Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

সিলেটে বর্ণমালার মিছিল

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৩:১৫ পিএম

সিলেটের সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রুতির আয়োজন বর্ণমালার মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে নগ্নপায়ে একুশের সুরে বর্ণমালার মিছিল শুরু হয়। সবার হাতে হাতে ছিল বর্ণমালা আর কণ্ঠে ছিলো একুশের গান।
সূর্যোদয়ের পরপরই গৌরবের বাংলা বর্ণমালা হতে নিয়ে নগ্ন পায়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধিরা শ্রদ্ধার্ঘ্য প্রদান করে শহিদবেদীতে। বর্ণমালা হাতে বর্ণমালার মিছিল বারবার উচ্চারিত হয়েছে সেই সব শহীদর আত্মদানের কথা যাদের আত্মত্যাগের ফলে আমরা বাংলায় মা কে ‘মা’ বলে বলতে পারছি।
অনুষ্ঠানে শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শ্রুতির সদস্য সচিব সুকান্ত গুপ্ত। এসময় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ব্যারিস্টার আরশ আলী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মুক্তিযোদ্ধা ভবতোষ বর্মণ রানা, কবি সুমিতা দত্ত, শ্রুতি সিলেটের সমন্বয়ক সুমন্ত গুপ্ত প্রমুখ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বাঙালির মননে অনন্য মহিমায় ভাস্বর চিরস্মরণীয় একুশে ফেব্রুয়ারি। ইতিহাসের পাতায় রক্ত পলাশ হয়ে ফোটা সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার, সফিউর, আউয়াল, অহিউল্লাহর রক্তে রাঙানো অমর ২১শে ফেব্রুয়ারি আজ। রক্তস্নাত ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিবহ মহান শহীদ দিবস। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।
বাঙালি জাতির সমগ্র ইতিহাসে রক্তাক্ষরে লিখিত দিনগুলির মধ্যে একুশে ফেব্রুয়ারি অন্যতম। এই দিনে সবার পথ এসে মিলেছে অভিন্ন গন্তব্যে। সবাই নগ্ন পায়ে একই সুরে ধ্বনিত করেছে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি’।
১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি ঢাকার রাজপথে ঘটেছিল বাঙালির ইতিহাস পাল্টে দেওয়ার ঘটনা। ‘বাংলা ভাষা প্রাণের ভাষা’ স্লোগানে মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষায় অকাতরে প্রাণ বিলিয়ে দেয় বাঙালি তরুণ প্রজন্ম। একুশের চেতনা আমাদের আত্মমর্যাদাশীল করেছে। ‘একুশ মানে মাথা নত না করা’ চিরকালের এ স্লোগান তাই আজও সমহিমায় ভাস্বর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: একুশে

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন