Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

নরসিংদী সরকারি কলেজের প্রিন্সিপাল লাঞ্ছিত

স্টাফ রিপোর্টার, নরসিংদী থেকে | প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

নিজ অফিস কক্ষেই লাঞ্ছিত হয়েছেন নরসিংদী সরকারি কলেজের প্রিন্সিপাল প্রফেসর ড. আনোয়ারুল ইসলাম। কলেজের বেসরকারি তহবিলের টাকা নিয়ে দ্বণ্দ্বের জের ধরে গতকাল শনিবার সকালে মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা প্রিন্সিপালের কক্ষে ঢুকে তাকে মারধোর করে তার ওপর মলমূত্র ঢেলে চলে যায়। এর আগে তারা কলেজের ভিতরে ঢুকে কলেজের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে কলেজের অভ্যন্তরস্থ সিসি ক্যামেরাগুলো অচল করে দেয়।
কলেজ শিক্ষক সূত্রে জানা যায়, মাস ছয়েক আগে কলেজের একটি বেসরকারি তহবিল থেকে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করে সরকার সমর্থক একটি ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কিন্তু প্রিন্সিপাল ড. আনোয়ারুল ইসলাম এই অন্যায় দাবি পূরণ করতে অপারগতা প্রকাশ করে। এতে ক্ষিপ্ত ওই ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে কলেজের বেসরকারি তহবিলের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তোলে। এই অভিযোগ উত্থাপন করে তারা প্রিন্সিপাল ড. আনোয়ারুল ইসলামকে কলেজে আসতে নিষেধ করে। তারা তাকে বদলি হয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। কলেজে আসলে কোন ঘটনা ঘটলে তার জন্য সংগঠন কোনো দায়িত্ব বহন করবে না বলে জানিয়ে দেয়। কলেজ কর্তৃপক্ষ বিষয়টি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে জানানোর পর তারা তখন কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেনি।
কলেজের প্রিন্সিপাল ড. আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ছাত্রনেতাদের বাধার মুখে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলেন। এরই প্রেক্ষিতে গত ছয়মাস যাবত তিনি মন্ত্রণালয়কে অবহিত করে ঢাকায় থেকে কলেজের কার্যক্রম পরিচালনা করছিলেন। গত ২১ ফেব্রুয়ারি কলেজের শহীদ মিনারে স্থানীয় সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম হীরুর উপস্থিতিতে তিনি শহীদদের পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরই মধ্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য তাকে কলেজে এসে কলেজ পরিচালনার নির্দেশনা দিয়েছেন। সে সূত্রেই তিনি গতকাল শনিবার কলেজে আসেন। এর আগে সকালে সরকারি ছাত্র সংগঠনের একজন নেতা প্রিন্সিপালের গাড়ির ড্রাইভারকে ফোন করে জানান, তিনি যেন কলেজে না আসেন। তিনি এই হুমকি উপেক্ষা করে কলেজে আসেন। এরপরই মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা বিভিন্ন মুখোশ পরে কলেজের ভিতরে ঢুকে প্রথমে বিদ্যুতের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এরপর তারা প্রিন্সিপালের কক্ষে ঢুকে তাকে মারধোর করে তারপর বালতি ভর্তি মলমূত্র ঢেলে দিয়ে চলে যায়। এই ঘটনা নিয়ে কলেজের শিক্ষকদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নরসিংদী সরকারি কলেজের দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, দুর্বৃত্তরা শুধু প্রিন্সিপালকেই অপমান করেনি, অপমান করেছে সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের। শিক্ষককে অসম্মানের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক ও অপমানজনক উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ঘটনার বিচার না হলে জাতি ক্ষতিগ্রস্থ হবে।
নরসিংদী সরকারী কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি শিবলি আহাম্মেদ বলেন, প্রিন্সিপাল নিজের অনিয়িম ও দুর্নীতিকে আড়াল করতে ছাত্রনেতাদের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এরই প্রেক্ষিতে বর্তমান ও সাবেক ছাত্র নেতারা প্রিন্সিপালের কাছে এর কারণ জানতে চাইলে তিনি নিজের অনিয়মের কথা স্বীকার করেন। এরই প্রেক্ষিতে ছাত্র নেতারা সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ওনাকে কলেজ ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে বলেন। কিন্তু সেই ঘটনার সাথে আজকের ঘটনার কোন যোগসূত্র নেই। এই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচার চাই।
নরসিংদী সদর মডেল থানা ওসি আপারেশন আতাউর রহমান বলেন, প্রিন্সিপালের ওপর হামলার ঘটনায় ভিডিও ফুটেজসহ সকল ধরনের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে সকল কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন