Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

কাশ্মীর খোলা কারাগারে পরিণত হবে : মেহবুবা

জামায়াতে ইসলামীর পর এবার জেকেএলএফ নিষিদ্ধ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৯ এএম

পিডিপি সভাপতি ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি বলেছেন, ইয়াসিন মালিকের নেতৃত্বাধীন জম্মু-কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্ট (জেকেএলএফ) নিষিদ্ধ করার সরকারি সিদ্ধান্ত খুবই ক্ষতিকর হয়েছে এবং এটা কাশ্মীরকে খোলা কারাগারে পরিণত করবে। সন্ত্রাসবিরোধী আইনের আওতায় শুক্রবার কেন্দ্র জেকেএলএফ-কে সিদ্ধান্ত করে সরকার। জন নিরাপত্তা আইনে গত ২২ ফেব্রুয়ারি গ্রেফতার করা হয়েছিল ইয়াসিন মালিককে। বর্তমানে তিনি জম্মুর কট বালওয়াল জেলে রয়েছেন। পররাষ্ট্র সচিব রাজীব গৌবা সাংবাদিকদের বলেন, “কেন্দ্রীয় সরকার শুক্রবার জেকেএলএফ-কে ১৯৬৭ সালের ইউএপিএর আওতায় নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আমাদের জিরো টলারেন্স নীতির ভিত্তিতেই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে।” কিন্তু জেকেএলএফ-কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার সরকারি সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেন মুফতি। এক টুইটে তিনি বলেন, “অনেক দিন আগেই হিংসার পথ ছেড়ে দিয়েছেন ইয়াসিন মালিক। প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ী যখন আলোচনা প্রক্রিয়া শুরু করেছিলেন তখন ইয়াসিন মালিককে একটি পক্ষ হিসেবে ধরা হয়েছিল। এই সংগঠন নিষিদ্ধ করার মাধ্যমে কী পাওয়া যাবে? এ ধরনের ক্ষতিকর পদ্ধতি গ্রহণের মাধ্যমে কাশ্মীর এক খোলা জেলে পরিণত হবে মাত্র।” কর্মকর্তারা বলছেন যে জম্মু-কাশ্মীরে বিচ্ছিন্নতাবাদী কার্যকলাপ বাড়িয়ে তোলার জন্যই জেকেএলএফ-কে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ইউএপিএ’র তিন নং ধারানুসারে এই নিষিদ্ধি বলে জানিয়েছেন তাঁরা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে নিরাপত্তা বিষয়ক উচ্চপর্যায়ের কমিটির বৈঠকে বেআইনি কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) আইনের (ইউপিএ) আওতায় জেকেএলএফ-কে নিষিদ্ধ করা হয়। সাউথ এশিয়ান মনিটর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ