Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

মুকসুদপুরে ২ প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ১১

গোপালগঞ্জ জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০১৯, ১:২৫ পিএম

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. কাবির মিয়ার নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা এবং বিভিন্ন স্থানে কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এ ঘটনায় অন্তত ১১ জন আহত হয়েছে বলে জানা যায়। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে মুকসুদপুর উপজেলা সদরের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ পাহারা জোরদার করেছে।
গুরুতর আহত আসাদকে মিয়াকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও টুকু কমিশনার (৫৫), তৌকির (১৮), আজগর (৩৮), গোলাম ফরহাদ (৫০), আল আমিন (১৮), কাদের (১৮), রুহুল আমিন (৪১), মাসুদ (২৯), মাহফুজ (২৩), হাফিজুরকে (৩০ ) মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র এ্যাড. আতিকুর রহমান মিয়া আনারস প্রতীকের প্রচারণায় মুকসুদপুর উপজেলার বহুগ্রাম ইউনিয়নের বলনারায়ণ বাজারে গেলে প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী এম এম মহিউদ্দিন আহম্মেদ (মুক্ত মুন্সী)’র সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটা-কাটির ঘটনা ঘটে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পরলে উভয় গ্রপের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

আনারস প্রতীকের প্রার্থী মো. কাবির মিয়া অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, খান্দারপাড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাব্বির খানের নেতৃত্বে তার লোকজন আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এম এম মহিউদ্দিন আহম্মেদ (মুক্ত মুন্সী)’র পক্ষ নিয়ে মুকসুদপুর ডিগ্রী কলেজ মোড়ে আমার নির্বাচনী প্রচারনার অফিস, আওয়ামী মটর চালক লীগের অফিস, হোটেল, সেলুন, মুদির দোকান, বন্ধ থাকা কয়েকটি দোকান, মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী মটর চালক লীগের সভাপতি সামচুল আরেফিন মুক্তার নিজের ব্যবহৃত প্রাইভেটকার এবং কয়েকটি কাউন্টার ভাঙচুর চালিয়েছে। এছাড়াও আনারসের প্রচারনার মাইক, অফিসের টেলিভিশন, কাউন্টারের তিনটি ল্যাপটপসহ গুরুত্বপূর্ণ দ্রব্যাদি লুট করে নিয়েছে।
মুকসুদপুর ও কাশিয়ানী অঞ্চলের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) রায়হান হোসেন বলেন, দুই প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছিল। এখন পরিস্থিতি শান্ত। পরবর্তী অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মুকসুদপুরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সংঘর্ষ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ