Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

র‌্যাবের হাতে জ্বীনের বাদশাহসহ আটক ২

আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

বিকাশের মাধ্যমে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার চক্রের সক্রিয় তিন সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১১ এর একটি টিম। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের আদমজীতে অবস্থিত র‌্যাব-১১ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান র‌্যাব ১১ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল কাজী শামশের উদ্দিন। এর আগে বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় আড়াইহাজারের নারায়ণগঞ্জ-নরসিংদী মহাসড়কের আড়াইহাজার উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের বান্টিবাজার হতে তাদের আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলেন সৈয়দ আকতার হোসেন লিটন (৪৫), মুকলেসুর রহমান ওরফে দয়াল বাবা (৫২) ও দুলাল ওরফে দুলাল পাগলা (৩২)।
র‌্যাব জানায়, এই সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র ভূয়া মোবাইল সিম ব্যবহার করে দেশের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও উচ্চপদস্থ চাকুরীজীবিদের শীর্ষ সন্ত্রাসী পরিচয়ে মোবাইলে হুমকি দিয়ে চাঁদা দাবি করে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণা করে আসছিল। আড়াইহাজারের জনৈক মমতাজ হাসান কর্তৃক অধিনায়ক বরাবর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, একটি অপরিচিত মোবাইল নাম্বার (০১৮৮০৮৭৭০৮৬) থেকে দেশের শীর্ষ সন্ত্রাসী মিরপুরের শাহাদাত পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি তাকে হুমকি দিয়ে চাঁদা দাবি করে।
অভিযোগের সত্যতা যাচাই ও অনুসন্ধানে জানা যায়, ওই পরিচয়ে একই ব্যক্তি একাধিক সিম ব্যবহার করে দেশের বহু প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী এবং সরকারি ও বেসরকারি উচ্চ পদস্থ চাকুরীজীবিদের মোবাইলে হুমকি দিয়ে চাঁদার দাবি করেছে। অনেকে নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনা করে বিকাশে চাঁদা দিয়েছে। অনেকে হুমকিতে ভীত ও অসুস্থ হয়ে পড়েছে। আবার অনেকে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি ও করেছে।
আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, এই সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের মূলহোতা সৈয়দ আকতার হোসেন লিটন। তার বাড়ি মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার আমগ্রামে। প্রতারণাই তার মূল পেশা আর মাজার ভক্তি তার নেশা। দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে লিটন মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে। জ্বীনের বাদশা হয়ে প্রতারণা করার অপরাধে একবার গ্রেফতারও হয়েছিল। তার পরেও তার প্রতারণা থেমে থাকেনি।



 

Show all comments
  • Abdul Hannan ১ মার্চ, ২০১৯, ৬:৪৮ এএম says : 0
    জিনের বাদশাহ একবার শেষ রাতে আমাকে ফোন করে কিন্তু আমি তার চক্রান্ত বুঝে ফেলি।
    Total Reply(0) Reply
  • সজল ১ মার্চ, ২০১৯, ১:২৬ পিএম says : 0
    জিনের বাদশা আমাকে একবার রাত দুইটায় ফোন করেছিল এবং আমার কাছে ৫০,০০০ টাকা দাবী করেছিল। তখন আমার ব্যাংকে ৫০,০০০ টাকা জমা ছিল, আমি তো ভয় পেয়েছিলাম আর বললাম বাবা গো, ও বাবা তুমি তো সবি জান আর করতেও পার তাই একাউন্ট থেকে নিয়ে যাও বাবা। আমি আপনার সাথে দেখা করতে পারব না। বাবা আমারে বিকাশ নাম্বার পাঠাইলো আমি বললাম বাবা এটা এজেন্ট না পারসোনাল। বাবা আমারে ঝাটকি দিল বলল মূর্খ কথাকার এটা পারসোনাল। বাবা বলল সকাল দশটার মধ্যে পাঠাবি। পরের দিন শুক্রবার ছিল। বাবা সর্বনাশ বাবা কালকে তো শুক্রবার। শেষমেষ রবিবার রাজি করালাম বাবা তো মানছেই না।আমি তো চিন্তায় অস্হির ডিজিটাল যুগে বাবারাও দেখছি ডিজিটাল হয়ে গেছে।কাউকে না বলতে বলেছিল আমি তো শনিবার এক ঘনিষ্ট বন্ধুকে বলেই ফেলি। সে আমাকে বুঝিয়ে বলে এটা ভন্ড বাবার চালাকি তুই এক পয়সাও দিবি না। ভাগ্যক্রমে বন্ধুর জন্য বেচে যাই।পরে আর কোন ফোন দেয়নি।
    Total Reply(0) Reply
  • masud ১ মার্চ, ২০১৯, ৩:১০ পিএম says : 0
    helal akjon jen er badsha
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ