Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

গুছিয়ে উঠছে জার্মানি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০১৯, ৭:২৬ পিএম

আন্তর্জাতিক ফুটবল ‘নতুনভাবে’ শুরু করলো জার্মানি। নতুন বলা হচ্ছে কারণ, জোয়াকিম লোর এই দল অনেকটাই অচেনা। তরুণ নির্ভর দল নিয়ে সার্বিয়ার সঙ্গে বুধবারের প্রীতি ম্যাচে ১-১ ড্র করে জার্মানি। তবে তাদের খেলায় ইতিবাচক ফুটবলের আভাস ছিল স্পষ্ট।
গত রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে খেলতে নামা জার্মানি। একই বছর নেশন্স লিগ থেকেও তাদের অবনমন ঘটে। নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে এমন বাজে বছর আর দেখেনি তারা। এরপর দলকে ঢেলে সাজাতে আমূল পরিবর্তন আনেন কোচ। ২০১৪ বিশ্বকাপজয়ী দলের মাত্র একজন ছিলেন এদিনের ম্যাচে। দলের সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড়ের বয়স ২৪ বছর। গত সপ্তায় ম্যাট হুমেলস, জেরোমে বোেয়টাং ও থমাস মুলারের আন্তর্জাতিক অধ্যায় শেষ বলে ঘোষণা দেন লো। এখন তার দল প্রস্তুতি নিচ্ছে রোববার নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ইউরো ২০২০ বাছাইয়ের জন্যে।
বুধবার লাইপজিগ ফরোয়ার্ড টিমো ভের্নারের পিছনে খেলানো হয় বায়ার লেভারকুসেন মিডফিল্ডার কাই হাভেরেৎ ও হুলিয়ান ব্রান্ড এবং ম্যানচেস্টার সিটি তারকা লেরয় সানেকে। লক্ষ্যে শট নিতে মাত্র তিন মিনিট সময় নেয় তারা। হাভেরেৎ-এর শট দারুণভাবে রুখে দেন গোলরক্ষক মার্কো দিমিত্রভিচ।
১১ মিনিটের মাথায় এগিযে যায় সার্বিয়া। কর্নার থেকে ভেসে আসা বল এক সতীর্থের কাধে লেগে উড়ে আসে লুকা জভিচের মাথার উপর। দারুণ হেডে গোলরক্ষক ম্যানুয়েল নয়্যরকে পরাস্থ করেন আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট ফরোয়ার্ড। চলতি মৌসুমে ক্লাবের হয়ে ৩৫ ম্যাচে ২২ গোল করা ২১ বছর বয়সীর আন্তর্জাতিক ফুটবলে প্রথম গোল এটি। আসন্ন দলবদলের বাজারে তার দিকে নজর রেখেছে বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের মত ক্লাব।
দুইবার দলকে সমতায় ফেরানোর খুব কাছে গিয়েছিলেন ভের্নার। নেশন্স লিগে নিজেদের গ্রুপে অপরাজিত থেকে প্রমোশোন পাওয়া সার্বিয়াও ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ হাতছাড়া করে। অ্যাডাম জাজিকের শট বারের উপর দিয়ে উড়ে যায়। বায়ার্ন মিউনিখ মিডফিল্ডার লেয়ন গোরেৎস্কা ৬৯তম মিনিটে দলকে সমতায় ফেরান। এর আগে ও পরে বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করে স্বাগতিকরা।
লো বলেন, ‘নতুন দল, প্রথমবারের মত তারা একসঙ্গে খেলছে, যে কারণে প্রথমার্ধে তাদের বোঝাপড়াটা ঠিক ছিল না। দ্বিতীয়ার্ধে দল ভালো কিছুর আভাস দিয়েছে। আমরা চাপ বাড়িয়ে তা ধরে রেখেছি। আমাদের অনেকগুলো সুযোগ ছিল এবং আক্রমণের শেষ শটে মিস করেছি। এটাও শেখার একটা অংশ।’ ‘সব মিলে যে চাপ আমরা তৈরী করেছি তাতে মানসিকভাবে আমি সন্তুষ্ট।’
শেষদিকে ম্যাচ বাঁচাতে রক্ষনাত্মক হয়ে পড়ে সার্বিয়া। এরপরও গোলরক্ষক দিমিত্রভিচ দারুণকিছু সেভ না দিলে হারতে হতো সফরকারীদের। ম্যাচের যোগ করা সময়ে সানেকে বাজেভাবে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন সার্বিয়ার মিলান পাভলভ। এরপর আর খেলতে পারেননি সানে। তবে ম্যানসিটি উইঙ্গারের চোট তেমন মারাত্মক নয় বলে ম্যাচশেষে জানান কোচ। রোববারের ম্যাচে সানের পাওয়ার ব্যাপারেও আশাবাদী লো, ‘ফাউলটা ছিল ভয়ঙ্কর। সানের ভাগ্য ভালো যে বড় কোন আঘাত পায়নি। এমন ফাউল হাড় ভেঙে ফেলতে পারে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফুটবল

১৯ অক্টোবর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন