Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ১৫ মার্চ, ২০১৯, ১২:০০ পিএম

প্রশ্ন: আমার কোন বংশধর নেই। আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি সবটুকু বিক্রি করতে চাই। আমার সহোদরদের পুর্ণ সম্মতি আছে। ইসলাম কি বলে ? শুনেছি পৈত্রিক ভিটা বিক্রি করতে নেই। তাছাড়া চাচাত ভাইয়েরা ভিটাখানা দখলে নিয়ে নিয়েছে, কি করা উচিত? আমি নিজের বংশের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করতে আগ্রহী নই। জমি যদি চাচাত ভাইদের কাছে বিক্রি করি, তবে মুল্য নিয়ে ঠকার সম্ভাবনা আছে। বাইরের কারো কাছে দেয়া জায়েজ হবে?
উত্তর : আপনার বংশধর নেই। মানে আপনি নিঃসন্তান বা বিয়ে শাদী করেন নি। এখানে আপনার সম্পত্তি পরবর্তীতে ভাই-ভাতিজারা পাবেন। তারা যদি সম্মতি দেয় (যদিও এটি জরুরী নয়, সৌজন্য মাত্র) তাহলে পৈত্রিক সম্পত্তি সবটুকু বিক্রিতে শরীয়ত কোনো বাধা দেয় না। এতে কোনো অমঙ্গলও হয় না। তবে মানুষ সম্পূর্ণ বাস্তুহারা বা ছিন্নমূল যেন না হয়ে যায় এজন্য আমাদের সমাজে একটি রীতি চালু আছে নিজের পৈত্রিক ভিটাটুকু বিক্রি না করার। এতে মানুষ ঠিকানাবিহীন হয়ে যায়। এটি শরীয়তের বিধান না হলেও সামাজিক একটি সুন্দর রীতি। শরীয়ত একে মন্দও বলে না, ভালোও বলে না। তবে প্রচলিত ভালো রীতি শরীয়ত উৎসাহিত করে। এখন আসুন আপনার চাচাতো ভাইদের কথায়। আপনি ও আপনার আপন ভাইয়েরা আপনার জায়গায় থাকেন না। চাচাত ভাইয়েরা এজন্যই আপনার জায়গায় উঠেছে। আপনি মামলা করতে পছন্দ করেন না, এটি খুবই ভালো কথা। আপনি সম্ভব হলে কিছুটা ঠকেও জায়গাটি নিজ বংশের লোকদের দিয়ে দিন। এমন হতে পারে যে, বাজারমূল্য নির্ধারণ করুন, এরপর যা তারা দেয় তা গ্রহণ করুন, বাকীটা তাদের সওয়াবের নিয়তে ছাড় দিয়ে দিন। আত্মীয়দের প্রতি ইহসানের সওয়াব অনেক বেশি। এরপরও আপনার পূর্ণ অধিকার আাছে বাইরের লোকের কাছে বেশি মূল্যে বিক্রি করার এবং চাচাত ভাইদের উচ্ছেদ করে ক্রেতাকে জমি বুঝিয়ে দেওয়ার। এতে আপনার গুনাহ হবে না। তবে অনেক অনেক সওয়াব থেকে আপনি বঞ্চিত হবেন। এখন আপনার ইচ্ছা।
-আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম


আরও
আরও পড়ুন