Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬, ১৭ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

সেলিম আহমেদ, সাভার থেকে | প্রকাশের সময় : ২৬ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

মহান স্বাধীনতা দিবসে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ। সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হতে ধুয়ে মুছে ও রং তুলির আচড়ে রাঙানো হয়েছে সৌধ প্রাঙ্গণ। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত সড়কের দুইপাশের বহুতলভবন ও বিপনীবিতানগুলো আলোকসজ্জা দিয়ে সাজানো হয়েছে।
এছাড়া গত ১৮ মার্চ থেকেই সকল প্রকার দর্শনার্থীদের স্মৃতিসৌধে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। ২৬ মার্চ প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী এবং আমন্ত্রীত অতিথিবৃন্দ স্মৃতিসৌধ ত্যাগ করার পর সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান।
জাতির গৌরব আর অহংকারের এ দিনটিতে সৌধ প্রাঙ্গণে ঢল নামবে লাখো মানুষের। তাদের হৃদয় নিংড়ানো শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ফুলে ফুলে ভরে উঠবে স্মৃতিসৌধের শহীদ বেদি। ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান জানান, অন্যান্য বারের তুলনায় এবার বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নবীনগর থেকে সাভারের আমিনবাজার পর্যন্ত মহাসড়কের দু’পাশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সতর্কাবস্থায় রাখার পাশাপাশি পর্যাপ্ত ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা বসানো হয়েছে। যা নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে সাভার মডেল থানার কন্ট্রোল রুম থেকে। এছাড়া সার্বক্ষনিক নজরদারীর জন্য সৌধ এলাকায় নিরাপত্তা চৌকি ও পর্যবেক্ষণ টাওয়ার বসানো হয়েছে।
তিনি আরও জানান, এবারই প্রথম ৬০জন মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা দেয়া হবে। এছাড়া দেশের খ্যাতনামা শিল্পিরা দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করবে। এছাড়া থাকবে সেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচীও।
ত্রাণ ও দ‚র্যোগ ব্যবস্থপনা প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেন, দিবসটি উপলক্ষে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে। রাজধানীর প্রবেশপথ আমিন বাজার থেকে নবীনগর পর্যন্ত ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে স্ট্রিট লাইট বসানোর কাজ ইতিমধ্যে শেষ হওয়ার পথে, এছাড়াও সড়কের উভয় পাশে ব্যানার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে।
সড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ২৪টি বড় পর্দার এলইডি মনিটর বসানো হয়েছে। যার মাধ্যমে নতুন প্রজন্মরা বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষন দেখতে ও সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে।
গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান বলেন, দিবসটি উপলক্ষে গণপূর্ত বিভাগের পক্ষ থেকে সৌধ প্রাঙ্গণকে এক নতুন রুপে সাজানো হয়েছে। গণপূর্ত বিভাগের কর্মীরা গত এক সপ্তাহ ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে পুরো সৌধ প্রাঙ্গণকে এক নতুন রুপ দিয়েছে।
এছাড়া পরিস্কার-পরিছন্ন ও সংস্কার কাজের জন্য গত ১৮ মার্চ থেকে সৌধে সাধারণ দর্শনার্থীদের প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। তিনি বলেন, নানা রঙ্গের বাহারী ফুলের চারা দিয়ে ঢেকে ফেলা হয়েছে স্মৃতিসৌধের সবুজ চত্বর। চত্বরের সিড়ি ও নানা স্থাপনা রাঙ্গানো হয়েছে রং-তুলির আচড়ে।
২৬ শে মার্চ সকালে প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর পরই জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হবে জাতীয় স্মৃতিসৌধ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্বাধীনতা


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ