Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

সরিষাবাড়ীতে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে জাল সার্টিফিকেট প্রদানের অভিযোগ

প্রার্থিতা বাতিলের আবেদন

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ মার্চ, ২০১৯, ১১:১৮ এএম

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মাহমুদা খাতুনের (কলসি প্রতীক) বিরুদ্ধে জাল সার্টিফিকেট প্রদানের অভিযোগ উঠেছে। এইচএসসি পাস না করেই নির্বাচনী হলফনামার সাথে এইচএসসি’র জাল সার্টিফিকেট সংযুক্ত করলেও রিটার্নিং অফিসার তাঁর প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা ও প্রতীক বরাদ্দ দেন। এ ব্যাপারে ওই প্রার্থীর বিরুদ্ধে রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী।
অভিযোগ সুত্র জানায়, উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের রামনন্দপুর গ্রামের সরওয়ার কাউসারের স্ত্রী মাহমুদা খাতুন এইচএসসি উত্তীর্ণ হননি। উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমাদানের সময় হলফনামায় নিজেকে তিনি এইচএসসি উত্তীর্ণ বলে উল্লেখ করেন এবং একটি জাল সার্টিফিকেট সংযুক্ত করেন। রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজীব কুমার সরকার ১৮ ফেব্রুয়ারি তাঁর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা ও ২০ ফেব্রুয়ারি তাঁকে কলসি প্রতীক বরাদ্দ দেন। প্রতীক বরাদ্দের পর তিনি প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
এদিকে সার্টিফিকেট অনুসন্ধানে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী কলেজ থেকে ১৯৯৪ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় দ্বিতীয় বিভাগে উত্তীর্ণ দেখানো হয়েছে। যার রোল নম্বর ৪৬৪৭৫ ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর ৩২৪১৮/১৯৯২, কলেজ ও অনলাইনে যার কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। এ মর্মে সরিষাবাড়ী কলেজের অধ্যক্ষ ছরোয়ার জাহান ৪ মার্চ (সোমবার) লিখিত এক প্রত্যয়নপত্রে বলেন, ‘অত্র কলেজে ১৯৯৪ সালের এইচএসসি (সার্টিফিকেট) পরীক্ষার টেবুলেশন শিট বাছাইয়ান্তে উল্লেখিত নাম, রোল ও রেজিস্ট্রেশনধারী কোনো শিক্ষার্থী পাওয়া যায়নি।’
উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্র জানায়, সরিষাবাড়ীতে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নিবার্চিত হওয়ায় আগামী ১০ মার্চ শুধুমাত্র মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ পদে জেলী আক্তার (ফুটবল প্রতীক) ও মাহমুদা খাতুন (কলসি প্রতীক) প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগ করছেন। তবে জাল সার্টিফিকেট প্রদানের অভিযোগ প্রমাণ ও মাহমুদা খাতুনের প্রার্থীতা বাতিল হলে জেলী আক্তারও বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হবেন। এতে প্রথমবারের মতো এখানে নির্বাচিনবিহীন উপজেলা পরিষদ গঠণ হবে।
এ ব্যাপারে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদা খাতুনের বক্তব্য জানার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী জেলী আক্তার জানান, ‘হলফনামায় জাল সার্টিফিকেট ও মিথ্যা তথ্য দেওয়ার অভিযোগে ২৮ ফেব্রুয়ারি রিটার্নিং অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। রিটার্নিং অফিসার এটা তদন্ত করতে ৩ মার্চ সহকারী রিটার্র্নিং অফিসারকে দায়িত্ব দিয়েছেন।’
এ ব্যাপারে সহকারী রির্টানিং অফিসার ও সরিষাবাড়ী নির্বাহী অফিসার সাইফুল জানান, ‘বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য উপজেলা নির্বাচন অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছি। নির্বাচন সম্পন্ন হলেও অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ