Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ফেদেরারের সেঞ্চুরি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

২০০১ সালে হুলিয়ান বাটারকে হারিয়ে মিলান ইন্ডোর ওপেন জিতে নেন ১৯ বছর বয়সী অচেনা এক তরুণ। পেশাদারী ক্যারিয়ারে যা ছিল তার প্রথম কোন এটিপি শিরোপা। সেদিন তিনি লক্ষ্য ঠিক করেন ‘শীর্ষ ১৫-তে উঠে আসা যা কষ্টকর হলেও অসাধ্য নয়।’ সেদিনে ম্যাচে বিবিসি রিপোর্টে বলা হয় ‘ছেলেদের টেনিস অন্যতম এক ভবিষ্যত তারকাকে পেয়ে গেছে।’
বিসিসির রিপোর্টে সেদিন একদম বাড়তি কিছু লেখা হয়নি। সেদিনের সেই ছেলেটিই যে আজকের রজার ফেদেরার। বিশ্ব টেনিসের সবখানেই যার আধিপত্য। রেকর্ড ২০ গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতে নিজেকে নিয়ে গেছেন কিংবদন্তিদের কাতারে। ৩৭ বছর বয়সে এসেও কি দারুণ ছন্দ তার ব্যাটে! এমনই ছন্দ যে, তরুণ ভবিষ্যত তারকাকে হারিয়ে ১০০তম একক এটিপি শিরোপা জিতে নিলেন পরশু। ফেদেরার পরবর্তি টেনিস বিশ্বকে নেতৃত্বের আভাস আগেই দিয়ে রেখেছেন গ্রিসের ২০ বছর বয়সী স্তেফানো সি’সিপাস। মার্শেই ওপেন জিতেই নাম লেখান দুবাইয়ে। এই তরুণের কাছে হেরেই গত অস্ট্রেলিয়া ওপেনের শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিতে হয় ফেদেরারকে। দুবাই টেনিস চ্যাম্পিয়ন্সশিপে সেই সিৎসিপাসকে ৬-৪ ৬-৪ গেমে হারিয়ে ক্যারিয়ারের শততম এটিপি শিরোপা জিতলেন ফেদেরার। ম্যাচ শেষে তার অনুভূতি, ‘মনে হচ্ছে স্বপ্নটা সত্যি হলো।’
ছেলেদের টেনিসে তার চেয়ে বেশি একক শিরোপা জিতেছেন কেবল একজনই- আমেরিকার জিমি কনর্স, ১০৯টি। অবশ্য টেনিসের সবচেয়ে মর্যাদার গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা কনর্সের চেয়ে ১২টি বেশি ফেদেরারের। শততম এই শিরোপা তাকে সোমবারের র‌্যাঙ্কিংয়ে সাত থেকে এক ধাক্কায় চারে তুলে আনবে। ম্যাচ শেষে সুইস তারকা বলেন, ‘আমি অভিভূত। ১০০ শিরোপার মধ্যে দুবাইয়ে এটি আমার অষ্টম।’
তারুণ্যের সংগাটা যেন নতুনভাবে লিখছেন ৩৭ বছর বয়সী। সিৎসিপাসকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েই বলেন, ‘জানি না আমি প্রথম যখন শিরোপা জিতি তখন স্টেফানোর জন্ম হয়েছে কিনা। ভবিষ্যত তারকাদের সঙ্গে খেলার একটা সুবিধা আছে। কারণ টিভিতে ভবিষ্যতে তাদের খেলা দেখতে হবে। এটা পিট সাম্প্রাস ও আন্দ্রে আগাসিদের ট্রিট নেয়ার মত ব্যাপার। আমি নিশ্চিত স্টেফানোর দারুণ একটা ক্যারিয়ার অপেক্ষা করছে।’
র‌্যাঙ্কিংয়ের ১১ নম্বর তারকা সিৎসিপাস এদিন ছিলেন ফাইনালে ফেদেরারের ৫০তম ভিন্ন কোন প্রতিদ্ব›দ্বী এবং ২৫তম ভিন্ন জাতীয়তার। সব মিল এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মত মুখোমুখি হলেন তারা।
কনর্সকে টপকে যেতে এখনো দশটি শিরোপা জিততে হবে ফেদেরারকে। তবে ছেলে-মেয়ে মিলে এই রেকর্ডটা আরো বড়। চেক স্লোভিয়ায় জন্ম নেয়া আমেরিকান টেনিস কিংবদন্তি মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা ক্যারিয়ারের পাশে লেখা রয়েছে নারী এককে ১৬৭টি এটিপি শিরোপা।

ছেলেদের এককে সর্বোচ্চ একক শিরোপাজয়ী
খেলোয়াড় দেশ শিরোপা
জিমি কনর্স যুক্তরাষ্ট্র ১০৯
রজার ফেদেরার সুইজারল্যান্ড ১০০
ইভান লেন্ডেল চেক আমেরিকান ৯৪
রাফায়েল নাদাল স্পেন ৮০
জন ম্যাকেনরয় জার্মানি ৭৭



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফেদেরারের সেঞ্চুরি
আরও পড়ুন