Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

গোবিন্দগঞ্জে অপহৃত চেয়ারপ্রার্থী অচেতন অবস্থায় উদ্ধার বোয়ালখালী ও শৈলকুপায় দুই প্রার্থীর উপর হামলা

প্রকাশের সময় : ১৯ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে গভীর রাতে  কতিপয় দুর্বৃত্ত বিএনপি মনোনীত কোচাশহর ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশাররফ ম-লকে মুখে রুমাল চেপে অপহরণ করে নিয়ে যায়।
পরে ভোরে  বাড়ির অদূরে একটি চাতালের পার্শ্ববর্তী কবরস্থান থেকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় স্থানীয় জনতা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ওই ইউনিয়নের শক্তিপুর গ্রামের ধলু ম-লের ছেলে।
মোশাররফ ম-লের ভাই বজলু জানায়, বাড়ির অদূরে সাহাপুর তারাগনা গ্রামে গণসংযোগ করে রাত ১২টার দিকে সে শক্তিপুর গ্রামের ফরিদুলের বাড়িতে  রাতের খাবার খায়। এরপর কোচাশহর বটতলীতে এসে কর্মীদের বিদায় দিয়ে বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়ে না ফেরায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির করা হয়।  বুধবার ভোর ৬টার দিকে সাহাপুর গ্রামে একটি চাতালের কাছে খড়ি আনতে গিয়ে রিজিয়া বেগম (৬০) নামের এক মহিলা তাকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজনকে জানায় তারা। পড়ে বাড়িতে খবর দিলে পরিবারের লোকজন এসে মোশারফকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর তার আত্মীয়স্বজন মোশারফকে রংপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়।  
গোবিন্দগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার মো. রাকিবুল আলম জানান মোশারফকে অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে সে কিছু সময়ের জন্য সংজ্ঞা ফিরে পায় এবং আবছা আবছাভাবে বলে একদল দুর্বৃত্ত হঠাৎ করে তার মুখে রুমাল চাঁপা দেয়। এরপর সে আর কিছু বলতে পারে না। আবার সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাকে সম্ভবত কিছু দিয়ে অজ্ঞান করা হয়েছে। তার শরীরে কোথাও আঘাতের দাগ দেখা যায়নি।
গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মোজাম্মেল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখনো কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। তবে নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) আহম্মদ আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা গোবিন্দগঞ্জ-মহিমাগঞ্জ সড়কের তিন মাথা মোড়ে সকালে ঘণ্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অবরোধ তুলে দেয়।
বোয়ালখালীতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর উপর হামলা
বোয়ালখালী উপজেলা সংবাদদাতা : চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে নৌকার প্রার্থী কর্তৃক এক স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) প্রার্থীর সমর্র্থকদের উপর হামলার খবর পাওয়া গেছে। গতকাল (বুধবার) উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) চেয়ারম্যান প্রার্থী বোয়ালখালী পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি ব্যবসায়ী অজিত বিশ্বাস নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় তার সমর্থকদের উপর নৌকার প্রার্থী কাজল দে’র ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা হামলার ও ভাঙচুর করে। এ সময় এলোপাতাড়ি মারধরে ৫ জন আহত হন। বোয়ালখালী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
স্থানীয়রা জানায়, গতকাল সন্ধ্যার দিকে আমুচিয়ার ৩নং ওয়ার্ডের বড়–য়াপাড়া এলাকায় আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী অজিত বিশ্বাসের সমর্থনে মাইকিং করা হচ্ছিল। একই সময় স্থানীয় এক বাড়িতে নৌকা প্রতীকের কাজল দে উঠান বৈঠকে ছিলেন। এ সময় বিদ্রোহী প্রার্থী অজিত বিশ্বাসের নামে মাইকে প্রচারণার আওয়াজ শুনতে পেয়ে কাজলদের উপস্থিতিতে তার ভাইপো সঞ্জয়, মাদক সম্রাট নুপুর সর্দার ও মিঠুনের নেতৃত্ব হামলা হয়।
এ ব্যাপারে ওসি বোয়ালখালী মো. সালাহ্্ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত পূর্বক আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এলাকায় পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।
শৈলকুপায় নৌকার প্রার্থী জখম
ঝিনাইদহ জেলা সংবাদদাতা : ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার কাঁচেরকোল বাজারে ৫নং কাঁচেরকোল ইউনিয়নে আ’লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী সালাউদ্দিন জোয়াদ্দার মামুনকে পিটিয়ে জখম করেছে একই দলের বিদ্রোহী প্রার্র্থীর সমর্থকরা। তাকে উদ্ধার করে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।
বুধবার সকালে বাড়ি থেকে কাঁচেরকোল বাজারে আসার পথে তার উপর এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় আরো চারজন কমবেশি আহত হন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুন বলেন, সকাল ১০টার দিকে তিনি নির্বাচনী কাজে কাঁচেরকোল বাজারে আসছিলেন। শৈলকুপার ডাকুয়া নদীর উপর পৌঁছালে কাঁচেরকোল গ্রামের মৃত কাবিল মিয়ার ছেলে আজিজুল ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তার উপর হামলা চালায়। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে শৈলকুপা হাসপাতালে নিয়ে আসে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গোবি


আরও
আরও পড়ুন