Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

সম্প্রচারিত হবে জুমার আজান, ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের দাফন শুরু

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০১৯, ৩:১৯ পিএম

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের পৃথক মসজিদে নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডের এক সপ্তাহ পূরণ হবে আগামী শুক্রবার। ভয়াবহ এ সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর অংশ হিসেবে এ দিন দেশটির সরকারি বেতার ও টেলিভিশনে জুমার নামাজের আজান সরাসরি সম্প্রচারের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এদিকে, ক্রাইস্টচার্চের পৃথক মসজিদে হামলার ঘটনায় নিহত অর্ধশতাধিক মুসল্লির মধ্যে এখন পর্যন্ত দুজনকে দাফন করা হয়েছে। বুধবার সিরীয় শরণার্থী খালেদ মুস্তাফা এবং তার ছেলে হামজাকে দাফনের মাধ্যমে ক্রাইস্টচার্চ হামলায় নিহতদের দাফন প্রক্রিয়া শুরু হয়। যদিও ভয়াবহ এ হামলার পর নিহতদের দাফন প্রক্রিয়া শুরু হতে পাঁচদিন সময় লেগে গেল। খবর রয়টার্স।
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডের্ন জানিয়েছেন, জুমার নামাজের আজান সরাসরি সম্প্রচারের পাশাপাশি শুক্রবার নিহতদের স্মরণে দুই মিনিটের নীরবতাও পালন করা হবে। বুধবার ক্রাইস্টচার্চের একটি স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে এমন ঘোষণা দেন তিনি।
দেশটির ইংরেজি দৈনিক নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, স্বাভাবিকভাবে যেকোনো প্রাণঘাতী নৃশংসতার পর দেশে এক মিনিটের নীরবতা পালনের রেওয়াজ থাকলেও এবার ক্রাইস্টচার্চ হামলার ভয়াবহতার কারণে দুই মিনিটের নীরবতা পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০১০ সালে পাইক রিভার বিস্ফোরণে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের অংশ হিসেবে সর্বশেষ দুই মিনিট নীরবতা পালন করেছিল নিউজিল্যান্ড।
এদিকে, ক্রাইস্টচার্চ সন্ত্রাসী হামলায় নিহত দুইজন সিরীয় শরণার্থীকে বুধবার দাফন করা হয়। তাছাড়া এখন পর্যন্ত ২১ জনের মরদেহ শনাক্ত করা হয়েছে। এবার সেই মরদেহগুলোকে পরিবারের কাছে হস্তান্তরের কার্যক্রম শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ।
আল নূর মসজিদে হামলার পর সেখানে সবার আগে পৌঁছানো পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এ দিন প্রথমবারের মতো সাক্ষাৎ করেছেন প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন। সেখানে পৌঁছে হতাহতদের উদ্ধার ও দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করায় তিনি পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি ধন্যবাদও জানিয়েছেন।
গত মঙ্গলবার থেকে মসজিদে হামলায় নিহতদের মরদেহ হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু হয়। যেখানে এখন পর্যন্ত অন্তত ছয়জনের মরদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।
ক্রাইস্টচার্চ পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মসজিদে হামলায় নিহতদের বেশিরভাগের পরিচয় শনাক্তের কাজ এখন বেশ কঠিন হয়ে পড়েছে। তবে এখন পর্যন্ত মোট ২১ জনের মরদেহ শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে দেশটির ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। যেখানে চিহ্নিত বারোটি মরদেহের মধ্যে ছয়টি ইতোমধ্যে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আর বাকিগুলোকেও অতি অল্প সময়ের মধ্যে হস্তান্তর করা হবে।
এদিকে, বুধবার দাফন প্রক্রিয়ার শুরুতে নিহতদের পরিবারকে যাবতীয় সহায়তা প্রদানে ইতোমধ্যে ক্রাইস্টচার্চে পৌঁছেছেন বেশ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী দলের সদস্যরা। তবে এই দাফন প্রক্রিয়ার সংবাদ সংগ্রহে গণমাধ্যমকে কঠোর নির্দেশিকাও প্রদান করেছে ক্রাইস্টচার্চ কর্তৃপক্ষ। তারা নিহতদের পরিবারের সদস্যদের একেবারে নিজেদের মতো থাকতে দিতে এবং তাদের যেন বার বার এ বিষয়ে প্রশ্ন করে অস্বস্তিতে ফেলা না হয় সে জন্য বিশেষ অনুরোধ জানানো হয়েছে। নিহতের পরিবারের লোকজন জানাজা শেষে মরদেহ দাফনের জন্য ইতোমধ্যে কবরস্থানে নিয়ে গেছেন।
এ দিন হামলার শিকার স্থানীয় আল নূর মসজিদের কাছেই জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে শত শত মুসল্লি অংশ নিয়েছেন। জানাজার নামাজে নিহত খালেদ মুস্তাফা এবং তার ১৫ বছর বয়সী ছেলে হামজার রুহের মাগফিরাত কামনা করা হয়।
উল্লেখ্য, উগ্র-ডানপন্থী ব্রেন্টন ট্যারেন্ট নামে অস্ট্রেলিয়ার এক নাগরিক মুসল্লিদের ওপর নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ৫০ মুসল্লিকে হত্যা করে। গত শুক্রবারের সেই হামলায় বাংলাদেশ, ভারত, তুরস্ক, কুয়েত, সোমালিয়া এবং অন্যান্য দেশের নাগরিকরা নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন কমপক্ষে ৪৯ জন। যাদের মধ্যে ১২ জনের অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক।



 

Show all comments
  • Billal Hosen ২০ মার্চ, ২০১৯, ৪:২২ পিএম says : 0
    ‘তুমি তোমরা রবের পথে হিকমত ও সুন্দর উপদেশের মাধ্যমে আহ্বান কর এবং সুন্দরতম পন্থায় তাদের সাথে বিতর্ক কর। নিশ্চয় একমাত্র তোমার রবই জানেন কে তার পথ থেকে ভ্রষ্ট হয়েছে এবং হিদায়াতপ্রাপ্তদের তিনি খুব ভাল করেই জানেন।’ {সূরা আন-নাহল, আয়াত : ১২৫}
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিউজিল্যান্ড

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন