Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী

আজ ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

আজ সাবেক প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমানের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী। নানা আয়োজন আর কর্মসূচিতে দিনটি পালন করবেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও তার স্বজনরা। প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন ২০১৩ সালের ২০ মার্চ সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে মারা যান তিনি।
মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ মরহুমের বনানী কবরস্তানে সকাল ৮টায় পুষ্পার্ঘ্য অর্পন ও মিলাদ মাহফিল কর্মসূচির আয়োজন করেছে আওয়ামী লীগ। এছাড়া বাদ আছর মরহুম মোঃ জিল্লুর রহমানের বাসভবনে (বাড়ি-২২, সড়ক-১০৮, গুলশান-২, ঢাকা) মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত মিলাদ মাহফিলে আত্মীয়-স্বজন, সহকর্মী ও গুণগ্রাহীদের যথাসময়ে উপস্থিত থাকার জন্য বিনীত অনুরোধ জানানো হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে তার জন্মস্থান কিশোরগঞ্জের ভৈরবে উপজেলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে কোরআনখানি, কালো ব্যাজ ধারণ, মরহুমের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। জিল্লুর রহমানের নিজ বাড়ি আইভি ভবনে আয়োজন করা হয়েছে কোরআনখানি ও দোয়া মাহফিলের।
১৯২৯ সালের ৯ মার্চ কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার ভৈরবপুর গ্রামের বলাকী মোল্লার বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন জিল্লুর রহমান। ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন তিনি। সে সময় তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক হলের জিএস ছিলেন। দেশের বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রাম ও ক্রান্তিলগ্নে তার ভূমিকা অবিস্মরণীয়। মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন তিনি। দল-মত নির্বিশেষে জিল্লুর রহমান সবার কাছে সমানভাবে গ্রহণযোগ্য ছিলেন। আর এ জন্যই ভৈরব-কুলিয়ারচর আসন থেকে তিনি ছয়বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
অহিংস রাজনীতির প্রবাদপুরুষ, ভাষাসৈনিক ও মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক জিল্লুর রহমান দেশের ১৯তম প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন ২০১৩ সালের ২০ মার্চ সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে মারা যান।
২০০৯ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি জিল্লুর রহমান বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন। এর আগে ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ দলীয় সরকার গঠন হলে জিল্লুর রহমান স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এবং সংসদের উপনেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া স্বাধীনতার পর তিনি তিনবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন।
জিল্লুর রহমানের স্ত্রী ছিলেন আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভি রহমান। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট দলীয় জনসভায় গ্রেনেড হামলায় আহত হয়ে ২৪ আগস্ট মৃত্যুবরণ করেন আইভি রহমান। তাদের ছেলে নাজমুল হাসান পাপন বর্তমানে স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডর (বিসিবি) সভাপতি। #



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ