Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

হাস্যকর কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকুন

প্রভোস্ট কমিটিকে সাদা দল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

হাস্যকর কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সদস্যদের আহ্বান জানিয়েছেন সাদা দলের শিক্ষকরা। ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী ৮ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রভোস্ট কমিটির সভায় শাস্তি দাবির নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে গতকাল (বুধবার) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তারা একথা বলেন।
বিবৃতিতে শিক্ষকরা বলেন, ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ করে ঢাকা বিশ্বদ্যিালয়ের ৮ জন শিক্ষক ব্যাপক অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে এ ত্রুটিযুক্ত নির্বাচন বাতিলের দাবি জানিয়েছিলেন। পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদন প্রকাশ করায় গত মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সভায় তাদের শাস্তি দাবি করে। এতে শিক্ষকরা বিস্মিত, হতবাক হয়েছেন। তারা বলেন, ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে ভোটের আগের রাতে ব্যালট পেপারে সিল মারাসহ পর্যবেক্ষক দলের প্রতিবেদনে যেসব অনিয়মের অভিযোগ করা হয়েছে তার প্রত্যেকটি অভিযোগ সত্য। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ও গণমাধ্যমেও এসব অনিয়মের কথা উঠে এসেছে। সাদা দলের পক্ষ থেকেও এসব অনিয়মের অভিযোগ এনে নির্বাচনের দিনই ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান ও পুনঃনির্বাচনের দাবি জানানো হয়েছিল। কিন্তু আমরা বিস্ময়ের সাথে দেখলাম যে কর্তৃপক্ষ এ নির্বাচনে অনিয়মের সাথে জড়িতদের ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। উল্টো এ নির্বাচনে সংঘটিত অনিয়ম কারচুপির ব্যাপারে যারা কথা বলেছেন, সোচ্চার হয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে প্রভোস্ট কমিটি থেকে শাস্তির দাবি করা হচ্ছে।
প্রভোস্ট কমিটির দাবিকে হাস্যকর মন্তব্য করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বলেন, যারা ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপি করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ও ঐতিহ্য নস্যাৎ করেছেন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাদা দলের আহ্বায়ক প্রফেসর ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে দুই শতাধিক শিক্ষকের নাম রয়েছে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন- প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান, প্রফেসর ড. মোঃ মোর্শেদ হাসান খান, ড. সদরুল আমিন, ড. মো. সিরাজুল ইসলাম, ড. মোঃ আখতার হোসেন খান, ড. মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান, ড. মো. আবুল কালাম সরকার, মো. আতাউর রহমান বিশ্বাস, ড. মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, ড. এএসএম আমানুল্লাহ, ড. দিল রওশন জিন্নাত আরা নাজনীন, ড. মামুন আহমেদ, ড. মোহাম্মদ আলমোজাদ্দেদী আলফেছানী, ড. মো. নুরুল আমিন, ইসরাফিল প্রামাণিক, ড. মো: আবদুর রশীদ, মো. মাহফুজুল হক, ড. লায়লা নূর ইসলাম, ড. হায়দার আলী, ড. দিলীপ কুমার বড়ূয়া, ড. মো. মোশাররফ হোসাইন ভূঁইয়া, আ কা ফিরোজ আহমদ, ড. বোরহান উদ্দীন খান, তাহমিনা আখতার, হোসনে আরা বেগম, ড. মোঃ আবুল বাশার, ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ, ড. মোঃ আতাউর রহমান মিয়াজী, আহমেদ জামাল আনোয়ার, এবিএম শহিদুল ইসলাম, ড. মোবাশ্বের মোনেম, ড. মোঃ আবুল বাসার, ড. খোন্দকার মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ, ড. আমিনুল ইসলাম ভূইয়া, শামীম শামছি, ড. সিরাজুল হক, এম এ কাউসার প্রমূখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ