Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ছেলের শরীরের এক টুকরা নিয়েই বাঁচতে চান মা

| প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : চকবাজারের চুড়িহাট্টার ভয়াবহ অগ্নিকাÐের ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রোহান। গত বৃহস্পতিবার থেকেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) মর্গের সামনে কেঁদে কেঁদে ঘুরে বেড়াচ্ছেন রোহানের মা-বাবা। মর্গের সামনে বার বার জ্ঞান হারাচ্ছেন তারা। ভাঙা হৃদয় নিয়ে অনবরত চোখ দিয়ে ঝরছে পুত্র হারানো শোকের অশ্রæ।
মর্গের সামনে এক পর্যায়ে অনেকটা অসহায় আর বিরক্তিভাব নিয়ে রোহানের মা বলেন, এখনও অয় নাই। অর লাশ লাগব না। শরীরের একটা টুকরা দেন। আমি ওইডা নিয়াই বাচুম। রোহানের শরীর এতটাই পুড়ে গেছে যে, তার লাশ শনাক্ত করা যাচ্ছে না। তাই রোহানের লাশ শনাক্ত করতে গতকাল শুক্রবার তার মাকে দিতে হয়েছে ডিএনএ নমুনা।
কিছুক্ষণ পর পর অজ্ঞান হয়ে পড়া এই মা কাঁদতে কাঁদতে বলছিলেন, আমার ছেলেডারে আইনা দাও। আমি জানি অয় (সে বেঁচে) নাই। অর লাশ লাগব না। শরীরের একটা টুকরা দেন। আমি ওইডা নিয়াই বাচুম।
সিআইডির সহকারী ডিএনএ অ্যানালিস্ট নুসরাত ইয়াসমিন গণামাধ্যমকে জানান, ৪৫ জনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। বাকি ২২ জনের লাশ শনাক্ত করতে বেশ সময় লাগতে পারে। তিনি বলেন, যারা লাশের সন্ধানের জন্য এসেছেন তাদের বাবা-মা, স্ত্রী ও সন্তানদের রক্তের নমুনা রাখা হবে। যদি তারা না আসেন, তা হলে ভাইবোনদের নমুনা রাখা হবে। তবে পুরো বিষয়টির জন্য সময় লাগবে ৭ থেকে ২১ দিন।
চকবাজারের অগ্নিকাÐে নিহত রোহান বোনের বিয়ের কেনাকাটা করতে চার বন্ধুকে নিয়ে বের হয়েছিলেন। আরও কিছু কাজও ছিল তার। সব শেষ করে বাসায় ফেরার কথা ছিল। কিন্তু গত বুধবার রাতে পুরান ঢাকার চকবাজারের অগ্নিকাÐ সেই উৎসব থেকে নাই হয়ে গেলেন রোহান। থামিয়ে দিল তার সব আনন্দ ও উৎসব। আর কোনো দিন ফিরে আসবেন না রাজধানীর নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী রোহান।
রোহানের সঙ্গে ছিলেন উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের ‘এ’ লেভেলের ছাত্র আরাফাত। আগুনের লেলিহান শিখা গ্রাস করলে লাশ হয়েছেন তিনিও। কাজী আলাউদ্দিন রোডসংলগ্ন মসজিদ এলাকার বাসিন্দা আরাফাত। রোহানের চাচাতো ভাই মমিন জানান, রোহানের লাশ মর্গে আছে বলে নিশ্চিত হলেও কেউ শনাক্ত করতে পারছি না। অপর একটি মোটরসাইকেলে রোহানের সঙ্গে ছিলেন তার ভাগ্নে লাবিব, রমিজ ও সোহাগ।
লাবিবের মাথার সামান্য অংশ পুড়লেও তিনি প্রাণে বেঁচে গেছেন। রোহানের নানা ইউনুস খান জানান, রোহানের ছোট বোনের বিয়ে আগামী মার্চে। আর তাই বন্ধুদের নিয়ে সে খুব ব্যস্ততার ভেতর ছিল। গত বুধবার সে কমিউনিটি সেন্টার ভাড়া ও ডেকোরেশনের ব্যপারে কথা বলতে গিয়েছিল। কিছু কেনাকাটার কাজও বাকি ছিল, তখন এ দুর্ঘটনা ঘটে। চকবাজারের চুড়িহাট্টায় একটি আবাসিক ভবনে ভয়াবহ এ অগ্নিকাÐের সময় রাস্তায় যানজটে আটকে থাকায় অনেকে প্রাণে রক্ষা পায়নি। আগুনের কবল থেকে পালিয়ে বাঁচার আগেই মৃত্যু তাদের গ্রাস করে নিয়েছে।
উল্লেখ্য, রাজধানীর চকবাজার এলাকার নন্দকুমার দত্ত সড়কের চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পেছনের ওয়াহিদ ম্যানশন ভবনে গত বুধবার রাতে আগুন লাগে। এ ঘটনায় ৬৭ জন নিহত হন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন