Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬, ১৮ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

দেশে অঘোষিত ‘সুপার ইমার্জেন্সি’ চলছে : মমতা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

রাজ্যের সমস্ত বুথকে সংবেদনশীল ঘোষণা করতে বিজেপির দাবির তীব্র সমালোচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অহেতুক পশ্চিমবঙ্গকে নিয়ে স্পর্শকাতরতা দেখাচ্ছে বিজেপি, এই অভিযোগ করেন তিনি। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গকে শান্তিপূর্ণ রাজ্য বলেও জানান তিনি। গতকাল বিকেলে তৃণমূল প্রার্থীদের নিয়ে কালীঘাটে সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এসব অভিযোগ করেন। খবর এনডিটিভি।
মঙ্গলবারই রাজ্যের ৪২টি আসনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূলনেত্রী। বুধবারের বৈঠকে তার সঙ্গে ছিলেন আসামের বিভিন্ন কেন্দ্রে তৃণমূলপ্রার্থীরাও। দুপুর থেকেই দলীয় প্রার্থীদের নিয়ে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েই সারা দেশে অঘোষিত ‘সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে বলে বিজেপিকে তোপ দাগেন তিনি। রাজ্যের সমস্ত বুথকে অতি-স্পর্শকাতর ঘোষণা করতে বিজেপির দাবির তীব্র সমালোচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শান্তিপূর্ণ রাজ্য হওয়া সত্তে¡ও অহেতুক পশ্চিমবঙ্গকে অপমান করতে চাইছে বিজেপি, এই অভিযোগ করেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৯৮ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় বিজেপি জয়ী হলে কিছু হয় না। বেছে বেছে বাংলাকেই টার্গেট করা হয় অপমান করার জন্য। মোদী-অমিত শাহের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্যই এই আক্রমণ চলছে। কিন্তু আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। ওদের কোনও রাজনৈতিক দল বলেই মনে করি না।’
পাশাপাশি সব কিছুরই একটা সীমা আছে, এই মন্তব্য করে তৃণমূলনেত্রী জানান, বাংলায় পেশীশক্তি দেখিয়ে বিজেপির কোনও লাভ হবে না। এই লাঞ্ছনা, গঞ্জনা, বাংলাকে অপমান করার জবাব, রাজ্যের ৪২টি আসনেই বিজেপি পাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
সাংবাদিক সম্মেলনে একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিজেপি তো এ বার নির্বাচন কমিশনকেও ভোট দিয়ে আসতে বলবে! আসলে বিজেপি আমাকে ভয় পাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গ একটি শান্তিপূর্ণ রাজ্য। আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখা রাজ্যের দায়িত্ব। দেশে কোথাও গণতন্ত্র আছে? গোরক্ষা-গণপিটুনিতে কত জন মারা গিয়েছে?’ এই কথা বলার পরই সারা দেশে ‘অঘোষিত সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে বলে দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
আসানসোলে মুনমুন সেনের তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ানো নিয়ে মমতার মন্তব্য, ‘ ইতিমধ্যেই মুনমুনকে ভয় পেতে শুরু করেছেন বিজেপি নেতা বাবুল সুপ্রিয়। সেই জন্যই মুনমুনকে নিয়ে আবোল-তাবোল বলার শুরু হয়েছে।’ একই সঙ্গে তৃণমূলনেত্রীর হুঁশিয়ারি, আগামী লোকসভা নির্বাচনে মুনমুনের বিরুদ্ধে দাঁড়ালে বাবুলের জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।
তৃণমূলের দুই পদত্যাগী সাংসদকে নিয়ে মমতা বললেন, ‘দু’জন প্রার্থী হওয়ার লোভ করেছিল। কারা তাদের প্রার্থী করল, সেই পরোয়া করি না।’ একই সঙ্গে দেশে গণতান্ত্রিক সরকার আনার জন্যই মোদীকে সরতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।
তৃণমূলের প্রার্থী তালিকাকে ‘বৈচিত্রের মধ্যেই ঐক্য’ বলেও এ দিনের সাংবাদিক সম্মেলনে জানান তিনি। পশ্চিমবঙ্গে সাত দফায় নির্বাচন করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তৃণমূল সাত দফায় সাতে সাত পাবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মমতা

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ