Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

‘মানসিকভাবে প্রস্তুত’দের জায়গা বিশ্বকাপ

ধারাবাহিতকা আর ফিনিশিং ভাবাচ্ছে মাশরাফিকে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

নিউজিল্যান্ড সফরের আগেই মোটামুটি একটি ধারণা দিয়ে পাওয়া গিয়েছিল বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দল সম্পর্কে। তখন থেকেই অতি উচ্চারিত শব্দ ‘খুব বেশি পরীক্ষার জায়গা নেই’। তার মানে নির্বাচক, বোর্ডের ভাবনায় এরই মধ্যে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দল ‘ঠিক’ করা আছে। তবে সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই চলছে শক্তি-দুর্বলতার বিল্লেষণ। বাংলাদেশের সম্ভাব্য পারফরম্যান্সের ছবিতে মাশরাফি বিন মুর্তজার ভাবনায় শঙ্কার জায়গা ব্যাটিংয়ের ফিনিশিং আর ধারাবাহিকতায়। বিশ্বকাপের আগে এখানে যতটা সম্ভব উন্নতি দেখতে চান বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক।
ফিনিশিংয়ের ভাবনাতেই নিউজিল্যান্ড সফরের আগে দলে ফেরানো হয় সাব্বির রহমানকে। নিষেধাজ্ঞা কমিয়ে সাব্বিরকে ফেরানোর প্রক্রিয়া নিয়ে তখন সমালোচনা হয়েছিল তুমুল। তবে নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্টের মরিয়া ভাবটাও ফুটে উঠেছিল সেই পদক্ষেপে। নিউজিল্যান্ডে শেষ দুই ওয়ানডেতে ৪৩ ও ১০২ রানের ইনিংস খেলেছেন সাব্বির। তবে সেই দুই ম্যাচেই ওপরের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় মূলত ইনিংস মেরামতের কাজ করতে হয়েছিল সাব্বিরকে। ফিনিশিংয়ে প্রয়োজন কতটা মেটাতে পারেন, সেটির পরীক্ষা দিতে হয়নি ওই সিরিজে।

বিশ্বকাপে সেই পরীক্ষায় পড়তেই হবে, নিশ্চিত মাশরাফি। তাই কিছুটা উদ্বিগ্নও। তবে শুধু সাব্বির বা কোনো এক-দুজনকে দায় দিচ্ছেন না অধিনায়ক। সমাধান খুঁজতে চান দল হিসেবে খেলে। বিশ্বকাপের আগে উন্নতির সুযোগও দেখছেন যথেষ্ট, ‘আমার কাছে অনেক দিন থেকে একটা ব্যাপার মনে হয় যে আমাদের ফিনিশিংয়ে একটু দুর্বলতা আছে। এখানে আসলে জুনিয়রদের দোষ দিয়ে লাভ নেই। পুরো দলেরই একটি সমস্যার জায়গা আছে যে আমরা খেলাটা শেষ করতে পারছি না। শুধু রান তাড়া করার সময় নয়, প্রথমে ব্যাটিং করেও ভালো অবস্থান থেকে ভালো স্কোর দাঁড় করাতে পারিনি। গত দুই-তিন বছরে অনেক ক্লোজ ম্যাচ আমরা হেরেছি। বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে এই জায়গা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এমন কিছু ম্যাচ আসবেই। ৯টি ম্যাচ আছে প্রাথমিক পর্বে, কিছু ম্যাচ আসবে যেগুলো ক্লোজ হবে। সুতরাং ফিনিশিং অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এটি দলের জয়-পরাজয়ের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখবে। এটি নিয়ে আমরা অবশ্যই উদ্বিগ্ন। আমার বিশ্বাস যে ভুলগুলো করেছি সেগুলো হয়তো কমাতে পারব। আমি বলতে চাইছি না যে শতভাগ সফলতা পাব, কারণ এটি অনেক দিন এবং প্রক্রিয়ার ব্যাপার। তবে আশা করি সময়ের সাথে এটা ঠিক হবে।’

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলের সম্ভাব্য ছবি অনেকটাই পরিষ্কার। খুব বেশি পরিবর্তেনের সুযোগ নেই। তবে দুই-তিনটি জায়গা নিয়ে দোলাচল আছে এখনও। সেখানেই সুযোগ অনেকের। এবার ঢাকা লিগে প্রথম পাঁচ ম্যাচেই দুটি করে সেঞ্চুরি ও ফিফটিতে চারশর বেশি রান করেছেন ওপেনার সাইফ হাসান। গত বছর জাতীয় দলে ফিরেও ভালো না করায় বাদ পড়া এনামুল হক লিগে সেঞ্চুরি করেছেন টানা তিন ম্যাচে। অনেক দিন ধরেই জাতীয় দলের বাইরে থাকা ফরহাদ রেজার পারফরম্যান্স ব্যাটে-বলে চোখধাঁধানো। বেশ কিছুদিন ধরেই জাতীয় দলের আশেপাশে থাকা ইয়াসির আলি রাব্বি ভালো করছেন এবারের লিগেও। আবার, দলে ঢোকার সম্ভাব্য লড়াইয়ে থাকা ইমরুল কায়েস ৬ ম্যাচে করেছেন মোটে ৯২ রান। তবে লিগের এই পারফরম্যান্স তেমন প্রভাব রাখবে না বলেই মনে করেন মাশরাফি। নির্বাচকদের থেকে ‘মানসিকভাবে প্রস্তুত’, এমন খেলোয়াড়দের বিশ্বকাপ দলে চান বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক, ‘আসলে আমি ঢাকা লিগ নিয়ে তেমন একটা কনসার্ন না। কারণ এখানে অনেকবার আমি দেখেছি, যে মানুষ দিনের পর দিন সেঞ্চুরি হাঁকিয়েও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে গিয়ে স্ট্রাগল করেছে। উইকেট বলেন, ইন্টেন্ড বলেন...ক্রিকেটের ইন্টেন্ড বলেন- এগুলো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কাছাকাছি তো না! তবে ঢাকা লিগে কিছুটা আছে। বিপিএলেও আছে। তবে টুর্নামেন্টটি তো ওয়ানডে ফরম্যাটে হবে। এখানে (ঢাকা লিগ) অনেকে রান করে ওখানে (আন্তর্জাতিক ক্রিকেট) স্ট্রাগল করে। আবার এখানে উইকেট পেয়ে ওখানে স্ট্রাগল করছে। সুতরাং আমার কাছে মনে হয় মানসিকতা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। মানসিকভাবে প্রস্তুত কি না এবং এটার সাথে সে খেলায় নির্দিষ্টভাবে কী করছে, সেটা গুরুত্বপূর্ণ। আমার কাছে মনে হয় বিশ্বকাপ পুরোপুরি মানসিক খেলা। এই এক দেড় মাসে আপনি এখানে ৫-৬ উইকেট পেয়েও ওখানে গিয়ে স্ট্রাগল করতে পারেন। তাই মানসিকভাবে কতটা তৈরি, সেটা গুরুত্বপূর্ণ।’

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে আয়ারল্যান্ডে। এরপর বিশ্বকাপের দুটি অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচে প্রতিপক্ষ ভারত ও পাকিস্তান। ফিনিশিংয়ের চিত্র অনেকটা ফুটে উঠতে পারে সেসব ম্যাচে। বিশ্বকাপে বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মাশরাফি


আরও
আরও পড়ুন