Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫, ১৭ রজব ১৪৪০ হিজরী।

রাশিয়ায় শিশুর দেহে ইসলামের বিস্ময়কর বানী (ভিডিওসহ)

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ মার্চ, ২০১৯, ৭:০৮ পিএম

উত্তর রাশিয়ার দাগিস্তানে একটি মুসলিম পরিবারে জন্ম নেয়া শিশু আলিয়া ইয়াকুব। প্রতি শুক্রবার তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ত্বকের নীচে জমাট রক্তের মতো হরফে পবিত্র কোরআন বা হাদিসের একেকটা বানী লেখা ভেসে ওঠে। এর স্থিরচিত্র বিভিন্ন মানুষ তুলে রাখেন। বাড়িতে একটি অ্যালবামের প্রদর্শনী খোলা হয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যের একটি টেলিভিশন শিশুটির মায়ের সাক্ষাৎকার নেয়। শিশুটির মা টেলিভিশনটিতে বলেন, ‘যে সময় তার দেহে আয়াত বা হাদিস ভেসে ওঠে এর আগে তার অনেক জ্বর আসে। সে সময় সে প্রচণ্ড কান্না করতে থাকে। এরপর লেখাগুলো ভেসে উঠলে জ্বর কমে এবং কান্না থেমে যায়। দুধ পান করার সময়ও সে খুব শান্ত থাকে। ভিডিওটিতে শিশুটির নানা অঙ্গে আয়াত ও হাদিসের কিছু চিত্র দেখা যাবে। কিছু স্থিরচিত্র প্রদর্শনের জন্য রাখা হয়েছে।
বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ‘এটি আল্লাহর কুদরত ও মহানবী স-এর মুজিযা। যে কোনও কারণে আল্লাহ তা তার বান্দা অথবা প্রকৃতির মধ্যে প্রকাশ করে থাকেন। যাতে মানুষ শিক্ষা গ্রহণ ও ঈমান মজবুত করতে পারে।’
অনেকে বলছেন, ‘এটি ইমাম মাহাদির আগমনের অন্যতম নমুনা। কিয়ামতের নিদর্শনও হতে পারে এটি। শিশুটির পেটে ‘আল্লাহ’ গলায়, পায়ে, ঘাড়ে, পিঠে ও কানে আল্লাহর নাম। পা থেকে উরু হয়ে কোমর পর্যন্ত লম্বা লেখাটি হচ্ছে একটি হাদিসের বানী। যার অর্থ, আমি যা জানি তা যদি তোমরা জানতে তাহলে হাসতে কম কাঁদতে বেশি।’
টিভিতে বলা হয়, প্রতিদিন আলিয়া ইয়াকুবদের বাড়িতে গড়ে ২ হাজার লোক বিস্ময়কর এ ঘটনা দেখতে আসেন।
ভিডিও:

 



 

Show all comments
  • Sharif ১৫ মার্চ, ২০১৯, ১২:৩৫ এএম says : 0
    I DONT beleive this
    Total Reply(0) Reply
  • mahbubur rahman babu ১০ মার্চ, ২০১৯, ৬:১৭ এএম says : 1
    allah hu akbar, allah hu akbar, allah hu akbar
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ রাজীব ১০ মার্চ, ২০১৯, ৮:১৩ এএম says : 0
    আল্লাহ তায়ালা এই ভাবেই যুগে যুগে তার নিদর্শন সমূহ আমাদের কে দেখিয়েছেন যাতে করে আমরা পথ হারিয়ে না ফেলি।
    Total Reply(0) Reply
  • মুসলমানরা এত বোকা হয়??? মুসলমানদের বোকামির কারণে আজ সারা পৃথিবীজুরে তারা এর খেসারত দিচ্ছে। মহাপবিত্র কুরআনুল কারীম মহান খ্বলিক মালিক রব আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা উনার মহান নিয়ামতপূর্ণ এক মহাসম্মানিত বানী মুবারক। এই বানী মুবারক উনার সর্বোচ্চ সম্মান ও ইজ্জত রয়েছ। এই ভিডিওতে যে চিত্র গুলো দেখানো হয়েছে তার অধিকাংশই লক্ষ করলে সহজেই বুঝা যাবে যে অবুঝ একটি শিশুর পায়ে কালামুল্লাহ শরীফ উনার আয়াত শরীফ মুবারক লিখিত রয়েছে। নাউযুবিল্লাহি মিন যালিক। মহান আল্লাহ পাক উনার বানী মুবারককে চরম ভাবে অবমাননা করারা জন্যেই কাফেররা এই কাজ করছে। কাফেরা টয়লেট টিসূতে মহাপবিত্র কুরআনুল কারীম উনার মহাম্মানিত আয়াত শরীফ লিখেছে এবং সে টয়লেট টিস্যূ বাজারজাত করছে। নাউযুবিল্লাহ। আবার জুতার সোলে মহান আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারক লিখে বাজারজাত করেছে। নাউযুবিল্লাহ। আবার ফুটবলে মহান আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারক লিখে বাজারজাত করেছে। নাউযুবিল্লাহ। এখানেই শেষ নয় জায়নামাযে তারা আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারক ও আখিরী রসুল হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নাম মুবারক এবং মহান পবিত্র তম স্থান কাবা শরীফ ও মদীনা শরীফ উনার ছবি দিয়ে মুসলমানদের দ্বারাই মুসলমানদের মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্রতম সম্মানিত বিষয় গুলোতে চরম অবমাননা করছে। নাউযুবিল্লাহ। নামধারী মুসলমানেরা সেসব গোগ্রাসে গিলছে। নাউযুবিল্লাহ। মুসলমানদের কী ফিরে আসার সময় হয়নি?
    Total Reply(1) Reply
    • Md Hasan ১৮ মার্চ, ২০১৯, ৮:৪৭ এএম says : 0
      ABC news, The telegraph reported this earlier.

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম

২৪ মার্চ, ২০১৯
২০ মার্চ, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন