Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সীতাকুন্ডে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে সবজি চাষ

সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সীতাকুন্ডে এ প্রথম ৫হাজার হেক্টর জমিতে স্বাস্থসম্মত বিষমুক্ত নিরাপদ সবজির চাষ করেছে কৃষক। উপজেলার বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের টেরিয়াইল, সৈয়দপুর ও পৌরসভাসহ তিনটি ইউনিয়নে এ বিষমুক্ত নিরাপদ সবজির চাষ হয়েছে। তবে সবজিতে পোকা দমনে এসব এলাকাগুলোতে অন্তত ৮হাজার ফেরোমন ফাঁদ স্থাপন করা হয়েছে। এটি পর্যায়ক্রমে ব্যাপকভাবে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে এ ফাঁদ স্থাপন করা হবে বলে উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে। সীতাকুন্ড সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র নাথ বলেন নিরাপদ সবজি উৎপাদনে কৃষকদের উদ্ভোদ্ধ করণের মাধ্যমে বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে বার্বিকভাবে দায়িত্ব পালন করা হচ্ছে।এ অঞ্চলের কৃষক প্রতিবছর পাহাড়ের পাদদেশে ও সাগরের বেড়িবাঁধ এলাকায় শীত ও গ্রীষ্মকালীন সময়ে প্রচুর পরিমান জায়গায় বিভিন্ন রকম সবজির চাষ করে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় চলতি মৌসুমেও ঢেঁড়শ,লাউ,বেগুন, তিতকরলা,শশাসহ প্রভৃতি সবজির চাষ করেছে কৃষক। সরেজমিনে কৃষকদের ক্ষেত গুলোতে ঘুরে ঘুরে দেখা যায় কৃষক পরিবার ক্ষতিকারক কীটনাশকের পরিবর্তে তারা জমিতে বিষমুক্ত ফসল উৎপাদনে জৈব ও বালাই নাশক ব্যবহার করছে। টেরিয়াইল ব্লকে দায়িত্বরত উপজেলা সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পিপাস কান্তি চৌধুরী বলেন,ফসলে পোকা দমনে ফেরোমন ফাঁদ ও জৈব বালাই নাশক ব্যবহার শুরু করেছে কৃষক। এতে করে একদিকে যেমন স্বাস্থসম্মত বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন হবে,অন্যদিকে ফসল উৎপাদনেও ভাল ভূমিকা রাখতে পারবে কৃষক। এ ব্লকে অন্তত ১০ হেক্টর জমিতেই স্বাস্থসম্মত বিষমুক্ত সবজির চাষ হয়েছে। তা এখন বিক্রিও শুরু হয়েছে। আসন্ন রমজান মাসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বেগুন, ঢেঁরশ, শশা ও খিরাসহ বিভিন্ন সবজি বিক্রি এবং চাহিদা ভারবে। একই এলাকার কৃষক রবিউল হোসেন মাসুম জানান, আসন্ন পবিত্র রমজান মাসকে সামনে রেখে কৃষক পরিবার ব্যাপক হারে তাদের নিজ নিজ জমিতে লাভের আসায় তারা আগে ভাগে জমিতে কোমড় বেধে লাউ, ঢেঁরশ, তিতকরলা, বেগুন খিরা, শশাসহ আরো অন্যান্য সবজির চাষ করেছেন। রমজানের প্রথম অবস্থায় সবজির দাম একটু ভাল পাওয়া যাবে সেই আশায় পৌষ মাষের মাঝামাঝি সময়ে ১ একর জমিতে স্বাস্থসম্মত বিষমুক্ত নিরাপদ সবজি বেগুনের চাষ করেছেন তিনি।বর্তমানে এর উৎপাদন ও বিক্রি শুরু হলেও রমজানের শেষ সময় পর্যন্ত বেগুন উৎপাদন ও বিক্রি চলবে। তিনি বলেন রমজানের শুরুতেই সবজি বিক্রিকরে ভাল দাম পাওয়া যায় সে কারনেই আগেভাগে বেগুনের চাষ করা হয়েছে। তবে উপজেলা কৃষি অফিসারের পরামর্শে আমরা পোকা দমনে কীটনাশকের পরিবর্তে ফেরোমন ফাঁদ ও জৌব বালাই নাশক ব্যবহার করছি। এসময় ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে আগত পাইকার সীতাকুন্ডে সাপ্তাহিক মহোন্তের হাট থেকে সবজি পাইকারী দরে ক্রয় করে ট্রাকে করে নিয়ে যান। একই এলাকার কৃষক মোঃ নাজিম উদ্দিন আসন্ন পবিত্র রমজান মাসকে সমনে রেখে তিনি ৫০ শতক জমিতে স্বাস্থসম্মত বিশমুক্ত বেগুন চাষ করেছেন। একই এলাকার কৃষক মোঃ মাসুদ ও ৬০শতক জমিতে ঢেঁরশ চাষ করেছে। তারা সবাই বলেন রোজার সময় নিয়ম অনুযায়ী সবজির চাহিদা অনেক বেশি থাকে। এদিকে উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ সাফকাত রিয়াদ বলেন,বর্তমানে তিনটি ইউনিয়নে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে বিষমুক্ত নিরাপদ সবজির চাষ করেছে কৃষক। আর পোকা দমনে ফেরোমন ফাঁদ ও জৈব বালাই নাশক ব্যবহার করার জন্য প্রতিটি ইউনিয়নের কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। ক্ষতিকারক কীটনাশকের পরিবর্তে ফেরোমন ফাঁদ ও জৈব বালাই নাশক ব্যবহারে একদিকে যেমন কৃষকদের উৎপাদন খরচ অর্ধেকের কম হবে,অন্যদিকে রক্ষা হবে পরিবেশের ভারসাম্যও।এসব এলাকা গুলোতে পোকা দমনে ৮ হাজার ফেরোমন ফাঁদ স্থাপন করা হয়েছে। এটি পর্যায়ক্রমে উপজেলার আরো অন্যান্য ইউনিয়নেও এ ফাঁদ স্থাপন করা হবে। বর্তমানে সবজির দাম ভাল । তাই কৃষক পরিবার নিরাপদ বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন ও বিক্রি করে আর্থিক ভাবে অনেক লাভবান হচ্ছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সীতাকুন্ড


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ