Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

শহীদ সন্তানের জন্য গর্বিত ফিলিস্তিনি মা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৪:২৭ পিএম

ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর তিনজন অফিসারকে ছুরিকাঘাত করে গুরুতরভাবে আহত কারী সাইদ মুহাম্মদ আলীর মাতা তার সন্তানের এমন বিরত্বে গর্বিত বোধ করেন করেন। সে ইসরাইলের তিনজন হানাদারের উপর চুরি দিয়ে আক্রমণ করে তাদেরকে গুরুতর আহত করার পর হানাদারদের গুলিতে নিজে ঘটনাস্থলেই নিহত হন।
শহীদ সাইদ মুহাম্মদ আলী নামের ১৯ বছর বয়সী এই সাহসী ফিলিস্তিনির মাতা তার সন্তানের এমন কাজকে ‘বীরোচিত’ কর্ম বলে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি কিভাবে জেরুজালেম শহরের দামাস্কাস গেটের নিকটে ইসরাইলি হানাদারদের উপর হামলা চালান সে সম্পর্কে বর্ণনা করে তার মাতা আল-আকসা টিভিকে সাক্ষাৎকার দেন। সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘সে ছিল সাহসী একজন যুবক। হানাদারদের জন্য সে একজন কসাই এবং একই সাথে সে ছিল সাহসী সিংহ। আপনি আক্রমণের ভিডিও চিত্রে দেখবেন সে কিভাবে চুরি চালনা করেছে এবং সে জানতো কিভাবে হানাদারদের হত্যা করতে হয়।’ তিনি তার সন্তানের এমন কর্মকে একই সাথে ‘বীরত্বপূর্ণ’ বলেও আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, ‘জেরুজালেমের ইসরাইলি পুলিশদের আর্তনাদ শুনে আপনি তাদেরকে পাগল ভাববেন। তিনি তার সন্তানের দিকে ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, তুমি ইসলামের একজন গর্বিত সৈনিক কারণ মিলিয়নের অধিক মুসলিম তার সাক্ষ্য দিচ্ছে। তোমার চুরি এসব অন্ধ ব্যক্তিদেরকে সব দিক থেকেই আক্রমণ করেছে। আমাদের মাতৃভূমি আমাদের জন্য অনেক দামী এবং তা একে রক্ষা করার জন্য আমরা আমাদের জীবন উৎসর্গ করবো।’ সূত্র: জেপোস্ট ডট কম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফিলিস্তিন

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ