Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ০৬ চৈত্র ১৪২৫, ১২ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

নরম সুরে আলোচনার বার্তা মোদির

কাশ্মীরিদের ওপর হামলায় জাতিসংঘের উদ্বেগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায় হামলায় ৪০ জনেরও বেশি কেন্দ্রীয় নিরাপত্তারক্ষী নিহত হওয়ার পরেই পাকিস্তানকে উদ্দেশ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, তাদের সঙ্গে আলোচনার সময় শেষ। কিন্তু বুধবার মোদি হঠাৎ করেই কিছুটা নরম সুরেই ইসলামাবাদকে ফের আলোচনার বার্তা দিলেন। সউদী ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে মোদির বৈঠকের পর এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সামগ্রিক আলোচনা যেখানে শুরু হতে পারে, ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে সে রকম পরিবেশ তৈরির প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে একমত হয়েছে দুদেশ। পুলওয়ামার হামলার পর জয়েশ-ই-মোহম্মদ নেতা মাসুদ আজহারকে জাতিসংঘের জঙ্গি তালিকায় আনার দাবি জোরদার হওয়ার মুহূর্তেই পাকিস্তান সফরে গিয়েছিলেন সালমান। সেখানে পাকিস্তান-সউদী যৌথ ঘোষণাপত্রে ছিল জাতিসংঘের জঙ্গি তালিকা নিয়ে রাজনীতির অভিযোগ। পররাষ্ট্র সূত্র বলছে, বুধবারের বৈঠকের পরে এ কথা স্পষ্ট যে, পুলওয়ামা-পরবর্তী পরিস্থতি সামলাতে কূটনৈতিক পথেই জোর দিচ্ছে দিল্লি। সউদী আরব পাকিস্তানের ঘনিষ্ঠ বন্ধু। তাই সে দেশের নেতৃত্বকে পাশে রেখে বার্তা দেওয়া হয়েছে ইসলামাবাদকে। ২০১৪ সালের মে থেকে পাকিস্তানের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপনে মোদি যে ব্যক্তিগতভাবে উদ্যোগী হয়েছিলেন তার প্রশংসা করেছেন সালমান। তবে শুরু থেকেই ভারতের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে তৃতীয় রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপ গ্রহণ করা হবে না। কিন্তু সউদীর সঙ্গে যৌথ বিবৃতিতে পাকিস্তান প্রসঙ্গে সেই অবস্থান থেকে সরে এসেছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। মোদি বলেন, যেসব দেশ সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করছে, তাদের উপর চাপ তৈরি করা হবে। যুবশক্তি যাতে বন্দুক হাতে না-তোলে, তা নিশ্চিত করতে হবে। যৌথ বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ভারত এবং সউদী আরব সন্ত্রাসকে কোনও বিশেষ জাতি বা সংস্কৃতির সঙ্গে যুক্ত করার বিরোধী। অপর এক খবরে বলা হয়, কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর ভারতজুড়ে মুসলমান ও কাশ্মীরিদের ওপর হামলার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেট। একই সঙ্গে কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনারও নিন্দা জানিয়েছেন তিনি। মিশেল ব্যাচেলেট বলেন, মুসলমান ও কাশ্মীরিদের ওপর সহিংসতা এবং হুমকিকে বৈধ করতে পুলওয়ামা হামলার কিছু বিষয়কে ব্যবহার করা হচ্ছে। এতে আমরা উদ্বিগ্ন। তিনি বলেন, এ ধরনের হামলার ঘটনা মোকাবেলায় ভারতীয় কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ সম্পর্কে আমরা অবগত আছি। তবে আশা করছি, সব ধরনের ক্ষয়ক্ষতি থেকে মানুষকে সুরক্ষা দিতে সরকার পদক্ষেপ নেবে। গেল বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রæয়ারি) কাশ্মীরের পুলওয়ামার অবন্তীপুরায় ভারতের কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ বাহিনীর (সিআরপিএফ) কনভয়ে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় প্রায় ৪৪ জওয়ান নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৪০ জনেরও বেশি। এরপর থেকে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে। হামলায় পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকা ছিলো বলে দাবি করেছে ভারত। তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে ইসলামাবাদ। আনাদোলু, এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।



 

Show all comments
  • Zido Khan ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫১ এএম says : 0
    হিজলা সংস্থা মুসলমানদের কোনো সমস্যা সমাধানে নাই।আজকে কাশ্মীর, বামা, ফিলিস্তিন দের জন্য। ওদের কিছু করার নাই।
    Total Reply(0) Reply
  • Shafiq Ahmed ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫২ এএম says : 0
    জাতিসংঘের উদ্বেগ করলেও বমি হয় না কখনও
    Total Reply(0) Reply
  • Sayed Abubakar Siddik ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫২ এএম says : 0
    Very simple logic bro, ১৯৭১ এ ভারত বাংলাদেশকে সাহায্য করেছিলো পাকিস্তানের কাছ থেকে স্বাধীনতা পেতে, এখন পাকিস্তান কাশ্মীরকে সাহায্য করছে ভারত থেকে স্বাধীনতা পেতে। ভারত আমাদের সাহায্য করে যদি মহান কিছু করে থাকে, তাহলে পাকিস্তানের বেলায় কেনো জঙ্গী শব্দ বলছেন আপনারা? পাকিস্তান জঙ্গী হলে ভারতও তো সেই পথেরই পথিক হবে তাই নয় কি?
    Total Reply(0) Reply
  • Md Hossein Millat ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৩ এএম says : 1
    লক্ষ কোটি মুসলিম হত্যা করলেও শান্তিত নোবেল পাওয়া যায়। প্রতিবাদ করলেই জংগী, সন্ত্রাসী। বিশ্বের বাতিল শক্তিগুলো একজোট হয়েছে আর তাদের সাথে সুর মিলাচ্ছে নামধারী কিছু মুসলিম
    Total Reply(0) Reply
  • Sayed Abubakar Siddik ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    এই সাম্রাজ্যবাদী নব্য ব্রিটিশ উপনবেশিক ভারত হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার মাস্তান ও ক্রিমিনাল অপশক্তি! দক্ষিণ এশিয়ার কেন্সারের ! এই ক্যান্সার ক্রমশই খারাপতর হচ্ছে ! মহাত্মা গান্ধীর সেই শান্তির ও অসহিংস ভারত আর নাই ! #১ কাশ্মীরি মানুষকে স্বাধীনতা বিবর্জিত করে তাদের ৭০ বছর ধরে শোষণ করছে , হত্যা করছে ! #২ দক্ষিণ এশিয়ার প্রতিটা দেশে অভ্ভন্তরীন গণতন্ত্রে হস্তক্ষেপ করে নিজেদের পোষা স্বৈরাচার বসাতে চাই সব সময় #৩ নিজের দেশেই মুসলিমদের গো-মাতার অজুহাতে ও সাম্প্রদায়িক বিষে অনবরত হত্যা, নিপীড়ন , বঞ্চনা করে আসছে ! বাংলাদেশ হওয়ার পর থেকে ভারত একের পর এক বাংলাদেশকে আঘাত ও স্বার্থ হানি করেছে ! #১ স্বাধীনতার পরপরই বাংলাদেশ থেকে কোলকারখানার ভারী মেশিনারি ও আর্মির ভারী ও ভালো সব অস্ত্র লুট করেছে ! #২ বাংলাদেশ থেকে ১৯৫ পাকি যুদ্ধ অপরাধী নিয়ে তাদের বিনিময় পাকিস্তান থেকে কোটি কোটি টাকা আদায় করেছে ! বাংলাদেশকে বিচার থেকে বঞ্চিত করেছে ও টাকা থেকে বঞ্চিত করেছে #৩ পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাসী বিচ্ছিন্নতাবাদী শান্তিবাহিনী অস্ত্র ও ট্রেনিং দিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছে , হাজার হাজার সৈন্য মেরেছে ! #৪ বিডিআর দিয়ে বাংলাদেশের ৫৭ আর্মি অফিসের হত্যা করেছে #৫ বাংলাদেশের নদীর পানি হাইজ্যাক করে আটকিয়ে রেখেছে #৬ বাংলাদেশিদের অনবরত সীমান্তে প্রতিদিন হত্যা করে লাশের শ্বশান বানিয়েছে সীমান্ত গ্রামকে #৭ বাংলাদশের অভ্ভন্তরীন বেপারে হস্তক্ষেপ করে গণতন্ত্র হত্যা করেছে, ভুয়া জোচ্চোরি ভন্ড নির্বাচনকে সার্টিফাই দিয়ে ও একদলীয় স্বৈরাচার পৃষ্টপোষকতা করেছে ! #৮ রাজনৌতিক ব্ল্যাকমেল করে বাংলাদেশে একতরফা ও একচেটিয়া চুক্তির মাদ্ধমে ফ্রি ট্রানজিট, বন্দর, টিভি , সরকারি প্রজেক্ট ইত্যাদি দখল করেছে #৯ রাজনৌতিক ব্ল্যাকমেল করে বাংলাদশে একতরফা বাণিজ্য ও রপ্তানি করে বাংলাদেশের বাজার ও বেবসা দখল করে রেখেছে #১০ লাখ লাখ ভারতীয়দের অবৈধভাবে চাকরিতে ঢুকিয়েছে বাংলদেশী কোটি যুবক বেকার থাকে স্বর্তেও #১১ সুন্দরবন বিধ্বংসী রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র করেছে #১৩ তিতাস নদীকে ধ্বংস করে তার উপর ভারতের মালামাল বহন করার জন্য রাস্তা বানিয়েচে #১৪ বাংলাদেশ আর্মিকে গায়ের জোরে ভারতের নিন্ম মানের অস্ত্র কিনতে বাধ্য করেছে #১৫ রাজনৌতিক ব্ল্যাকমেল করে বাংলাদেশকে অপ্রয়োজনীয় ভাৰতীয় পণ্য , বিদ্যুৎ , সরঞ্জাম ও সার্ভিস কিনতে বাধ্য করছে ! #১৬ রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারত বাংলাদেশকে বিরুদ্ধে জাতিসংঘে ভোট দিয়েছে, অথচ পাকিস্তান বাংলাদেশের পক্ষে ভোট দিয়েছে ! #১৭ রোহিংগাদের আশ্রয় না দিয়ে উল্টা বাংলাদেশে ঠেলে দিচ্ছে , বার্মাতে ঠেলে না দিয়ে #১৮ ভারতীয় বাঙালি মুসলিমদের আসাম ও কলকাতা থেকে খেদিয়ে বাংলাদেশে ঠেলে দিচ্ছে #১৯ বাণিজ্য ঘাটতি প্রতি বছর রেকর্ড ভেঙ্গে ভেঙ্গে অতিক্রম করেছে ! বছরে ভারত সব মিলিয়ে $১৪-১৫ বিলিয়ন ডলার বেবসা ও আয় করে , বিনিময় বাংলাদেশকে $৪০০ মিলিয়নে আটকিয়ে রেখছে ! বাংলাদেশে থেকে ভারত দ্বিতীয় বৃহত্তম রেমিটেন্স আয় করে ! কত যে বেবসা করে দেখেন ! তাই ভারতের ন্যায্য পাওনা ছিল একটা শিক্ষা পাবার ! মুক্তিকামী কাশ্মীর স্বাধীন হউক !! ৭০ বছর ধরে কাশ্মীরি মানুষেকে , নিরিহ জনগণকে হত্যা করে আসছে এই সাম্রাজ্যবাদ মুসলিম-ঘৃনাকারী ভাৰত ! তাই বোঝায় যায় বাংলাদেশকে প্রকৃত হুমকি ও শত্রু কে !
    Total Reply(0) Reply
  • Md Robi Hossain ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    শুধু উদ্দেগেই শেষ!মুসলিম কোন রাষ্ট্র হলে এতদিনে সন্ত্রাসের তকমা লাগিয়ে পুরা দেশটাকে শান্তি বাহিনী দিয়ে শেষ করে দিতো।
    Total Reply(0) Reply
  • Nurul Islam Nurul Islam ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৫ এএম says : 0
    যাক্ দিদির চোখে পড়লো ভারতে যে মুসলিমদের উপর নির্যাতন চলছে এতোদিন তো কারো চোখে পড়েনি কতো লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মানুষ মারলো ইন্ডিয়া
    Total Reply(0) Reply
  • Nurul Islam ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৫ এএম says : 0
    ভারতীয় কাহিনীর ভাষায় বুঝা যাচ্ছে... কাশ্মীর আরেক রাষ্ট্র...!!? তাহলে ওদেরকে দাবিয়ে রেখে লাভ কি? হিতে বিপরীত হবে আরকি...
    Total Reply(0) Reply
  • Hafiz Enamul ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৬ এএম says : 0
    ভারতে কাশ্মীরিদের উপর অকথ্য নির্যাতন চালানো হচ্ছে,নিরীহ কাশ্মীরিদের খুন,ধর্ষন করা হচ্ছে,তাদের সম্পদ লুট করা হচ্ছে৷পেলেট গান মেরে তাদের চোখ অন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে৷ভারতের পত্রিকাগুলো পর্যন্ত কাশ্মীরিদের উপর অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগের বিরোধীতা করছে৷কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর উপর হামলার পর বাংলাদেশের একশ্রেনীর বুদ্ধিজীবি যেভাবে সমালোচনায় মুখর হয়েছেন তাতে অামার অাপত্তি নাই,কিন্তু কথা হলো কাশ্মীরিদের উপর যখন অমানুষিক নির্যাতন করা হয় তখনতো র এর এজেন্ট এই বুদ্ধিজীবিরা প্রতিবাদ করেননা৷অাপনারা যতই নিজেদের বুদ্ধিজীবি,বিশেষজ্ঞ,সুশীল সমাজের প্রতিনিধি বলে মনে করেন না কেন,এদেশের জনগন অাপনাদের বিদেশী গোয়েন্দা সংস্থার টাকায় লালিত পালিত পরজীবি দালাল বলে মনে করে৷অাপনারা কোলকাতায় বৃষ্টি হলে ঢাকায় ছাতা ধরেন৷অাপনাদের বড়ো পরিচয় অাপনারা বিদেশীদের দালাল৷
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মোদি

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
১৩ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ