Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

আবারও প্রস্তুত হচ্ছে উত্তর কোরিয়ার রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০১৯, ৬:৫৭ পিএম

আবারও প্রস্তুত করা হচ্ছে উত্তর কোরিয়ার দূর-পাল্লার একটি রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র। ইতোমধ্যে কেন্দ্রের নানা কর্মতৎপরতাও লক্ষ্য করা গেছে। বিশ্লেষকদের ধারণা, সম্প্রতি ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয় আয়োজিত সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনো সমঝোতা না হওয়ায় পিয়ংইয়ং তাদের একটি পরীক্ষা কেন্দ্রকে পুনরায় প্রস্তুত করছে। বুধবার স্যাটেলাইট থেকে ধারণকৃত ছবি বিশ্লেষণের মাধ্যমে মার্কিন থিংক ট্যাঙ্কের প্রকাশিত তথ্যের বরাতে করা প্রতিবেদনে দূর-পাল্লার এই রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র প্রস্তুতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি।
এদিকে ওয়াশিংটনভিত্তিক রকেট পর্যবেক্ষণ সংস্থা সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের (সিএসআইএস) পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানানো হয়, উত্তর কোরিয়ার এমন কর্মতৎপরতায় সোহায়ে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ কেন্দ্রে ঊর্ধ্বগামী ইঞ্জিন পরীক্ষা চালানোর বিষয়টি পুরোপুরি স্পষ্ট। এর আগে ২০১২ এবং ২০১৬ সালে এই একই কেন্দ্র থেকে পিয়ংইয়ং বেশ কয়েকটি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছিল। যদিও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় উত্তর কোরিয়ার এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র প্রস্তুতের ঘটনার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেছে। তাদের দাবি, এসব স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের আড়ালে উত্তর কোরিয়া নিজেদের ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষাও চালাতে পারে।
অপরদিকে, উত্তরের রকেট পর্যবেক্ষণ সংস্থা মডিউরের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক জেনি টাউন ব্রিটিশ বলেন, ‘এই পার্থক্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। উত্তর কোরিয়ানরা সম্ভবত তাদের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির সক্রিয় অংশ হিসাবে পুনর্নির্মাণ দেখতে চান না।’ রকেট পর্যবেক্ষণ সংস্থার এই ব্যবস্থাপনা সম্পাদক আরও বলেছিলেন, ‘এই স্থাপনার পুনর্নির্মাণের বিষয়টি আলোচনার প্রক্রিয়াতে বিশ্বাসের অভাবকেই সংকেত দিতে পারে। আর এটাই বাস্তব।’
উল্লেখ্য, মার্কিন থিংক ট্যাঙ্ক এবং দক্ষিণ কোরিয়ান গোয়েন্দা পরিষেবা থেকে প্রাপ্ত উপগ্রহের ছবিতে এটাই প্রমাণিত যে, টংচং-রির সোহেয়ে সাইটে রকেট লঞ্চ প্যাডের কাঠামো পুনর্নির্মাণে দ্রুত অগ্রগতি হয়েছে। এর আগে ২০১২ সাল এই সোহাই থেকে উত্তর কোরিয়ার প্রধান স্যাটেলাইট লঞ্চ করা হয়েছিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উত্তর কোরিয়া

২৭ এপ্রিল, ২০১৯
১০ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন