Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

ফেসবুকে ও পুলিশের জালে ধরা বখাটে

সাহসী কন্যা ফারহেনা

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৬ মার্চ, ২০১৯, ৭:৩৬ পিএম

শিক্ষার্থীকে ইভটিজিং করার অভিযোগে তানভীর আহমেদ ছিদ্দিক (২৫) নামে এক বখাটেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ (শনিবার) ভোরে বাকলিয়া থানার মিয়াখান নগর বাইদ্দারটেক এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তানভীর আহমেদ ছিদ্দিক ওই এলাকার আব্দুল হকের পুত্র। বখাটেকে গ্রেফতারের পর ঘরে বসে থাকেননি সাহসী কন্যা ফারহেনা নওরীন। থানায় গিয়ে আসামিকে সামনা-সামনি দেখে শনাক্তও করেছেন। নিপীড়নের শিকার ফারহেনা নগরীর পূর্ব মাদারবাড়ি এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী আহম্মদ আলীর কন্যা। তিনি সরকারি সিটি কলেজের বিবিএস তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

ফারহেনা লেখাপড়ার পাশাপাশি পথশিশুদের নিয়ে কাজ করা অপরাজেয় বাংলাদেশ নামে একটি সংস্থার সঙ্গেও আছেন। গত ৬ মার্চ দুপুরে নগরীর স্টেশন রোডে অপরাজেয় বাংলাদেশ-এ থাকা পথশিশুদের একটি অনুষ্ঠান শেষে বাসায় যাবার জন্য ফলম-ির সামনে থেকে রিকশায় ওঠেন। রিকশাটি কদমতলী এলাকা পৌঁছলে পেছন থেকে মোটর সাইকেল নিয়ে দুই বখাটে যুবক তাকে অনুসরণ করে। বিভিন্ন ধরনের অশালীন মন্তব্যের পর একপর্যায়ে তার ওড়না ধরে টান দেয়। উত্যক্তের হাত থেকে বাঁচতে ফারহেনা রিকশায় বসেই মোবাইলে বখাটেদের কাজকর্ম ভিডিও করতে শুরু করেন। সেই ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে প্রচার করে পুলিশের সহযোগিতা চান তিনি।
এরপর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন ফারহেনার সঙ্গে যোগাযোগ করে সেই ভিডিও সংগ্রহ করেন। নিজের, কোতোয়ালি থানার ওসি ও থানার নামে খোলা মোট তিনটি ফেসবুক আইডির টাইমলাইনে ভিডিওটি শেয়ার করে দুই বখাটের বিষয়ে তথ্য চান ওসি। তিনি বলেন, ফেসবুকে যখন বখাটেপনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে, সেটা দেখে পালিয়ে যায় তানভীর ও সোহেল। গত শুক্রবার তানভীর বাসায় ফিরে আসে। খবর পেয়েই আমরা অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করি। তানভীর ইসলামিয়া কলেজের ছাত্র ছিল। পরে বিদেশে চলে যায়। ৫-৬ মাস আগে দেশে ফিরে আসে। তার কাছ থেকে অপর বখাটে মোঃ সোহেলের বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া গেছে। সোহেলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় তিনটি মাদকের মামলা আছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ওসি বলেন, ঘটনা জানার পর আমি ফারহেনাকে বলেছিলাম মামলা করতে। কিন্তু সে আমাকে বলেছিল, আপনি প্রকৃত আসামি গ্রেফতার করেন। সেই আসামিকে আমি আগে শনাক্ত করব, তারপর মামলা করব। বখাটে তানভীরকে গ্রেফতারের পর ফারহেনা মামলা করেছে। আমি এই মেয়ের সাহসী ভূমিকাকে স্যালুট করছি। তিনি বলেন, তানভীর ও সোহেল মোটরসাইকেলযোগে মহানগরীর নিউমার্কেট, রেলওয়ে স্টেশন, কাজীর দেউড়ি স্টেডিয়াম, সিআরবি, চকবাজার মোড, জামালখান, ডিসি রোডসহ বিভিন্ন স্কুল কলেজ থেকে বাসায় যাওয়ার পথে মেয়েদেরকে বিভিন্ন সময়ে ইভটিজিং করতো।

ফারহেনা গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আমি চাই বখাটে, ইভটিজারদের বিরুদ্ধে সবাই যেন সাহসের সাথে প্রতিবাদ করেন। বখাটেদের হাত থেকে নারীদের রক্ষার জন্য প্রতিবাদ খুবই জরুরি। এজন্য আমি আমার ঘটনা প্রকাশ করেছি। ইভটিজারদের গ্রেফতার করায় পুলিশকে ধন্যবাদ জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার

১৮ এপ্রিল, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ