Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূলে জলদস্যুদের তান্ডবঃ ১৪ ট্রলারসহ ৫৭ মাঝিমাল্লা অপহরণ

বিশেষ সংবাদদাতা কক্সবাজার | প্রকাশের সময় : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১১:০০ এএম

বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূলে গতকাল একদিনেই ১৪টি মাছধরা ট্রলারসহ ৫৭ মাঝিমাল্লাকে অপহরণ করেছে জলদস্যুরা। 

জানাযায় রোববার সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত সময়ে কক্সবাজারের পাটুয়ারটেক থেকে সেন্টমার্টিন পর্যন্ত অঞ্চলের গভীর বঙ্গোপসাগরে প্রায় ১শ কি.মি দীর্ঘ এলাকাজুড়ে চলে এই জলদস্যুতা।

আগেরদিন শনিবারও বঙ্গোপসাগরের একই অঞ্চলে প্রায় ৩০টি মাছধরা ট্রলার মাঝিমাল্লাসহ অপহরণের শিকার হয়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সাগরে মাছধরা বন্ধ করে সকল ট্রলার কূলে ফিরে আসছে।
এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আজ সোমবার সকালে ট্রলার মালিকদের জরুরী বৈঠক ডাকা হয়েছে।
জেলা ফিশিং ট্রলার মালিক সমিতি সূত্র জানিয়েছে, রোববার মুক্তিপণ আদায়ের জন্য জলদস্যুদের হাতে আটক ট্রলারগুলোর মধ্যে ৮টি কক্সবাজারের, ৪টি চট্টগ্রামের ও ২টি বরগুণার পাথরঘাটা এলাকার।

এরমধ্যে কক্সবাজারের আবু সোলতান নাগু কোম্পানীর মালিকানাধীন এফবি ছেনুয়ারা ও এফবি ভাই ভাই নামের ২টি ফিশিং বোটে ৪ জন করে মোট ৮ জন মাঝিমাল্লা রয়েছে।
নূনিয়াছড়ার মোজাম্মেল কোম্পানীর এফবি মায়ের দোয়ার ৩ মাঝিমাল্লা, একই এলাকার সোহেলের মালিকানাধীন বোটের ৪ জন মাঝিমাল্লা, নতুন বাহারছড়ার ওসমান গনি টুলুর মালিকানাধীন এফবি নিশান-১ ও ২ ফিশিং বোট দুটির ১৮ জন মাঝিমাল্লাকে অপহরণ করা হয়েছে।

এছাড়া কক্সবাজার শহরের এন্ডারসন রোডের কাইয়ূম সওদাগরের মালিকানাধীন এফবি রিফাত ও এফবি রফিকুল হাসান নামের ২টি ফিশিং বোট, ৩ জন করে ৬ জন মাঝিমাল্লাসহ অপহরণের শিকার হয়।

একই সময়ে বরগুনা পাথরঘাটা এলাকার এফবি ইদ্রিস ও এফবি জলপুরী নামের দুটি ট্রলারও ৩ জন করে মাঝিমাল্লা অপহরণ করা হয়।
রোববার একই এলাকায় এফবি কিংশ ফিশার-১ ও ২ নামের ২১০ অশ্বশক্তি সম্পন্ন দুটি ট্রলার এবং চট্টগ্রাম এলাকারও ৪টি মাছধরার ট্রলারসহ মোট ১২জন মাঝিমাল্লা অপহরণের শিকার হয়েছে।

বর্তমানে জলদস্যুরা কয়েকটি শক্তিশালী ট্রলার দুটি ব্যবহার করে সাগরে ফিশিং ট্রলারসহ মাঝিমাল্লাদের জিম্মি করছে বলে জানায় ট্রলার মালিক সমিতি সূত্র।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ