Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

৪৩ কোটি ডলারের গোলাপ মরুতেধ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৪ এএম | আপডেট : ১২:০৯ এএম, ২৭ মার্চ, ২০১৯

৪৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার ব্যয়ে গোলাপের আদলে জাদুঘর বানানো হয়েছে কাতারে। প্রায় ১০ বছর সময় নিয়ে তৈরি এই জাদুঘর চলতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার থেকে দেশের জাতীয় জনসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে। জানা যায়, আজ বুধবার জাদুঘরটির উদ্বোধন করবে দোহা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন কাতারের শাসক শেখ তামিম বিন হামাদ আল-থানি, কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আল-আহমদ আল-জাবের আল-সাবাহ ও ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী অ্যাডওয়ার্ড ফিলিপ। এরপর ২৮ মার্চ, বৃহস্পতিবার থেকে জনসাধারণের জন্য জাদুঘরটির দরজা খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। জাদুঘরের স্থপতি ফ্রান্সের জেন নওভেল। প্রখ্যাত এই স্থপতি টুইটে বলেন, এই স্থাপনা ঐতিহ্যকে দিকনির্দেশনা দিচ্ছে। এএফপির খবরে জানা যায়, জাতীয় জাদুঘরের ভবনের নকশা চোখে পড়ার মতো। প্রবেশপথে ১১৪টি ভাস্কর্য রয়েছে। ৯০০ মিটার লম্বা হ্রদ রয়েছে। আঁকাবাঁকা ছাদ রয়েছে। আছে ৭৬ হাজার সুড়ঙ্গ। ৩ হাজার ৬০০ আলাদা আকার ও নকশার সুড়ঙ্গ এগুলো। জাদুঘরের ভেতরে ১ হাজার ৫০০ মিটারেরও বেশি প্রশস্ত জায়গা রয়েছে। দর্শকদের জন্য রাখা আছে উনিশ শতকের কার্পেট। ওই কার্পেট ১৫ লাখ উপসাগরীয় মুক্তাখচিত। রয়েছে ১৮ শতকেরও আগের প্রাচীন কোরআন শরিফ। জাদুঘরের পরিচালক শেখ আমনা বিনতে আব্দুলআজিজ বিন জসিম আল-থানি বিবৃতিতে বলেন, এটা এমন এক জাদুঘর, যা কাতারের জনসাধারণের কথা বলে। আধুনিক কাতারের প্রতিষ্ঠাতার ছেলে শেখ আবদুল্লাহ বিন জসিম আল-থানির পুরোনো রাজপ্রাসাদের পাশে জাতীয় জাদুঘরটি অবস্থিত। জাদুঘর প্রকল্পের অংশ হিসেবে প্রাসাদটি মেরামত করা হয়েছে। কাতারের বেদুইনদের ইতিহাস এবং ধনীদের বর্তমান অবস্থার চিত্র জাদুঘরে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এ ছাড়া দেশটির সম্পদ সম্পর্কে ধারণাও দেওয়া হয়েছে। স্থাপত্য ও সাংস্কৃতিক বিবৃতিতে আরও বলা হয়, নতুন জাদুঘরটি কাতারের রাজনৈতিক পরিচয়ও বহন করে। উপসাগরীয় এলাকায় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার অংশ হিসেবেও কাতারের এই জাদুঘরটি নির্মাণ করা হয়েছে। আরবের উন্নয়নের নিদর্শন হিসেবে জাদুঘরটি নির্মিত হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জাদুঘরটি ২০১৬ সালে উন্মুক্ত করার কথা ছিল। দেরিতে উদ্বোধন হওয়ায় স্বকীয়তা আরও ভালোভাবে প্রকাশের সুযোগ পেয়েছে কাতার। ওয়েবসাইট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাতার

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ