Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

৮০ ভাগ প্রতিষ্ঠান ৫জি নিতে প্রস্তুত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৭:৩৫ পিএম

প্রায় ৮০ ভাগ প্রতিষ্ঠান ৫জি’র সুবিধা নিতে প্রস্তুত। ২০২১ সালের মধ্যে প্রায় ৮০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান স্মার্ট ইকোসিস্টেম, আইওটি এবং নতুন রাজস্ব সুবিধা পাওয়ার লক্ষ্যে প্রাথমিক কানিক্টিভিটি সলুশনের ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত বলে জানিয়েছে ওরাকল গবেষণা। প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ওরাকলের গবেষণায় দেখা গেছে, বর্তমানে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানই (৯৭ শতাংশ) যে শুধুমাত্র ফাইভ জি’র সুবিধা সম্পর্কে জানে তাই নয়, বরং ইতিমধ্যে ৯৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠান কিভাবে তারবিহীন এ প্রযুক্তির সুবিধা দিয়ে তাদের ব্যবসার আইওটি ও স্মার্ট ইকোসিস্টেম আনতে পারে সে বিষয়ে কৌশলগতভাবে পরিকল্পনা করছে। এছাড়া ফাইভ জি নিয়ে বেশির ভাগ আলোচনা গ্রাহকদের ব্যবহৃত বিভিন্ন ডিভাইসকেন্দ্রিক হলেও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো প্রযুক্তি গ্রাহকদের কতখানি সেবা দিতে প্রস্তুত সেদিকে নজর দেয়।
২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে ওরাকল “৫জি স্মার্ট ইকোসিস্টেমস আর ট্রান্সফরমিং দ্য এন্টারপ্রাইজ- আর ইউ রেডি?” শীর্ষক একটি গবেষণা করে। এতে বিশ্বের মাঝারি এবং বড় প্রতিষ্ঠানের ২৬৫ জন আইটি এবং ব্যবসায়িক সিদ্ধান্ত গ্রহনকারীর উপর জরিপ করা হয়। জরিপে প্রতিষ্ঠানগুলো ফাইভ জি সম্পর্কে কি ভাবছে এবং সামনে এর কি গুরুত্ব রয়েছে সেটি দেখার চেষ্টা করা হয়।

ওরাকলের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও জেনারেল ম্যানেজার ডগ সুরিয়ানো বলেন, প্রতিষ্ঠানগুলো স্পষ্টতই ফাইভ জি’তে বিনিয়োগ করতে চায়। এতে সফল হতে হলে আইটি এবং ব্যবসাগুলোকে ফাইভ জি কে শুধুমাত্র আরেকটি “জি” হিসাবে না ধরে বরং এটিকে স্মার্ট ইকো-সিস্টেম চালু করার হাতিয়ার হিসাবে গণ্য করতে হবে, যা আমরা বরাবরই বলে এসেছি।” তিনি আরো বলেন, “প্রতিষ্ঠানগুলোর কিভাবে ব্যবসায়িক বিবর্তনে ফাইভ জি’র ক্ষমতাকে ব্যবহার করতে পারে এবং বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ফাইভ জি সাহায্য করবে সেই বিষয়ে আলোচনা করা উচিত।”

পরিচালিত জরিপে অংশগ্রহণকারীরা জানান, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোতে ফাইভ জি’র প্রভাব রয়েছে যার মধ্যে ৮৬ শতাংশ প্রভাব কর্মীদের উৎপাদন বৃদ্ধিতে, ৮৪ শতাংশ খরচ কমাতে, ৮৩ শতাংশ গ্রাহকের অভিজ্ঞতা বৃদ্ধিতে এবং ৮৩ শতাংশ কৌশল বৃদ্ধিতে কাজ করে।

প্রতিষ্ঠানগুলো ফাইভ জির ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়গুলোর উপর গুরুত্ব দেয় সেগুলো হলো আনলকিং আইওটি প্রোটেনশিয়ালিটি, নিউজ সার্ভিস মনিটাইজিং, প্রতিষ্ঠানের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা অর্জণ এবং নিরাপত্তা।

ফাইভ জির কার্যকর ভূমিকার জন্য ওরাকল লাইফ স্ট্রিমিং, ইন্ডাস্ট্রিয়াল অটোমেশন, স্মার্ট হোমস অ্যান্ড বিল্ডিং, কানেক্টেড ভ্যাহিকলস, ইর্মাসিভ গেমিং, অগমেন্টেড এবং ভার্চয়াল রিয়েলিটি ইত্যাদি ক্ষেত্রে গবেষণা করে থাকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ