Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

বছরে স্বাস্থ্যক্ষতি ৩০ হাজার ৫৭০ কোটি টাকা

তামাকের ক্ষতি নিয়ে গবেষণার তথ্য

স্টাফ রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২৩ এএম

তামাকজনিত ব্যাধি ও অকালমৃত্যুর কারণে ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক ক্ষতির মুখে বাংলাদেশ। শুধু তামাক ব্যবহারজনিত আর্থিক ক্ষতি বছরে ৩০ হাজার ৫৭০ কোটি টাকা বা ৩ দশমিক ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জাতীয় আয়ের (জিডিপি’র) ১ দশমিক ৪ শতাংশ। আর ২০১৮ সালে তামাকজনিত রোগে প্রায় ১ লাখ ২৬ হাজার মানুষের অকাল মৃত্যু হয়েছে, যা দেশের মোট মৃত্যুর ১৩ দশমিক ৫ শতাংশ। গতকাল ঢাকা ক্লাবে অনুষ্ঠিত তামাকের অর্থনৈতিক ক্ষতি বিষয়ক গবেষণার ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। গবেষণায় আরো বলা হয়, যারা তামাক ব্যবহার করেন না, তাদের চাইতে তামাক ব্যবহারকারীদের মধ্যে তামাকজনিত প্রধান ৭টি রোগের একটিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৫৭ শতাংশ বেশি এবং তামাকজনিত ক্যান্সারের ক্ষেত্রে ঝুঁকি ১০৯ শতাংশ বেশি। গবেষণায় তামাক চাষের পরিবেশ ও স্বাস্থ্যগত ক্ষতি, তামাক চাষে দূলর্ভ কৃষিজমি ব্যবহারের ফলে খাদ্য নিরাপত্তার হুমকি, অগ্নিকান্ডের আশংকা ও ক্ষতি, পরিবেশ দূষণ এবং অন্যান্য ক্ষতি পরিমাপ করা হয়নি। তামাকের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় শিশুরা। দেশের অর্ধেকের বেশি অর্থাৎ ২ কোটি শিশু পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হচ্ছে।

স্যামসন এইচ চৌধুরী হলে দিনব্যাপী গবেষণার ফল উপস্থাপনের উদ্বোধন পর্ব, কারিগরি অধিবেশন, গ্রুপ ডিসকাশনসহ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটি, আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটি, ক্যান্সার রিসার্চ ইউকে ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ যৌথভাবে ‘ইকোনমিক কস্ট অব টোব্যাকো ইউস ইন বাংলাদেশ : এ হেলথ্ কস্ট এপ্রোচ’ এ গবেষণা পরিচালনা করে। তামাক গ্রহনের কারণে অসংক্রামক সাতটি রোগের অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্য ঝুঁকি বিষয়ক একটি গবেষণাকর্মে দশ হাজার বাড়িতে সর্বোচ্চ মান বজায় রেখে তথ্য সংগ্রহ করা হয়। বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটি গবেষণাটির নেতৃত্ব দিয়েছে।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান। উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ব্রি. জে. (অব.) আবদুল মালিক, স্বাস্থ্য সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ড. নাসিরউদ্দিন আহমেদ, ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা. এম এ হাই, ভাইটাল স্ট্রাটেজিস এর হেড অব প্রোগ্রামস মো. শফিকুল ইসলাম, আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির পরিচালক প্রফেসর ড. নিগার নারগিস ও গ্রেগ হাইফলে, ক্যান্সার রিসারর্চ-ইউকে’র প্রিসিলা টিগা, জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের সমন্বয়কারী (যুগ্মসচিব) মো. খলিলুর রহমান প্রমুখ।

উদ্বোধনীতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির সভাপতি প্রফেসর মোল্লা ওবাদুল্লাহ বাকী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন গবেষণা প্রকল্পের পরিচালক ও বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির যুগ্ম-মহাসচিব প্রফেসর ডা. গোলাম মহিউদ্দিন ফারুক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ