Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

আরাকান আর্মির কাছে ৫ শহর হারানোর ঝুঁকিতে মিয়ানমার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

২০২০ সালের মধ্যে আরাকান রাজ্যের উত্তরাঞ্চলে পাঁচটি শহর দখলের পরিকল্পনা করার জন্য আরাকান আর্মিকে (এএ) অভিযুক্ত করেছেন রাখাইন রাজ্য পার্লামেন্টের সামরিক প্রতিনিধি মেজর থেত ও মং। স¤প্রতি ওই রাজ্যে এএ’র সামরিক অভিযান পর্যালোচনা করে ওই সিদ্ধান্তে পৌঁছেন তিনি। বুধবার রাখাইন পার্লামেন্টে পেশ করা এক প্রস্তাবে সামরিক প্রতিনিধি আরাকানবাসীর প্রতি সামরিক অভিযানে সমর্থন দেয়ার জন্য আহŸান জানান। তিনি বলেন, সেনাবাহিনী সবসময় আরাকান রাজ্যের জাতি ও ধর্মকে সুরক্ষিত রেখেছে। মুসলিম হামলা থেকে আরাকানবাসীকে সুরক্ষা দিচ্ছে। মেজর মং পার্লামেন্টে বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে পালেতওয়া, কিয়াকতাউ ও মারাক-উতে অভ্যুত্থান ঘটানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। একে ‘২০২০ আরাকন ড্রিম’ বলা হচ্ছে। বুথিডং ও মংডু টাউনশিপের প্রসঙ্গ টেনে তিনি এএ (আরাকান আর্মি) ও আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)-কে সমন্বিতভাবে মাইয়ু অঞ্চলে অভিযান পরিচালনার দায়ে অভিযুক্ত করেন। সেনাবাহিনীর এ ধরনের অভিযোগ বারবার প্রত্যাখ্যান করে আসছে এএ নেতারা। এএ মুখপাত্র উ খিন থুখা সেনা এমপি’র প্রস্তাবকে হাস্যকর হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, আরাকানবাসী সেনাবাহিনীর পাশে নাকি এএ’র পাশে থাকবে তা যাচাইয়ের জন্য আরাকানে গণভোটের আয়োজন করা হোক। তা না করে পার্লামেন্টে বসে আরাকানের জনগণের মন ভেজানোর চেষ্টা বন্ধ করার আহŸান জানান তিনি। মুখপাত্র থুখা বলেন, তারা যদি রাখাইন থেকে চলে যেতে চায় তাহলে গণভোট দিক। তখনই আমরা স্পষ্ট ফলাফল দেখতে পাবো। তিনি আরো বলেন, সেনা এমপি’র প্রস্তাবটি নজিরবিহীন। তিনি পার্লামেন্টে বসে জনগণের সমর্থন চাচ্ছেন। এর মানে হলো উত্তর আরাকানে চলমান যুদ্ধে সেনাবাহিনী হেরে যাচ্ছে। এর অকাট্ট প্রমাণ হলো জনগণের সমর্থন তাদের প্রতি নেই। মঙ্গলবার তিনটি জায়গায় এএ’র হাতে সেনা সদস্য নিহত হওয়ার পর মেজর মংয়ের ওই বিবৃতি প্রকাশ পায়। জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র মারাউক-উ’র কাছে ওইসব সংঘর্ষ হয়। সেনা নিযুক্ত এমপি’র প্রস্তাবটি আরাকান ন্যাশনাল পার্টি (এএনপি) প্রভাবিত পার্লামেন্টে নাকচ হয়ে যায়। এর আগে প্রেসিডেন্ট দফতরের মুখপাত্র উ জাও তায় এএ’র বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীকে সমর্থন প্রদানের জন্য আরাকানবাসীর প্রতি আহŸান জানান। পার্লামেন্টে এএনপি’র এমপি উ পোয়ে সান বলেন, শান্তি সংশ্লিষ্ট প্রস্তাবগুলো আঞ্চলিক পর্যায়ে টেনে আনা উচিত নয়। এটা কেন্দ্রিয় পর্যায় থেকে সামাল দেয়া হচ্ছে। তাই প্রস্তাবটি বাতিল করতে হবে। সেনাবাহিনী ৯ জন এএ যোদ্ধার লাশ ও আরপিজি উদ্ধারের দাবি করছে। তবে নিজেদের হতাহত সম্পর্কে কিছু বলেনি। সাউথ এশিয়ান মনিটর।



 

Show all comments
  • Osman goni ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৩:০৪ এএম says : 0
    Je din gum jege utha matroi sunbo,dhuti bahimir desh bharot benge 5 tukro holo,ar barmar arakan sdhin hoye gelo,
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Mahmud ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
    Tai jeno hoi
    Total Reply(0) Reply
  • Tawhidul Islam ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
    দোয়া করি, তাই যেন হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Sajid Selim ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৩২ এএম says : 0
    মায়ানমার ভেঙ্গে টুকরো টুকরো হবে জালিম শাসকদের জুলুমের প্রতিশোধে
    Total Reply(0) Reply
  • Remo Mimo ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৩২ এএম says : 0
    সত্যি হওয়ার জন্য আশায় আছি
    Total Reply(0) Reply
  • Babla Sheak Babla ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    আরাকান আর্মি বা আরসা কে তুরস্ক,ইরান,পাকিস্তান,কাতার আর বাংলাদেশের অস্র দিয়ে সাহায়তা করা উচিত মিয়ানমারের জুলুম নির্যাতন থেকে বাঁচতে তাদের আর রোহিঙ্গা দের আলাদা স্বাধীন রাষ্ট্রের দরকার সাথে আমেরিকার মত ইবলিস শয়তান যদি আরাকান আর্মিকে কিছু সহায়তা করতে পারে তাহলে খেলা আরো জমবে মজা
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Sikder ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    Go ahead.
    Total Reply(0) Reply
  • Johirul Islam ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Hussain Suhel ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    সুন্দর এইটাই চাই
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার


আরও
আরও পড়ুন