Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

বসন্তের ঠাণ্ডা’য় দক্ষিণাঞ্চলের জনজীবন বিপর্যস্ত

নাছিম উল আলম | প্রকাশের সময় : ৩ মার্চ, ২০১৯, ১০:৩৭ এএম

ফাল্গুনে বসন্তের কণকণে ঠাণ্ডায় কাঁপছে দক্ষিণাঞ্চল। স্বাভাবিক জনজীবনেও যথেষ্ট বিপত্তি সৃষ্টি হচ্ছে। এবার মাঘের শুরু থেকে শীত বিদায় নিয়ে দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে বসন্তের আমেজ ছড়িয়ে পরলেও বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে ফাল্গুনের প্রথম দশদিনের পরেই বৃষ্টিতে ভড় করে শীত ফিরে এসেছে। আজ(রবিবার) সকালে বরিশালে তাপমাত্রার পারদ নেমে এসেছে ১১ডিগ্রী সেলসিয়াসে। যা আগের দিন শনিবারে ছিল ১২ ডিগ্রীতে। আর মার্চের প্রথম দিন ছিল ১৬.৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস। এ হিসেব বরিশালে গত ৪৮ ঘণ্টায় তাপমাত্রার পারদ নেমেছে ৫.৮ডিগ্রী সেলসিয়াস।
মাঘের শীতের অনুপস্থিতির কারণে শেষ থেকেই দক্ষিণাঞ্চলের সাধারণ মানুষ শীতের পোশাককে বিদায় করলেও গত এক সপ্তাহে তা আবার ফিরিয়ে আনতে হয়েছে। এমনকি অনেক গৃহিণীরা লেপ ও কম্বল তুলে ফেলে রাতে কাঁথাকেই ভরসা করলেও এখন আবার সেসব শীত প্রতিরোধী বসন বিছানায় ফিরেছে।
অথচ এবার পৌষের মধ্যভাগে দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে স্মরনকালের তীব্র শৈত্য প্রবাহে জনজীবন অনেকটাই বিপর্যস্ত হয়ে পরে। গত ২৯ডিসেম্বর বরিশালে তাপমাত্রার পারদ নেমেছিল ৬.৫ডিগ্রী সেলসিয়াসে। যা ছিল স্মরনকালের সর্বনিম্ন। কিন্তু এবার ‘মাঘের শীত বাঘের গায়ে’ লাগার প্রবাদ অসাড় করে সর্বনিম্ন তাপমাত্র ২০ডিগ্রীতে উঠে যায়। তবে ফাল্গুনের বসন্ত শুরু হবার পরে ঘন কুয়াশায় দক্ষিণাঞ্চলের সড়ক, নৌ ও আকাশ পরিসেবা বিপর্যস্ত হয়ে পরার মধ্যেই গত ২৩ফেব্রুয়ারী থেকে হালকা থেকে মাঝারী বর্ষনে জনজীবনে ছন্দপতন ঘটে। মাঘের শেষের এ বৃষ্টিপাত রবি ফসলের জন্য কিছুটা উপকারী হবার কথা থাকলেও তা ৫দিন ধরে অব্যাহত থাকায় শেষ দিকে কিছুটা ক্ষতির কারনও হয়েছে। গোল আলু সহ অঅরো কিছু রবি ফসলের ক্ষতি হলেও বোরা ধানের জন্য এ বৃষ্টি কিছুটা আশির্বাদ হয়েছে।
আবাহাওয়া বিভাগের বুলেটিনে পশ্চিমা লঘুচাপরে বর্ধিতাংশ ভারতের বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত থাকার কথা জানিয়ে মৌশুমী লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে বলে জানান হয়েছে। তবে দক্ষিণাঞ্চল সহ সারা দেশে আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকার কথা বলা হয়েছে। আজ দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধির কথা বলা হলেও রাতে তা অপরিবর্তিত থাকার কথাও বলছে আবহাওযা বিভাগ। তবে আগামী কালের পরবর্তি ৪৮ঘন্টা পরে দিন ও রাতের তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধির খবরও দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আবহাওয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ