Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬, ১৫ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

অস্ত্র সমর্পণ করছে শিশু যোদ্ধারা

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০১৯, ১২:১১ এএম

গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোর শিশু যোদ্ধারা অস্ত্র ও গোলাবারুদ জমা দিচ্ছে। তারা মনে করছে যুদ্ধ শেষ হয়ে গেছে। তারা লেখাপড়া করে বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখছে। মাদো নামের ১২ বছর বয়সী শিশু যোদ্ধা বলেছে, ‘কঙ্গোতে যুদ্ধ শেষ হয়ে গেছে বলেই মনে হচ্ছে।’ তার কথা শুনে আশা করা যেতেই পারে যে কঙ্গোতে যুদ্ধ শেষ হতে যাচ্ছে। মাদো কঙ্গোর মধ্যাঞ্চলীয় কাসাই অঞ্চলের কামুইনা সাপু মিলিশিয়া বাহিনীর সদস্য। বেশ কয়েকজন প্রাপ্ত বয়স্ক যোদ্ধার সঙ্গে এই কিশোরীও কানাঙ্গা শহরে এসেছে। এটি কিশাসা থেকে প্রায় ৭শ’ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত। তারা কিশাসায় অস্ত্রসমর্পণ করেছে। তারা গভর্ণরের পায়ে তাদের পুরনো রাইফেল, ম্যাচেটিস ও কবচ জমা দিয়েছে। ডিসেম্বরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নির্বাচিত হওয়া ফেলিক্স শিসেকেদির আকস্মিক বিজয়ের পর তারা এই অস্ত্রসমর্পণ করল। অধিকাংশ কামউইনা সাপু যোদ্ধাদের মতো শিসেকেদিও জাতিগত লুবা স¤প্রদায়ের লোক। তাদের সাথে আরো দুই শিশু ছিল। একজনের বয়স প্রায় ১০ বছর। তার মাথায় লাল পট্টি বাঁধা ও হাতে একটি বড় ছোরা ছিল। এএফপি।



 

Show all comments
  • কবীর হোসেন ১ মার্চ, ২০১৯, ১:৪৭ এএম says : 0
    নি:সন্দেহে খুবেই ভালো খবর। শিশুদের হাতে অস্ত্র নয় বই শোভা পায়। এই বয়সে তাদের যুদ্ধ করাটা বড়দের সেই সাথে গোটা বিশ্বের লজ্জা।
    Total Reply(0) Reply
  • সত্য হক ১ মার্চ, ২০১৯, ১:৪৮ এএম says : 0
    স্বাগতম। অত্যন্ত ভালো সিদ্ধান্ত নিয়েছো তোমরা। এখন অস্ত্র ফেলে লেখাপড়ায় মন দাও।
    Total Reply(0) Reply
  • জমির মওলা ১ মার্চ, ২০১৯, ১:৫০ এএম says : 0
    একটা দেশের পরিস্থিতি কতটা খারাপ হলে শিশুদের অস্ত্র হাতে তুলে নিতে হয়। সারা বিশ্বেই আজ অশান্তি আর অশান্তি, দুধের শিশুরাও আজ পাশবিকতা থেকে রেহায় পাচ্ছে না।
    Total Reply(0) Reply
  • নাফিজ খান রেজা ১ মার্চ, ২০১৯, ১:৫০ এএম says : 0
    স্বাভাবিক জীবনে সু-স্বাগম।
    Total Reply(0) Reply
  • রবিউল ইসলাম রুবেল ১ মার্চ, ২০১৯, ১:৫১ এএম says : 0
    কি ভয়াবহ!! শিশুদের হাতে কি ভারী অস্ত্র। আজ বিশ্ব কতটা বর্বর হয়ে গেছে যে তাদের মতো শিশুদেরও অস্ত্র তুলে নিতে হয়েছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul kaium Al minar ১ মার্চ, ২০১৯, ৯:৪০ এএম says : 0
    শুনে ভালো লাগলো।কিন্তু মাঝেমধ্যে বিস্মিতও হতে হয়।চরম আধুনিকতার যুগেও এমন ঘটনা সত্যিই মনে কড়ানাড়ে।।।জয় হোক মানবতা।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul kaium Al minar ১ মার্চ, ২০১৯, ৯:৪১ এএম says : 0
    শুনে ভালো লাগলো।কিন্তু মাঝেমধ্যে বিস্মিতও হতে হয়।চরম আধুনিকতার যুগেও এমন ঘটনা সত্যিই মনে কড়ানাড়ে।।।জয় হোক মানবতা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ