Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে মিথ্যাচার করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

কোটালীপাড়া উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০১৯, ৪:১৭ পিএম

আসন্ন ২৪ মার্চ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীর পক্ষে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে মিথ্যাচার করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে প্রতিপক্ষ প্রার্থী দোয়াত কলম মার্কার সমর্থকরা। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর ও শিল্পকলা একাডেমী মাঠে এ বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাসের সমর্থকরা। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান নাদের আলী মিয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রতিবাদি বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের সন্তান হাজী মোঃ কামাল হোসেন শেখ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও বর্তমান চেয়ারম্যান প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস, আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুল হক, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও হিরন ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া দাড়িয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক আয়নাল হোসেন শেখ, পিনজুরী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যান আবু সাইদ শিকদার, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি চৌধুরী সেলিম আহম্মেদ ছোটন। এসময় উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ২ ঘন্টা ব্যাপী এ সমাবেশে হাজার হাজার জনতা উপস্থিত হয়ে এ ধরনের মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন, সমাবেশের খবরে মুহুর্তের মধ্যে জনতার ঢল নামে উপজেলা পরিষদ এলাকায় পরিনত হয় জনসমুদ্রে, মাঠে তিল ধারনের ঠাই না থাকায় আশেপাশের সড়কে পথচারিদের যান চলাচল ব্যাহত হয়। এ খবরে উত্যপ্ত হয়ে উঠেছে উপজেলার জনপথ। বক্তব্যে মুজিবুল হক বলেন- কাজী আকরাম উদ্দিন আহম্মেদের কিছু চামচা দালাল আছে সে তাদের কথা শুনে বিহবল হয়ে যায়। মেয়র হাজী মোঃ কামাল হোসেন শেখ হুশিয়ারি দিয়ে বলেন- গতকালের আচরণে মানুষ কত বিক্ষুদ্ধ, তার জবাব দিতে প্রস্তুত, তিনি প্রতিপক্ষের প্রার্থী ও সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে বলেন- রাত ১২টা পর্যন্ত সময় আছে এর মধ্যে আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনার নাম ভাঙ্গিয়ে ভোট চান এবং অন্য কারো রেফারেন্সে কথা বলেন তাহলে আপনাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না, তিনি অপ-প্রচারকারীদের গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনকে অনুরোধ জানান, তা না হলে শান্ত কোটালীপাড়া কিন্তু অশান্ত হয়ে যাবে, তিনি বলেন- একটা পক্ষ ১৯৭১ এর স্বশস্ত্র রাজাকার, কোটালীপাড়ার মানুষ বিগত দিনে ভোট দিয়ে ভুল করেছিল তাই আজকে সবাই রাজ পথে নেমে এসে প্রতিবাদ জানাতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে, তার ৪টি ছেলে মাদক সম্রাট, আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের ব্যাপারে জিরো টলারেন্স আমরাও তার সাথে একাত্ব ঘোষণা করে নির্বাচিত হয়ে মাদক স্বমুলে উৎপাটন করবো, বিএনপি’র লোক জামায়াত ও ৭১’র রাজাকার নিয়ে আপনি একটি শিবির তৈরি করেছেন, ঐ শিবিরে কোটালীপাড়ায় থাকবে না, এখনোও সংযত হন, গফ্ফার দাড়িয়া তুমি একটা বার্তা নিয়ে এসেছো তোমার বার্তা তোমারই বুমেরাং হয়ে যাবে সতর্ক হয়ে যাও, এধরনের আশফলং দেখানোর চেষ্টা আর করোনা, তুমি আওয়ামীলীগের কে। বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস বলেন- ব্যাংকের কয়েকজন বেতন ভুক্ত কর্মচারী নির্বাচেনর বাকী মাত্র ২ দিন এর মধ্যে কাল হঠাৎ করে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার রেফারেন্স দিয়ে যে উক্তি করেছে এটি অত্যন্ত নিন্দানীয় অত্যন্ত দুঃখজনক, এধরনের মিথ্যাচার ও আচরণ বিধি লংঘনের অভিযোগ এনে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের প্রতি ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। চৌধুরি সেলিম আহম্মেদ ছোটন বলেন- কোটালীপাড়াবাসীকে স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রত্যাখ্যান করে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি দোয়াত কলমের প্রার্থীকে বিজয়ী করার আহবান জানান।

এর আগে গফ্ফার দাড়িয়া নামের এক কর্মচারী চিংড়ি মাছ প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মুজিবুর রহমান হাওলাদারে এক নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য দিয়ে বলেন- আমি এসেছি আমাদের ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দিন আহম্মদ এর একটি বার্তা নিয়ে আপনাদের কাছে, সে প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলে তার মতামত নিয়ে মুজিবুর রহমান হাওলাদারকে সমর্থন করে তার পক্ষে কাজ করতে বলেছেন- কাজী সাহেবের এ বার্তা পেয়ে আমরা এসেছি, আমাদের গাড়ী দিয়ে প্রচার প্রচারনা চালানোর জন্য পাঠিয়েছে, গফ্ফার দাড়িয়া আরোও বলেন- আপনারা কর্মী, নেতা গ্রামে গ্রামে যাবেন এবং চিড়িং মাছের ভোট নিশ্চিত করবেন। এ ছাড়াও কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শেখ হাসিনার মার্কা চিংড়ি মাছ মার্কা “কাজী আকরাম উদ্দিন আহম্মেদ লেখা এবং গফফার দাড়িয়ার বক্তব্যের ভিডিওটি মুহুর্তের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইস বুকে পোষ্ট করে তার সমর্থকরা, এটি মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় ফলে প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠে রাজনৈতিক অঙ্গন ও কোটালীপাড়ার সাধারন জনগন, বিক্ষোভে ফেটে পড়ে এ সমাবেশে সমাবেত হন তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ