Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

শফিক রেহমানের চিকিৎসা নিয়ে মির্জা ফখরুল ও তালেয়ার উদ্বেগ

প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ছেন কারাবন্দি প্রবীণ সাংবাদিক শফিক রেহমান। পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়াতে পারছেন না। স্পষ্ট স্বরে কথাও বলতে পারছেন না। বাইরে থেকে রান্না করা খাবার সরবরাহ করতে দেয়া হচ্ছে না। ঠিক মতো খাবার না পাওয়ার কারণে শরীরের ওজন প্রায় অর্ধেকটাই কমে গেছে। ব্লাড পেসার লো হয়ে যাচ্ছে। এতে করে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছে- এমনটি দাবি করেছেন শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়া রেহমান।
তিনি ইনকিলাবকে জানান, গতকাল (বৃহস্পতিবার) কারা কর্তৃপক্ষ শফিক রেহমানের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতালে নেয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর তাকে কেন্দ্রীয় কারাগার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ৮১ বছরের বৃদ্ধ শফিক রেহমানকে কারাগারের বাইরের কোনো হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন।
এদিকে শফিক রেহমানের শারীরিক অবস্থার অবনতি ও উন্নত চিকিৎসার বিষয় নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল তিনি ইনকিলাবকে বলেন, শফিক রেহমান একজন বয়স্ক-বৃদ্ধ মানুষ। তিনি একজন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও বিশিষ্ট সাংবাদিক। এই বয়সে তাকে জেলে থাকতে হচ্ছে। তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে আনা হয়েছিলো। ভর্তি না করে কারাগারে নেয়া হয়েছে। এটি ঝুঁকিপূর্ণ ও দুঃজনক। তার সুচিকিৎসা ব্যবস্থার জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান।
শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়া রেহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় শফিক রেহমান দেশের জন্য অনেক কিছু করেছেন। বাংলাদেশে তখন কী অবস্থা, সেটা বিদেশে সব মিডিয়াকে জানিয়েছিলেন তিনি। এই কি তার প্রাপ্য? ৮১ বছর বয়সে তাকে জেলে বন্দি থাকতে হচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী পুত্র সজিব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যা ষড়যন্ত্রের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় গত ১৬ এপ্রিল শফিক রেহমানকে তার ইস্কাটনের বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ৭ দিন রিমা- শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ