Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

ফিলিস্তিনিদের জন্য মার্কিন দূতাবাস বন্ধ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ মার্চ, ২০১৯, ৬:১৫ পিএম

ফিলিস্তিনের নাগরিকদের জন্য আলাদা কূটনৈতিক মিশন ‘জেরুজালেম কনস্যুলেট’ বন্ধ ঘোষণা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। গত সোমবার (৪ মার্চ) থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়। যার মাধ্যমে ফিলিস্তিনিদের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে কনস্যুলেট সেবা বন্ধ করল ট্রাম্প প্রশাসন। এ দিন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে পাঠানো বিবৃতির বরাতে করা প্রতিবেদনে এই দূতাবাস সেবা বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা।
প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন কনস্যুলেট সুবিধা গ্রহণ করতে এখন থেকে ফিলিস্তিনিদের জেরুজালেমে অবস্থিত ইসরায়েলি মিশনে যেতে হবে। গত কয়েক দশক যাবত চালু থাকা এই জেরুজালেম কনস্যুলেটটি ফিলিস্তিনিদের জন্য মার্কিন দূতাবাস হিসেবে কাজ করত। যদিও এখন থেকে ইসরায়েলের মার্কিন দূতাবাসের অধীনে ফিলিস্তিনি ইউনিট কনস্যুলেটের সেই কাজগুলো সম্পন্ন করবে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সোমবার থেকে একীভূতকরণের এ কার্যক্রমটি বাস্তবায়ন হবে। এখন থেকে সকল ফিলিস্তিনিদের জেরুজালেমে অবস্থিত ইসরায়েলি মিশনে গিয়ে তাদের এ সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।’ যদিও ট্রাম্প প্রশাসনের নতুন এই পদক্ষেপে ফিলিস্তিন জুড়ে ব্যাপক ক্ষোভ ও অসন্তোষের দেখা দিয়েছে।
বিবৃতিতে আরও বলা আছে, ‘ইসরায়েলি দূতাবাসের সঙ্গে জেরুজালেম কনস্যুলেট একীভূত করার করা হচ্ছে। একক কূটনৈতিক মিশন গঠনের লক্ষ্যে ২০১৯ সালের ৪ মার্চ থেকে জেরুজালেমে মার্কিন কনস্যুলেট জেনারেল ও দূতাবাস পুরোপুরি একীভূত হয়ে হবে।’
এই দূতাবাস একীভূতের বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবার্ট পালাডিনো বলেছেন, ‘এটি জেরুজালেম বা গাজা ভূখণ্ডে মার্কিন নীতির কোনও পরিবর্তনের ইঙ্গিত বাহী কিছু নয়। মূলত আমাদের কূটনৈতিক দক্ষতা ও কার্যকারিতা বৃদ্ধির জন্যই এই সিদ্ধান্তটি গ্রহণ করা হয়েছে।’
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৬ নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে দখলদার ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করেছিলেন। মূলত এরপরই ফিলিস্তিনের নেতারা জেরুজালেমের কনস্যুলেট জেনারেলসহ মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে সমস্ত রাজনৈতিক যোগাযোগ স্থগিত করে দেয়। যা এখনও অব্যাহত আছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফিলিস্তিন

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন