Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

শান্তার চিকিৎসায় সাহায্যের আবেদন

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৯ এএম

গাইবান্ধা সুন্দরগঞ্জে শিশু শান্তা (৮) গ্যাসের আগুনে দগ্ধ হয়ে ১৫ দিন থেকে হাসপাতালে কাতরাচ্ছে। গরীব ও অসহায় পরিবারের সন্তান শান্তা বেগমের নাভীর নিচ থেকে সামনের সমস্ত অংশ ও দুই পাশ গ্যাসের আগুনে ঝলসে যায়। শান্তা সুন্দরগঞ্জ উপজেলার উত্তর ধর্মপুর (হাজীপাড়া) গ্রামের কৃষি শ্রমিক আব্দুল খালেকের কন্যা। ৪ সন্তানের মধ্যে সে তৃতীয়। শান্তা উত্তর ধর্মপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২য় শ্রেণিতে পড়ালেখা করে। কিন্তু অভাব অনটনের সংসার হওয়ায় ৪ সন্তানের ভরণপোষন সামলাতে না পেরে শান্তার মা মমতাজ বেগম তাকে নিয়ে গার্মেন্টেসে চাকরি করতে ২ মাস আগে ঢাকা আসে।
গত ৪ মার্চ সকালে রান্নার সময় অসাবধানতা বশতঃ শান্তার জামায় গ্যাসের আগুন লেগে যায়। মুহূর্তেই পুড়ে যায় তার শরীর। এরপরই হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানকার চিকিৎসার খরচ ব্যয়বহুল হওয়ায় গত ৯ মার্চ সেখান থেকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের ১৪ নম্বর বেডে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে সে। পাশে রয়েছে তার মা মমতাজ বেগম। মমতাজের সাথে কথা বলার সময় কান্না জড়িত কণ্ঠে শান্তা বলেন আমি বাঁচতে চাই। আবার স্কুলে যেতে চাই।
দরিদ্র অসহায় শান্তার মা মমতাজ বাধ্য হয়ে সমাজের দানশীল দয়াবান ধনবান সহৃদয় ব্যক্তিদের কাছে মেয়ের চিকিৎসায় সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন।
যোগাযোগ : মোবাইল ০১৭৪০০৪০৫৩৪ (বিকাশ)।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন