Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯, ০৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

গোল মিসের মহড়ায় পারল না বার্সা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৪:৫৬ এএম

একের পর এক সুযোগ হাতছাড়া করে সমর্থকদের হতাশ করলেন লুইস সুয়ারেজ। লিওনেল মেসির সামনে লিঁওর গোলরক্ষক লোপেজও হয়ে উঠলেন চীনের প্রাচীর। আক্রমণের পসরা সাজিয়েও প্রতিপক্ষের জাল আবিষ্কার করতে পারেনি আর্নেস্তো ভালভার্দের বার্সেলোনা। দারুণ আক্রমণাত্মক ফুটবলে গোল করতে ব্যর্থ লিঁওও। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দু’দলের মধ্যকার শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচটিও থেকে গেছে গোলশূন্য ড্র।

মঙ্গলবার রাতে লিঁওর অলিম্পিক স্টেডিয়ামে শুরু থেকে গোছালো ফুটবলে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা চালায় বার্সেলোনা। কিন্তু প্রথম সুযোগ তৈরি করে স্বাগতিকরা। ম্যাচের নবম মিনিটে দূর থেকে ভেসে আসা বল ডি বক্সে বুকে নিয়ে তেয়াইয়ের দিকে বাড়ান মুসা দেম্বেলে। তেয়াইয়ের বুলেটগতির শট লাফিয়ে রক্ষা করেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেন। বল তার হাতে লেগে দিক পাল্টে ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে।

১৫তম মিনিটে ইভান রাকিটিচের দূরপাল্লার শট সামান্যর জন্য লক্ষ্যচূত হয়। বাম প্রান্ত থেকে বেশ ক’বার আক্রমণে উঠে ফিফটি-ফিফটি সুযোগ তৈরি করেন ওউসমান দেম্বেলে। কিন্তু প্রতিবারই আক্রমণের শেষটা হতাশায় রূপ দেন লুইস সুয়ারেজ। ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় চ্যাম্পিয়ন্স লিগের অ্যাওয়ে ম্যাচে কোন গোলের সঙ্গে সম্পর্ক নেই উরুগুয়ান স্ট্রাইকারের। প্রথমার্ধেই ১৩ বার শট নেয় বার্সা, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে বাতে বরিসভ ম্যাচের পর যা সর্বোচ্চ।

দ্বিতীয়ার্ধেও কাতালান ভক্তদের একের পর এক হতাশ করেন সুয়ারেজ। তবে এবারও শুরুর দিকে পাল্টা আক্রমণে বার্সা সমর্থকদের ভয় ধরিয়ে দেয় স্বাগতিকরা। টের স্টেগেনকে পরীক্ষায় ফেলেন লিঁওর ডাচ স্ট্রাইকার মেম্ফিস ডিপায়। ৫২ মিনিটে তার ভলি দূরের পোস্টে লেগে বেরিয়ে যায়।

৬৩ মিনিটে ইউরোপিয়ান ফুটবলে প্রতিপক্ষের মাঠে গোল খরা কাটানোর সহজতম সুযোগ পান সুয়ারেজ। কিন্তু তার দূর্বল শট সহজেই প্রতিহত করেন লিঁও গোলরক্ষক লোপেজ।

দুই মিনিট পর দেম্বেলের সঙ্গে ওয়ান টু খেলে দুরূহ কোণ থেকে নেয়া মেসির শট দারুণ দক্ষতায় রক্ষা করেন লোপেজ। ৬৭তম মিনিটে দেম্বেলের বদলি নামেন ফিলিপ কুতিনহো।

৭০তম মিনিটে আবারও গোলের সহজ সুযোগ হেলায় নষ্ট করেন সুয়ারেজ। জর্ডি আলবার কাট ব্যাক ফাঁকায় পেয়েও লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। চার মিনিট পর আবারও একই চিত্রনাট্যের মঞ্চায়ন। এবারো ব্যর্থ হন সুয়ারেজ।

৭৬ মিনিটে কুতিনহো ও ৮৬ মিনিটে সার্জিও বুসকেটসকে গোলবঞ্চিত করেন লোপেজ। দুর্দান্ত ফুটবল উপহার দিয়েও গোলশূন্য ড্রয়ের হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় আর্নেস্তো ভালভার্দের দলকে।

একই সময়ে আনফিল্ডে অনুষ্ঠিত লিভারপুল-বায়ার্ন মিউনিখ ম্যাচও গোলশূণ্য ড্রয়ে শেষ হয়।

আগামী ১৩ মার্চ ফিরতি পর্বের ম্যাচে ন্যু ক্যম্পে মুখোমুখি হবে বার্সেলোনা ও লিঁও। একই রাতে লিভারপুলকে আতিথ্য দেবে বায়ার্ন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন