Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

মাছ-গোশত ডিমের দাম চড়া

ঢাকা-চট্টগ্রামের কাঁচাবাজার

| প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : মাছ, গোশত ও ডিমের দাম বাড়তি। সরবরাহ বেশি থাকায় কিছুটা নাগালে সবজির দাম। পেঁয়াজ, রসুনের দামও কিছুটা বেড়েছে। চালের দাম এখনও ঊর্ধ্বমুখী। টানা তিনদিনের ছুটিতে পিকনিক, বিয়ে-শাদিসহ নানা সামাজিক অনুষ্ঠানের হিড়িক পড়েছে। আর তাতেই বেড়ে গেছে মুরগি, ও গরু-খাসির গোশতের দাম। বেড়েছে মাছের দামও। বাজার দর চড়া হওয়ায় স্বল্প আয়ের লোকজন পড়েছেন বিপাকে। গতকাল শুক্রবার নগরীর কয়েকটি বাজার ঘুরে এমন চিত্র পাওয়া গেছে।
বাজারে সব ধরনের মুরগির দাম বেড়েছে। ফার্মের মুরগি বাজার ভেদে ১৩০-১৪০ টাকা, সোনালিকা ২৫০-২৬০ টাকা এবং দেশী মুরগি ৪০০-৪২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। হাড়ছাড়া গরুর গোশত ৬০০-৬৫০ টাকা, হাড়সহ ৫০০-৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে প্রচুর হাঁস এবং টার্কি মুরগি বিক্রি হচ্ছে। হাঁস প্রতিটি ৩০০-৩৫০ টাকা, আর টার্কি মুরগি কেজি ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ফার্মের মুরগির ডিম প্রতি ডজন ১০০-১১০ টাকা এবং দেশি মুরগির ডিম ১৬০ টাকা, এবং হাঁসের ডিম ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, নানা অনুষ্ঠানের কারণে গোশতের চাহিদা বেশি। এই কারণে গোশতের দামও বাড়তি।
সামাজিক অনুষ্ঠানের প্রভাব মাছের বাজারেও। বাজারগুলোতে মাছের সরবরাহ প্রচুর। সামুদ্রিক মাছের পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা পুকুর, দীঘির মাছের ও ছড়াছড়ি। সরবরাহ পর্যাপ্ত হলেও দাম চড়া। বিশেষ করে চিংড়ি, ইলিশ, রুপচাদাসহ বড় মাছের দাম সাধারণের নাগালের বাইরে। ইলিশ আকারভেদে ৮০০-১,০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। রুপচাঁদা সর্বনিম্ন ৭০০-১,০০০ টাকা, পোয়া মাছ ৩৫০-৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। রুই ২৫০-২৮০ টাকা, লইট্টা ১৫০-১৭০ টাকা, শিং ৫০০-৬০০ টাকা, দেশি মাগুর ৭৫০ টাকা, বড় চিংড়ি ৯৫০ টাকা, মাঝারি সাইজের চিংড়ি ৭০০ টাকা, কাতল মাছ ৩৫০-৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৫০-১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
বাজারে এখনও শীতকালীন সবজির সরবরাহ প্রচুর। বাজারে এসেছে গ্রীষ্মকালীন সবজিও। আর এ কারণে সবজির দাম নাগালের মধ্যে। ফুলকপি ১৫-২০ টাকা, বাঁধাকপি ১০-১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মুলা ১০-১৫ টাকা, শিম ২৫-৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ২৫-৩০ টাকা, আলু ১০-১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বেগুন ২৫ টাকা, কাঁচা পেঁপে ২০ টাকা, টমেটো প্রতি কেজি ১৫-২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। লাউ ১৫-২০ টাকা, গাজর ১৫-২০ টাকা, শিমের বিচি প্রতি কেজি ৫০-৬০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। তবে বাজারে গ্রীস্মকালীন সবজির দাম কিছুটা চড়া। বরবটি প্রতি কেজি ৬০-৭০ টাকা, কচুর ছড়া ৬০ টাকা, তিতা করলা ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৮০-৯০ টাকা, ঝিঙ্গে ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কাঁচা মরিচ কেজি ২০-২৫ টাকা, শসা ও ক্ষিরা ১৫-২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পেঁয়াজ, রসুনের দাম কিছুটা বেড়েছে। পেঁয়াজ ২০-২৫ টাকা, রসুন ৬০-৭০ টাকা, আদা ৮০-১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাঁচাবাজার


আরও
আরও পড়ুন