Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

৩ দিনের ধর্মঘটসহ বিভিন্ন কর্মসূচি শিক্ষকদের

নরসিংদী সরকারি কলেজ প্রিন্সিপালের ওপর হামলা

সরকার আদম আলী, নরসিংদী থেকে : | প্রকাশের সময় : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

নরসিংদী সরকারি কলেজের প্রিন্সিপাল প্রফেসর ড. আনোয়ারুল ইসলামের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় নরসিংদীর রাজনৈতিক ও শিক্ষাঙ্গনসহ সর্ব মহলে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। হামলার প্রতিবাদে কলেজের শিক্ষক পরিষদ ও বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি ৩ দিনের প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

এর মধ্যে রয়েছে ৩ দিনব্যাপী কালো ব্যাজ ধারণ, পাবলিক পরীক্ষা ব্যতীত কলেজের সকল কার্যক্রম স্থগিত করে ধর্মঘট পালন, স্মারকলিপি প্রদান, মামলা অনুযায়ী দুর্বৃত্তদেরকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা। এ ছাড়া তিন দিনের মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেফতার করা না হলে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি বৃহত্তর কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষকরা। ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী প্রথম দিন রোববার সকালে কলেজের শিক্ষক কর্মচারীরা মাথায় কালো কাপড় বেঁধে এবং বুকে কালো ব্যাজ ধারণ করে শহীদ মিনারের সামনের অবস্থান করেন। বিকেল তিনটা পর্যন্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা অবস্থান ধর্মঘটে অংশ নিয়ে প্রিন্সিপাল ড. আনোয়ারুল ইসলামের উপর হামলার প্রতিবাদ জানায়। এসময় শিক্ষক পরিষদ ও বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির নেতৃবৃন্দ তিন দিনের মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।
এদিকে নরসিংদী সরকারি কলেজের প্রিন্সিপালের উপর হামলার ঘটনায় নরসিংদীর সর্বস্তরের মানুষের মধ্যেই চাপা ক্ষোভ, অসন্তোষ ও ঘৃণার সৃষ্টি হয়েছে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত হচ্ছে নানা ধরনের প্রতিক্রিয়া। রোববার সকালে ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে মিছিল করেছে নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক জিএস এস এম কাইয়ুম এবং নরসিংদী পৌরসভার কাউন্সিলর রিপন সরকার। মিছিলে তারা হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানান। প্রিন্সিপাল ওপর হামলার বিচার দাবি করে ক্যাম্পাসে মিছিল করে নরসিংদী সরকারি কলেজ ছাত্রদল ও ছাত্রলীগ।

এ ঘটনায় গত শনিবারই কলেজের প্রিন্সিপাল ড. আনোয়ারুল ইসলাম বাদী হয়ে নরসিংদী সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাত নামা ৫/৬ ব্যক্তিকে। কলেজের সিসি ক্যামেরায় প্রাপ্ত ছবি অনুযায়ী দেখা গেছে যে, অজ্ঞাতনামা ৫/৭ জন ব্যক্তি একটি অটো নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। তখন তাদের মুখে কোন মুখোশ ছিল না। ক্যাম্পাসে ঢুকে তারা মুখোশ পড়েছে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ হামলাকারী সকলকেই চেনা গেছে বলে জানা গেছে। নরসিংদী থানা পুলিশ সিসি ক্যামেরা থেকে ফুটেজগুলো সংগ্রহ করেছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে পুলিশ জানিয়েছে হামলাকারীদের গ্রেফতার করার জন্য পুলিশি অভিযান চালানো হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় অনেক শিক্ষাবিদ, আইনজীবী, সাংবাদিক ঘটনাটিকে একটি ন্যক্কারজনক ঘটনা হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তারা বলেছেন এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার নিন্দা জানাবার ভাষা তাদের নেই। শুধু এটুকু বলা যায়, একজন সরকারি কলেজের প্রিন্সিপালের উপর এ ধরনের বর্বর হামলা একটি জাতির জাতীয় পরিচয়ের ওপর কালি লেপন করে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ