Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২২ মে ২০১৯, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৬ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

ইসরায়েলের নির্বাচনে মুসলিম নারী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

প্রথম মহিলা হিসেবে ইসরায়েলী সংসদ নির্বাচনে দাড়িয়েছেন আরবি ভাষী সংখ্যালঘু সম্প্রদায় দ্রুজ জাতিভুক্ত মুসলিম নারী ও সাবেক টেলিভিশন সংবাদ অ্যাঙ্কর গাদির কামাল মারিয়া। দেশটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে আর মাত্র মাত্র এক মাসের মতো সময় মধ্যেই। খবর রয়টার্স।
ইসরায়েলের প্রাক্তন সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান বেনী গান্তজে নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় নীল ও হোয়াইট পার্টির পক্ষে চলমান নির্বাচনী ব্যবস্থায় নেসেটের জন্য একটি আসন নিশ্চিত করেছেন গাদির মারিয়া। এটি এমন এক স্থান যেখানে প্রার্থীদের তালিকা থেকে ভোটাররা নির্বাচন করে। বেনী গান্তজ প্রধানমন্ত্রীর বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর প্রধান প্রতিদ্ব›দ্বী। ইসরায়েলের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারকেন্দ্রের সাবেক সাবেক অ্যাঙ্কর মারিয়া বলেন, সংখ্যালঘু নারীদের থেকে কোন কিছুতে ধারাবাহিকভাবে তিনিই প্রথম হিসেবে জীবনে শুরু করেছেন। ৩৪ বছর বয়সী মারিয়া বলেন, ‘আমিই প্রথম অইহুদি নারী হিসেবে হিব্রুভাষার একটি সংবাদ সম্প্রচারকেন্দ্রের অ্যাংকর হয়েছিলাম।’
মারিয়া ইসরায়েলের দালিয়াত আল-কারমেল গ্রামের দ্রুজের একটি প্রধান জনসংখ্যা কেন্দ্র। তিনি ইসলাম ধর্মের অনুসরন করেন যা ইসরায়েলের অংশভুক্ত সবচেয়ে সংখ্যালঘুদের একটি জাতি। ইসরায়েলি গণমাধ্যমগুলির মধ্যে বেড়ে উঠার বিষয়টি সহজ ছিল না বলে জানান মারিয়া। তিনি বলেন, তার রক্ষণশীল সম্প্রদায় সাংবাদিকতায় কাজ করাকে নারীর জন্য অনুপযুক্ত হিসাবে দেখে, যেজন্য তাকে অনেক সমালোচনার শিকার ও হতে হয়েছে।
সময়ের স্রোতে মারিয়া বয়োজ্যেষ্ঠদের সমর্থণ অর্জন করেন, এমনকি ইসরায়েলের আধ্যাত্মিক নেতা শেখ মুওয়াফাক তারিফ ও তাকে সমর্থণ দেয়। মারিয়া বলেন, ‘দ্রুজ নারীরা যে সফল হতে পারে, আমরা এই সম্প্রদায়কে বিনয়ের ও আদর্শ উপায়ে প্রতিনিধিত্ব করতে পারি তা এখন ধর্মীয় নেতারাও বুঝতে পেরেছেন।’
ইসরায়েলে ১ লাখ ৪০ হাজারেরও বেশি দ্রুজ নাগরিকের বাস, যা দেশটির মোট জনসংখ্যার মাত্র দুই শতাংশের নিচে। এছাড়াও সিরিয়া এবং লেবাননও দ্রুজ সম্প্রদায় আবাসভ‚মি। ইসরায়েলে দ্রুজ পুরুষদের সেনাবাহিনীতে তালিকাভুক্ত করা হয় যা দেশের ২০ শতাংশ আরব সংখ্যালঘু সদস্যদের তুলনায় বেশি, যাদের মধ্যে অনেকেই ফিলিস্তিনি হিসাবে পরিচিত। চলমান সংসদে ১২০ জন সদস্যের মধ্যে ১৬ জন আরবীয় ছিল, যার মধ্যে দুটি অ-দ্রুজ নারী ছিল।
উল্লেখ্য, আগামী ৯ ই এপ্রিল ইসরায়েলে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মতামত জরিপে দেখা যাচ্ছে যে, গ্যান্টেজের দল ৩৫ টি আসন পাবে যেখানে লিকুদের ৩০টি আসন পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। কিন্তু, কোন দল শাসনব্যবস্থায় জোট গঠন করতে পারবে তা এটা এখনও অস্পষ্ট।



 

Show all comments
  • Zia Mamun ১১ মার্চ, ২০১৯, ১:৫৯ এএম says : 0
    আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • Sayad Anayet ১১ মার্চ, ২০১৯, ১:৫৯ এএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ সুবহানাল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Mehedi Hasan ১১ মার্চ, ২০১৯, ১:৫৯ এএম says : 0
    আর আমার বাংলাদেশে? আমরা কি মুসলমান?
    Total Reply(0) Reply
  • Rafiq Mia ১১ মার্চ, ২০১৯, ২:০০ এএম says : 0
    অভিনন্দন
    Total Reply(0) Reply
  • Mohi Uddin ১১ মার্চ, ২০১৯, ২:০০ এএম says : 0
    Thank you very much
    Total Reply(0) Reply
  • Masud Rana Mojumdar ১১ মার্চ, ২০১৯, ২:০০ এএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরায়েল


আরও
আরও পড়ুন