Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

ধুলা-দূষণে নাকাল মাগুরার বাস টার্মিনাল এলাকার মানুষ

| প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে
ধুলা দূষনে মাগুরা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকার মানুষের জীবনে বিপর্যয় নেমে এসেছে । ধুলায় এলাকা ধুলায়িত হলেও নেই পৌর কতৃপক্ষের কোন মাথাব্যাথা। আর ধুলায় যে দূষন এর সৃষ্টি হচ্ছে তার থেকে ধুলাজনীত রোগ ব্যাধির প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রচন্ড ধুলা ফুসফুসে প্রবেশ করে সর্দি শ্বাস- প্রশ্বাসের মাধ্যমে রোগ জীবানু মিশ্রিত ধুলা ফুসফুসে প্রবেশ কওে কাশি, ফুসফুস ক্যান্সার, ব্রনকাইটিস, হাপনী, যক্ষা এলার্জি, চর্মরোগ, মাথাব্যাথা, চোক জ্বালা করাসহ নানান রোগে অক্রান্ত হচ্ছে এলাকার মানুষ। ধুলায় আশেপাশের বাসাবাড়িতে বসবাস করা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। বাড়ি ঘরের আসবাবপত্রসহ যাবতীয় মালামাল ধুলায় আচ্ছন্ন হয়ে ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। মাগুরা পৌর সভার পানি দিয়ে ধুলা নিবারনের গাড়ি থাকলেও তা এক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কাছে ভাড়া দেয়া হয়েছে অথচ প্রতিদিন দুবার পানি দিয়ে ভিজিয়ে দিলে এ সমস্যার সমাধান পায় এলাকাবাসী। এছাড়া প্রচন্ড ধুলায় আশেপাশের ফলাদী বৃক্ষ আচ্ছন্ন হয়ে পড়ায় পরাগায়ন এ বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। আশেপাশের গাছ গুলোর দিকে তাকালে কেবল ধুলাই দেখা যায়। কোন গাছের রং আর সবুজ নেই। পরিবেশ নিয়ে অনেক প্রতিষ্টান বড়বড় কথা বললেও এখানে তারা নিরব। তাদেও কোন পদক্ষেপ নেই এ ক্ষেত্রে। ধুলা দুষনের নানান উৎসের মধ্যে মাগুরা বাস টার্মিনাালের কার্পেটিং অনেক আগে উঠে যাওয়া, ইট ভাটা থেকে প্রতিদিন শতশত ট্রাক বালী , মাটি , ইট পরিবহণ ও মাগুরায় সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ এর ফলে এ ধূলার মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতে ধুলা দূষনের কারণে শিশুদেও শ্বাসকষ্টেটর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। পরিবেেেশর মারাত্মক হুমকি দেখা দিয়েছে। দুলায় মাগুরা পৌর বাস টার্মিনাল এবং রাস্তার পার্শ্ববর্তী দোকান ঘর নিয়ে বিপাকি পড়েছে ব্যবসায়ীরা। প্রতি বছর বাস টার্মিনাল এর নিলঅম ুবুক্র করে পৌর সভা ৩০ থেকে ৪০ লাখ টাকা উপার্জন করলেও এখানে কোন অর্থ ব্যয় বা উন্নয়নে কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় দিনদিন চরম অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে পৌর মেয়র খুরশীদ হায়দার টুটুল জানান। বিষয়টি তার জানা ছিলনা। অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ অবস্থায় এলঅকার মানুষ ধুলায় অস্থির হয়ে এর থেকে কোন রক্ষা পাচ্ছেনা। এলাকাবাসী এ সমস্যার থেকে অব্যাহতি পেতে পৌর মেয়র এর জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন