Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬, ২১ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

গাজায় ফের হামলা ইসরাইলের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ মার্চ, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

কথিত রকেট হামলার জবাব দিতে গাজায় ফের হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। মঙ্গলবার রাত থেকে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ্য করে এ হামলা চালাচ্ছে তারা। খবর আনাদলুর। ইসরাইল সেনাবাহিনীর দাবি, মঙ্গলবার সন্ধায় হামাস গাজার দক্ষিণপ্রান্ত থেকে আশকেলনে সীমান্তে রকেট হামলা চালিয়েছে। এর জবাবে মঙ্গলবার রাত ও বুধবার সকালে হামাসের বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ করে বিমান হামলা চালায় তারা। তবে হামাসের ছোড়া রকেটে কোনো ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের কথা জানায়নি ইসরাইল। বুধবার সকালে রাফাতে ইসরাইলি সেনাবাহিনী নতুন করে বিমান হামলা শুরুর পর দক্ষিণাঞ্চলীয় ইসরাইলি শহর আশকেলনে রকেট হামলার আগাম সতর্ক সংকেত বাজানো হয়। সেখানে গাজা উপত্যকা থেকে ছোড়া একটি রকেটকে প্রতিহত করার দাবি করেছে ইসরাইল। দেশটির সেনাবাহিনীর দাবি, তারা রাফাত এলাকায় হামাসের সামরিক কম্পাউন্ডের ভেতরে কয়েকটি আস্তানায় বিমান হামলা চালিয়েছে। অপর এক খবরে বলা হয়, পাল্টাপাল্টি রকেট নিক্ষেপ ও বিমান হামলায় ফের সংঘর্ষে জড়িয়েছে ইসরাইল ও হামাস। মঙ্গলবার রাতে গাজা থেকে ছোড়া অন্তত দুটি রকেটের কারণে ইসরাইলে বিপদ সংকেত বেজেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এর প্রতিক্রিয়ায় ইসরাইলও ফিলিস্তিনের বেশ কয়েকটি স্থাপনায় বিমান হামলা চালায়। সোমবার গাজা থেকে ছোড়া রকেটে ৭ ইসরাইলি আহত হওয়ার পর দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে ইসরাইলি বিমান বাহিনীর প্রতিক্রিয়ায় আহত হন ৫ ফিলিস্তিনি। সংঘর্ষে হামাসসহ ফিলিস্তিনের বিভিন্ন সশস্ত্র সংগঠন ইসরাইলের দিকে একের পর এক রকেট ছুড়তে থাকে, যার পাল্টায় গাজার বিভিন্ন স্থাপনায় একের পর এক বিমান হামলা চালায় তেল আবিব। মিশরের মধ্যস্থতায় দুই পক্ষ একটি যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছেছে বলে সোমবার রাতে ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা দাবি করলেও ইসরাইল তা স্বীকার করেনি। “যুদ্ধবিরতির কোনো চুক্তি হয়নি, লড়াই যে কোনো মুহুর্তে ফের শুরু হতে পারে,” বলেছেন উর্ধ্বতন এক ইসরাইলি কর্মকর্তা। দুইপক্ষের এই পাল্টাপাল্টি দাবির মধ্যে মঙ্গলবার সীমান্ত ছিল বেশ শান্ত। আনাদোলু, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরাইল


আরও
আরও পড়ুন