Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

হাটহাজারী থানার ওসির প্রত্যাহারের দাবি চবি শিক্ষার্থীদের

চবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০১৯, ৪:৪৮ পিএম

হাটহাজারী থানার অফিসার ইনচার্য (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাংগীরের প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুর ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশের সময় এ দাবি জানান তারা। এছাড়া শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ নং গেইটে স্পিড ব্রেকার এবং ওভারব্রিজ নিমার্ণের দাবী জানান। এই বিক্ষোভ সমাবেশে ছাত্রলীগের একাংশ একাত্বতা পোষণ করে।
উল্লেখ্য, বুধবার রাত সাড়ে বারো টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ১নং গেইট এলাকায় পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের এম এইচ হৃদয় নামে এক শিক্ষার্থী গুরুত্বর আহত হন। এই ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা হাটহাজারী-চট্টগ্রাম সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ দুই দফায় ব্যাপক লাঠিচার্য করে। এতে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হন। তবে লাঠি চার্যের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়ে হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাংগীর বলেন, বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণভাবে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।
বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, প্রতিদিন আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের অসংখ্য শিক্ষার্থী চট্টগ্রাম-হাটহাজারি সড়কের পাশে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ নং গেইট দিয়ে রাস্তা পারাপার হলেও সেখানে কোন স্পিডব্রেকার বা ফুটওভার ব্রিজ নেই। অনেক ঝুকি নিয়ে শিক্ষার্থীরা রাস্তা পারাপার হন। গতকাল এক শিক্ষার্থী সড়ক পার হওয়ার সময় গুরুত্বও আহত হন। বড় ধরণের কোন দুর্ঘটনা ঘটার আগে ব্যাবস্থা নেয়ার দাবি জানান তারা। বক্তারা আরো বলেন, হৃদয় আহত হওয়ার পর শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করলে ওসি বেলালের নির্দেশে এসআই হাবিবের নেতৃত্বে ১ নং গেইট এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্টে শিক্ষার্থীদের ওপর কয়েক দফা বেধড়ক লাঠিচার্জ করে পুলিশ। পুলিশ কেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপর হামলা করবে। আমরা তাদের প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি। আমাদের দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবো। বিক্ষোভ শেষে তিন দফা দাবিতে ভিসি বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।
বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেন প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের সকল ধরণের যৌক্তিক আন্দোলকে সমর্থন করি। শিক্ষার্থীদের দাবী পূরণে আগামীকাল ১ নং গেইটে স্পিডব্রেকার নির্মাণ করা হবে। অতি দ্রুত ফুটওভার ব্রিজও নির্মাণ করা হবে। তিনি আরো বলেন, আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জকারী অভিযুক্ত সকল পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ইতোমধ্যেই আমরা চট্টগ্রাম পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মানবন্ধন


আরও
আরও পড়ুন