Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

স্বামীর কাছ থেকে সন্তানকে খুনের হুমকিতে বিচ্ছেদ হয় শ্বেতা তেওয়ারির

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ মার্চ, ২০১৯, ৭:৩৫ পিএম

ভারতের টেলিভিশন পর্দার প্রিয় মুখ শ্বেতা তেওয়ারি । অল্প বয়েসে ভোজপুরী অভিনেতা রাজা চৌধুরীকে বাবা মায়ের অমতেই বিয়ে করেন শ্বেতা এই অভিনেত্রী। বিয়ের দুই বছর পর ২০০০ সালে রাজা-শ্বেতার সংসারে জন্ম হয় মেয়ে পলকের। তবে শ্বেতা-রাজার সংসার শেষ পর্যন্ত টেকেনি। এখন দুজন দুই পৃথিবীর বাসিন্দা। কারণ বহু আগেই এই অভিনেতা-অভিনেত্রীর বিচ্ছেদ হয়েছে।

সম্প্রতি একটা সাক্ষাৎকারে প্রক্তন স্বামী রাজের সম্পর্কে বেশ কিছু ভয়ানক তথ্য প্রকাশ করেছেন শ্বেতা। এই অভিনেত্রী বলেন, ‘রাজার সঙ্গে পরিচয় হওয়ার মাত্র তিন মাসের মাথায় তাকে বিয়ে করার সিদ্ধন্ত নিয়েছিলাম। সেটাই ছিল আমার জীবনের সব থেকে বড় ভুল । বিয়ের কিছু দিনের মধ্যেই জানতে পারি রাজা একজন মদ্যপ। মদ্যপ অবস্থায় সে প্রায় আমার গায়ে হাত তুলতো। এর মাঝেই আমি প্রেগন্যান্ট হয়ে যায়। জন্ম হয় আমার মেয়ে পলকের।’
এরপর দিন কে দিন রাজার অত্যচারের মাত্রা বেড়েই চলেছিল। বাবার অত্যাচারে মেয়ে পলকও মাঝে মধ্যেই আক্রান্ত হচ্ছিল। সেসবও সহ্য করে নিয়েছিলেন শ্বেতা। কিন্তু মেয়ে পলকের বয়স যখন ছয় বছর তখন রাজা একদিন পলককে মেরে ফেলার হুমকি দেন। আর রাজার ওই হুমকির কারণেই শ্বেতা তাকে ডির্ভোস দিতে বাধ্য হন বলেও জানান এই অভিনেত্রী।
শ্বেতা আরো বলেন, ‘ আমার দৃঢ বিশ্বাস রাজা সত্যিই হয়তো আমার মেয়েকে খুন করতো। তাইতো আর সহ্য না করতে পেরে বিবাহ বিচ্ছদের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।’
উল্লেখ্য, শ্বেতা রাজার নামে পুলিশের কাছে এফ আই আরও দায়ের করেন । ২০০৭ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপর প্রায় বছর তিনেক প্রেম করার পর শ্বেতা ২০১৩ সলে অভিনব কোহলির সঙ্গে ফের বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। ২০১৬ সালে শ্বেতার নতুন সংসারে জন্ম হয় ছেলে রেয়ান্সের । কয়েকদিন আগে শোনা গিয়েছিল শ্বেতার এ সংসারেও ভাঙ্গন ধরেছে। অভিনবের সঙ্গেও নাকি বিচ্ছেদ হয়ে যাবে শ্বেতার। তবে সেই খবর পরে মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়। এখনো এ অভিনেত্রী বেশ সুখেই অভিনব কোহলির সঙ্গেই সংসার করছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ