Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ঠাকুরগাঁওয়ে ক্লিনিকে ভুল অপারেশনে শিশু মৃত্যুর অভিযোগ

ঠাকুরগাঁও জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ মার্চ, ২০১৯, ৭:৩৫ পিএম

ঠাকুরগাঁওয়ে ভুল অপারেশনে আতিকা (৯) নামে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। আতিকা বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়বাড়ী ইউনিয়নের গোয়ালকারী গ্রামে আতিকুর রহমানের মেয়ে। সে ডাঙ্গীবাজারে বিপ্লব মেমোরিয়াল স্কুলের ৩য় শ্রেণির ছাত্রী।
শনিবার ঠাকুরগাঁও শহরের এলিজা নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে অপারেশন থিয়েটারে এ ঘটনা ঘটে। অপারেশনের সময় শিশুটিকে অতিরিক্ত এনেসথেসিয়ার (অজ্ঞান) ঔষধ প্রয়োগ করার কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন শিশুটির বাবা। তিনি বলেন অপারেশনের সময় আমার মেয়েকে অজ্ঞান করলে তার আর জ্ঞান ফিরেনি। অপারেশন কাজে নিয়োজিত ছিলো ডা. আবুবক্কর সিদ্দিক দীপু ও এনেসথেসিয়া ডা. মনির। তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় মামলায়র প্রস্তুতি নিচ্ছে তার পরিবারের লোকজন।
নিহতের পরিবারে লোকজনের কাছথেকে জানা যায়, যে স্কুল থেকে বাড়ি যাওয়ার সময় ইজি বাইকে ধাক্কায় পা ভেঙ্গে যায় আতিকার। স্থানীয়ভাবে আধুনিক সদর হাসপাতালে ১৩ (তের) দিন চিকিৎসা করায় তার বাবা। পরে স্থানীয় ডাক্তারের পরামর্শে পায়ের অপারেশন করা জন্য গত ০৩ (তিন) দিন আগে ভর্তি করায় শহরের এলিজা নার্সি হোম এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে।
শনিবার সকালে শহরের এলিজা নার্সি হোম এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে পায়ের অপারেশন করতে অপারেশন থিয়েটারে নেন ওই ক্লিনিকের ডাক্তার আবু বক্কর সিদ্দিক দিপু ও এনেসথেসিয়া ডাক্তার মনির। প্রায় ০৩ ঘন্টা অপারেশন থিয়েটারে অস্ত্রোপাচারের পর মৃত অবস্থায় বের করে শিশুটিকে।
তবে শিশুটি মারা গেছে এমন কথা না জানিয়েই ক্লিনিক থেকে পালিয়ে যায় ডাক্তার আবু বক্কর সিদ্দক দিপু ও এনেসথেসিয়া (অজ্ঞান) ডাক্তার মনির। পরে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ও দালাল হাতুরী ডাক্তার নানা ভাবে বুঝিয়ে শিশুটির লাশ তুলে দেয় পরিবারের হাতে। এ ব্যাপারে আবু বক্কর সিদ্দিকের সাথে কথা বলা যায়নি। আমাদের কার্য্য চলছে। এ বিষয়ে ক্লিনিক ম্যানেজার খাদেমুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমাদের চিকিৎসা ব্যবস্থাতে কোনো রকম ত্রুটি ছিলোনা। ডাক্তাররা শেষ পর্যন্ত রোগিটিকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছেন। ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জন ডা. আবু মোঃ খয়রুল কবির ইনকিলাবকে জানান যে ঘটনাটি দুঃখজনক, ৩(তিন) সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠণ করা হয়েছে সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তিন কার্যদিবসের মধ্যে রির্পোট দেওয়ার জন্য সময় নিয়েছি আমরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভুল চিকিৎসা

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ