিক বাহিনী সিআরপিএফের কমপক্ষে ৪৪ জন সদস্য নিহত হয়। এর দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তান ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ। তবে ভারত এ জন্য দায়ী করছে পাকিস্তানকে। আর এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন ইমরান খান। তিনি উপযুক্ত প্রমাণ চেয়েছেন।
মঙ্গলবার এক ভিডিও বার্তায় ইমরান খান বলেন, পুলওয়ামা হামলায় পাকিস্তান জড়িত নয়। তিনি বলেন, ভারতে সামনে নির্বাচন। সেই নির্বাচনকে সামনে রেখে এই হামলা চালানো হয়েছে। তিনি বলেন, যদি এসব প্রমাণ গুরুতর হয়, দয়া করে তা পরিষ্কার করুন। যদি পাকিস্তানে আক্রমণ চালানো হয়, তাহলে পাকিস্তান প্রতিশোধ নেয়ার চিন্তা করবে না, প্রতিশোধ নেবে। তিনি বলেন, পাকিস্তানের জন্য আর কোনো পথ নেই।
বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এ কথার মধ্য দিয়ে এ সঙ্কট যে ভারতের ভিতরকার, ইমরান খান তাই বোঝানোর চেষ্টা করেছেন।
তিনি সমস্যা সমাধানে আলোচনার কথা বলেন। তিনি বলেন, পাকিস্তান স্থিতিশীলতার দিকে যাচ্ছে। এ সময় আমরা কেন এসব করার দিকে যাব? এ হামলায় পাকিস্তান জড়িত বলে আপনাদের কাছে যদি বিশ্বাসযোগ্য তথ্য থাকে তা আমাদের দিন। আমরা এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার নিশ্চয়তা দিচ্ছি। আর তা করব চাপের মুখে আছি বলে নয়, তারা পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কাজ করছে বলে।
ইমরান খান বলেন, ভারত কোনো প্রমাণ ছাড়াই পাকিস্তানকে অভিযুক্ত করছে। তারা ভাবছে না যে এতে পাকিস্তানের কি লাভ। সউদী যুবরাজের পাকিস্তান সফরের মু এমন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে কোনো বোকাও কি সন্ত্রাসী কাজ করবে?
তিনি প্রশ্ন করেন, একটি দেশের নেতৃত্ব কী করে বিচারক, জুরি ও দন্ড কার্যকরকারী হতে পারে? এটা কী ধরনের বিচার?
ইমরান খান বলে, যুদ্ধ শুরু করা সহজ, শেষ করা কঠিন।
এদিকে ভারতের সেনাবাহিনী কাশ্মীরি তরুণদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, যে হাতে অস্ত্র তুলে নেবে তাকে নিশ্চিহ্ন করা হবে। ভারতের সেনাবাহিনীর চিনার কোর কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কানওয়াল জিৎ সিং ধিলন মঙ্গলবার বলেন, কাশ্মিরে যার কাছেই অস্ত্র থাকবে এবং সে যদি আত্মসমর্পণ না করে, তবে তাকে নির্মূল করা হবে। একই সঙ্গে তিনি কাশ্মিরের সব মায়ের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আপনার কোনো ছেলে যদি সন্ত্রাসে যোগ দিয়ে থাকে তাহলে তাকে আত্মসমর্পণ করতে বলুন। জম্মু ও কাশ্মিরের পালওয়ামায় সোমবার জঙ্গি গোষ্ঠী জৈশ ই মোহাম্মদের তিন জঙ্গিকে এক সেনা অভিযানে হত্যার পর তিনি এমন মন্তব্য করেন।
উত্তেজনা হ্রাসে সউদী সহায়তা
এএফপির খবরে বলা হয়, সউদী আরব ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বেড়ে চলা উত্তেজনা কমাতে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ইসলামাবাদ সফরকালে সোমবার এক উচ্চ-পর্যায়ের সম্মেলন চলাকালে এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়।
পাকিস্তানের রাজধানীতে এক সংবাদ সম্মেলনে সউদী আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবায়ের বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে, দুই প্রতিবেশীর মধ্যে উত্তেজনা প্রশমনের চেষ্টা করা। এছাড়া দেশ দুটির মধ্যে মতানৈক্য শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান করা যায় কিনা, সেটার উপায় খুঁজে দেখা।
জাতিসংঘের সাহায্য কামনা
কাশ্মীরে আত্মঘাতী হামলায় একটি আধাসামরিক বাহিনীর ৪৪ জওয়ান নিহত হওয়ায় ভারতের সঙ্গে উত্তেজনা কমাতে জাতিসংঘের মহাসচিবের কাছে অনুরোধ করেছে পাকিস্তান। রয়টারস এ খবর দিয়েছে।
মঙ্গলবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরাইশি এ অনুরোধ করেন। পুলওয়ামায় ওই হামলার দায় পাকিস্তানের ওপর চাপালেও তা অস্বীকার করছে দেশটি।
মে মাসে ভারতের জাতীয় নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। হামলার ঘটনায় পাকিস্তানকে উপযুক্ত জবাব দেয়ার অঙ্গীকার করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এতে পারমাণবিক অস্ত্র সমৃদ্ধ দেশ দুটির মধ্যে সংঘাতে আশঙ্কা বাড়ছে।
জাতিসংঘের মহাসচিবের কাছে লেখা এক চিঠিতে কুরাইশি বলেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের বলপ্রয়োগের হুমকির পর আমাদের এ অঞ্চলের নিরাপত্তা পরিস্থিতি ক্রমাগত অবনতির দিকে যাচ্ছে। এ বিষয়ে জরুরি ভিত্তিতে আমি আপনার মনোযোগ আকর্ষণ করছি। তিনি বলেন, উত্তেজনা কমাতে পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি হয়ে পড়েছে।
তিনি বলেন, ঘরোয়া রাজনীতির কারণে প্রতিশোধমূলক ভাষা ব্যবহার করছে ভারত। তাই তদন্তের আগেই ভারত পাকিস্তানের ওপর দোষ চাপাচ্ছে। তিনি বলেন, পুলওয়ামা ঘটনায় ভারতকে একটি উন্মুক্ত ও বিশ্বাসযোগ্য তদন্ত করতে হবে। সূত্র : অনলাইন এনডিটিভি, এএফপি ও রয়টার্স।



 

Show all comments
  • Yasin ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:৪০ এএম says : 0
    রাত যত গভীর হয়,প্রভাত তত কাছে আসে।অত্যাচার যত বাড়বে স্বাধীনতার সাধ তত মধুর হবে।অত্যাচার নিপীড়ন সহয্য করা চাড়া কোন জাতি স্বাধীন হতে পারেনি।দখলদার পরাজিত হবেই ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • Akther Hussain ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:৪০ এএম says : 0
    kashmir nea eto problem ta hole oder shadinota de daw
    Total Reply(0) Reply
  • মাহি চৌধুরী শাম্মেল ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:৪১ এএম says : 0
    ইয়া আল্লাহ কাশ্মীর এর মুসলিম দের হেফাজত করুন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ